পরীমনির ঘটনায় যা বললেন ভাবনা
jugantor
পরীমনির ঘটনায় যা বললেন ভাবনা

  স্পোর্টস ডেস্ক  

১৪ জুন ২০২১, ১৬:৩০:৪৮  |  অনলাইন সংস্করণ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘মা’ সম্বোধন করে ফেসবুকে ঢালিউডের আলোচিত নায়িকা পরীমনির দেওয়া স্ট্যাটাসে তোলপাড় সারা দেশ।

যেখানে এ নায়িকা অভিযোগ করেন, সাভারের এক ক্লাবে নির্যাতনের শিকার হয়েছেন তিনি। তাকে ধর্ষণ ও হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে।

স্ট্যাটাসের পর রাত সাড়ে ১০টায় গণমাধ্যম কর্মীরা পরীমনির গুলশানের বাসায় গেলে এ নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি।

সেখানে তিনি অভিযুক্তের নাম প্রকাশ করেন। বলেন, ঘটনার মূল হোতা নাসির ইউ মাহমুদ (নাসিরউদ্দিন আহমেদ) নামে এক ব্যক্তি। ঢাকা বোট ক্লাবের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য (বিনোদন ও সংস্কৃতি)।

এবং গত চার দিনে বিচার চাইতে বনানী থানার দারস্থ হলেও অভিযোগ রেকর্ড করেনি পুলিশ।

বিষয়টি গণমাধ্যমে আসার পর থেকে দেশব্যাপী তোলাপাড় চলছে। পরীমনির পাশে দাঁড়ানোর অঙ্গীকার করেছেন নেটিজেনরা।

সাধারণের পাশাপাশি পরীমনির সঙ্গে ঘটে যাওয়া এই ঘটনায় দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন নাটক ও চলচ্চিত্র অঙ্গনের শিল্পী ও কলাকুশলীরার।

নিজেদের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে এ বিষয়ে স্ট্যাটাসও দিয়েছেন।

চলচ্চিত্র অভিনয়শিল্পী জয়া আহসান লিখেছেন, ‘পরীমনির খবরটি শোনার পর থেকে বেদনা ও ধিক্কারে মনটা ভরে উঠেছে। আমি কষ্ট পাচ্ছি মানুষ হিসেবে, মেয়ে হিসেবে, অভিনয়জগতের একজন সদস্য হিসেবে।একবিংশ শতকের অনেকটা পথ পার হয়ে এসে এখনো মেয়েদের এমন লাঞ্ছনা দেখতে হবে? কোনো মানুষ, কোনো মেয়ের সঙ্গে এমন আচরণ করার মন–মানসিকতা বা দুঃসাহস কোত্থেকে আসে? যে চলচ্চিত্রশিল্পকে রক্তে-ঘামে আমরা তিল তিল করে গড়ে তুলছি, তা এতই নাজুক, এতই খেলো? এ ঘটনা আমরা তলা পর্যন্ত বুঝতে চাই। আমরা দেখতে চাই, এমন দুর্বৃত্তপনার বিচার হয়েছে। দেখতে চাই, কোনো মেয়ে—তা সে যে-ই হোক—তার সঙ্গে এমন আচরণের অবসান হয়েছে।’

পরীমনির কান্না দেখে বিধ্বস্ত অভিনয়শিল্পী আশনা হাবীব ভাবনাও।

নিজের ফেসবুক পেজে ভাবনা লেখেন, ‘পরীর এই কান্না নিতে ভীষণ কষ্ট হচ্ছে। একজন নারী হিসেবে, একজন সহকর্মী হিসেবে। সম্মান একটা পিঁপড়ারও আছে। পরীমনি একজন নায়িকা, হ্যাঁ, বাংলা সিনেমার নায়িকা। তো? তার সঙ্গে যা খুশি, তা-ই করা যাবে? এই পিতৃতান্ত্রিক সমাজে যত বড় হচ্ছি, তত নিজেকে অতি ক্ষুদ্রভাবে দেখতে পাচ্ছি। সে একজন নারী। সে ঘরের বউ হোক, পারলারে কাজ করা মেয়ে হোক, বিশাল কাচের রুমে বসে অফিস করা মেয়ে হোক, গার্মেন্টসকর্মী হোক, ডাক্তার হোক, লেখক হোক, আর যদি নায়িকা হয় তাহলে তো কথাই নেই। সবাইকে সহ্য করতে হয় অসম্মান, সবাইকে। পরীর পাশে আছি। পরী তুমি ভাঙবে না প্লিজ।’

পরীমনির ঘটনায় যা বললেন ভাবনা

 স্পোর্টস ডেস্ক 
১৪ জুন ২০২১, ০৪:৩০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘মা’ সম্বোধন করে ফেসবুকে ঢালিউডের আলোচিত নায়িকা পরীমনির দেওয়া স্ট্যাটাসে তোলপাড় সারা দেশ।

যেখানে এ নায়িকা অভিযোগ করেন, সাভারের এক ক্লাবে নির্যাতনের শিকার হয়েছেন তিনি। তাকে ধর্ষণ ও হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে।

স্ট্যাটাসের পর রাত সাড়ে ১০টায় গণমাধ্যম কর্মীরা পরীমনির গুলশানের বাসায় গেলে এ নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি।

সেখানে তিনি অভিযুক্তের নাম প্রকাশ করেন। বলেন, ঘটনার মূল হোতা নাসির ইউ মাহমুদ (নাসিরউদ্দিন আহমেদ) নামে এক ব্যক্তি। ঢাকা বোট ক্লাবের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য (বিনোদন ও সংস্কৃতি)।

এবং গত চার দিনে বিচার চাইতে বনানী থানার দারস্থ হলেও অভিযোগ রেকর্ড করেনি পুলিশ।

বিষয়টি গণমাধ্যমে আসার পর থেকে দেশব্যাপী তোলাপাড় চলছে। পরীমনির পাশে দাঁড়ানোর অঙ্গীকার করেছেন নেটিজেনরা।

সাধারণের পাশাপাশি পরীমনির সঙ্গে ঘটে যাওয়া এই ঘটনায় দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন নাটক ও চলচ্চিত্র অঙ্গনের শিল্পী ও কলাকুশলীরার।

নিজেদের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে এ বিষয়ে স্ট্যাটাসও দিয়েছেন।

চলচ্চিত্র অভিনয়শিল্পী জয়া আহসান লিখেছেন, ‘পরীমনির খবরটি শোনার পর থেকে বেদনা ও ধিক্কারে মনটা ভরে উঠেছে। আমি কষ্ট পাচ্ছি মানুষ হিসেবে, মেয়ে হিসেবে, অভিনয়জগতের একজন সদস্য হিসেবে।একবিংশ শতকের অনেকটা পথ পার হয়ে এসে এখনো মেয়েদের এমন লাঞ্ছনা দেখতে হবে? কোনো মানুষ, কোনো মেয়ের সঙ্গে এমন আচরণ করার মন–মানসিকতা বা দুঃসাহস কোত্থেকে আসে? যে চলচ্চিত্রশিল্পকে রক্তে-ঘামে আমরা তিল তিল করে গড়ে তুলছি, তা এতই নাজুক, এতই খেলো? এ ঘটনা আমরা তলা পর্যন্ত বুঝতে চাই। আমরা দেখতে চাই, এমন দুর্বৃত্তপনার বিচার হয়েছে। দেখতে চাই, কোনো মেয়ে—তা সে যে-ই হোক—তার সঙ্গে এমন আচরণের অবসান হয়েছে।’

পরীমনির কান্না দেখে বিধ্বস্ত অভিনয়শিল্পী আশনা হাবীব ভাবনাও।

নিজের ফেসবুক পেজে ভাবনা লেখেন, ‘পরীর এই কান্না নিতে ভীষণ কষ্ট হচ্ছে। একজন নারী হিসেবে, একজন সহকর্মী হিসেবে। সম্মান একটা পিঁপড়ারও আছে। পরীমনি একজন নায়িকা, হ্যাঁ, বাংলা সিনেমার নায়িকা। তো? তার সঙ্গে যা খুশি, তা-ই করা যাবে? এই পিতৃতান্ত্রিক সমাজে যত বড় হচ্ছি, তত নিজেকে অতি ক্ষুদ্রভাবে দেখতে পাচ্ছি। সে একজন নারী। সে ঘরের বউ হোক, পারলারে কাজ করা মেয়ে হোক, বিশাল কাচের রুমে বসে অফিস করা মেয়ে হোক, গার্মেন্টসকর্মী হোক, ডাক্তার হোক, লেখক হোক, আর যদি নায়িকা হয় তাহলে তো কথাই নেই। সবাইকে সহ্য করতে হয় অসম্মান, সবাইকে। পরীর পাশে আছি। পরী তুমি ভাঙবে না প্লিজ।’

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : পরীমনিকে ধর্ষণচেষ্টা