মাছ বিক্রি করে সংসার চালাচ্ছেন প্রসেনজিতের সহঅভিনেতা!
jugantor
মাছ বিক্রি করে সংসার চালাচ্ছেন প্রসেনজিতের সহঅভিনেতা!

  বিনোদন ডেস্ক  

২৫ জুন ২০২১, ১২:৩২:০৯  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতে করোনা মহামারির দ্বিতীয় ঢেউয়ে নাকাল অবস্থা কলকাতার সিনেপাড়াও। শুটিং বন্ধ থাকায় অনেকেই কাজ হারিয়ে পথে বসেছেন।

কেউ কেউ টালিউড ছেড়ে জীবিকার সন্ধানে অন্য পথ বেছে নিয়েছেন। এদের মধ্যে অন্যতম টালিউডের সুপরিচিত অভিনেতা শ্রীকান্ত মান্না। অভিনয়ই যার ধ্যানজ্ঞান তাকে দেখা গেল কলকাতার বাজারে মাছ বিক্রি করতে!

কলকাতার সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার জানিয়েছে, প্রথম দিকে গামছা দিয়ে মুখ আড়াল করে মাছ বিক্রি করতেন শ্রীকান্ত। এখন আর লোকে কী বলবে সেই তোয়াক্কা করেন না। মুখ আড়াল করেন না। তাই মাছ কিনতে আসা ক্রেতাদের অনেকেই চিনে ফেলেন তাকে। অনেকেই অবাক হয়ে প্রশ্ন করেন— আরে আপনি তো অভিনেতা, মিঠুনদার ছবিতে দেখেছি, প্রসেনজিতের অনেক ছবিতে অভিনয় করেছেন! তাই না?

শ্রীকান্ত মান্না জবাবে শুধুই হাসেন, কখনও বা মাথা নাড়ান।

শুধ টালিউড নয়, পশ্চিমবঙ্গের টেলিভিশন জগতেও চেনামুখ শ্রীকান্ত। ২৫ বছর ধরে সুপরিচিত 'সংস্তব' নাট্যদলে অভিনয় করছেন শ্রীকান্ত। 'মুষ্টিযোগ', 'গুণধরের অসুখ'সহ সংস্তব-এর অনেক নাটকের অভিনেতা তিনি।

টালিউডে 'এই পৃথিবী তোমার আমার', 'বেগ ফর লাইফ', 'রাজকাহিনী', 'গ্ল্যামার'সহ বহু সিনেমায় পার্শ্বচরিত্রে তার অভিনয় সিনেপ্রেমীদের নজর কেড়েছে।

মিঠুন চক্রবর্তী, প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়, সব্যসাচী চক্রবর্তী, আবীর চট্টোপাধ্যায়, পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের মতো খ্যাতনামা অভিনেতাদের সঙ্গে কাজ করেছেন শ্রীকান্ত।

শ্রীকান্ত অভিনীত প্লাস্টিক বোতলের ব্যবহার নিয়ে নির্মিত স্বল্প দৈর্ঘ্যের ছবি 'ছিপি' (দি ক্যাপ) একাধিক পুরস্কার পেয়েছে।

আর এমন একজন সুখ্যাত অভিনেতা বাজারে মাছ বিক্রি করছেন!

এ বিষয়ে শ্রীকান্ত জানান, অভিনয়শিল্প দর্শকদের মনের খিদে মেটায়, পাশাপাশি আমার পেটের খিদেও মেটায়। করোনায় সিনেমা সেভাবে হচ্ছে না। রোজগার বন্ধ। তাই মাছ বিক্রি করে পেটের খিদে মেটাতে হচ্ছে।

এতে আপত্তি নেই শ্রীকান্তের। বললেন, সৎ কাজ। লজ্জা নেই, আফসোস নেই। তা ছাড়া আমি তো একা নই। কত মানুষ অসহায়। লড়ছে। আমিও লড়ছি।

শ্রীকান্তের কথায় সহমত অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্রের। ফেসবুকে তিনি লিখেছেন— কোনো কাজ ছোট নয় ঠিকই, তবু প্রশ্ন থেকেই যায়। পরিশ্রম করে নিজের সংসার চালাচ্ছেন এই শিল্পী। আপনাকে শ্রদ্ধা জানাই।

তবে অনেকেই বিষয়টি নেতিবাচক হিসেবে দেখছেন।

কলকাতার সিনেপ্রেমীদের বক্তব্য— করোনার এই অসময়ে এমন একজন গুণী শিল্পীকে কি চলচ্চিত্র সমিতি বা ওপরের সারির অভিনেতারা সহায়তা করতে পারতেন না? তাকে জীবন-জীবিকা চালাতে মাছ বিক্রি করতে হচ্ছে কেন!

মাছ বিক্রি করে সংসার চালাচ্ছেন প্রসেনজিতের সহঅভিনেতা!

 বিনোদন ডেস্ক 
২৫ জুন ২০২১, ১২:৩২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতে করোনা মহামারির দ্বিতীয় ঢেউয়ে নাকাল অবস্থা কলকাতার সিনেপাড়াও। শুটিং বন্ধ থাকায় অনেকেই কাজ হারিয়ে পথে বসেছেন।

কেউ কেউ টালিউড ছেড়ে জীবিকার সন্ধানে অন্য পথ বেছে নিয়েছেন। এদের মধ্যে অন্যতম টালিউডের সুপরিচিত অভিনেতা শ্রীকান্ত মান্না। অভিনয়ই যার ধ্যানজ্ঞান তাকে দেখা গেল কলকাতার বাজারে মাছ বিক্রি করতে!

কলকাতার সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার জানিয়েছে, প্রথম দিকে গামছা দিয়ে মুখ আড়াল করে মাছ বিক্রি করতেন শ্রীকান্ত। এখন আর লোকে কী বলবে সেই তোয়াক্কা করেন না। মুখ আড়াল করেন না। তাই মাছ কিনতে আসা ক্রেতাদের অনেকেই চিনে ফেলেন তাকে। অনেকেই অবাক হয়ে প্রশ্ন করেন— আরে আপনি তো অভিনেতা, মিঠুনদার ছবিতে দেখেছি, প্রসেনজিতের অনেক ছবিতে অভিনয় করেছেন! তাই না?

শ্রীকান্ত মান্না জবাবে শুধুই হাসেন, কখনও বা মাথা নাড়ান।

শুধ টালিউড নয়, পশ্চিমবঙ্গের টেলিভিশন জগতেও চেনামুখ শ্রীকান্ত। ২৫ বছর ধরে সুপরিচিত 'সংস্তব' নাট্যদলে অভিনয় করছেন শ্রীকান্ত। 'মুষ্টিযোগ', 'গুণধরের অসুখ'সহ সংস্তব-এর অনেক নাটকের অভিনেতা তিনি।

টালিউডে 'এই পৃথিবী তোমার আমার', 'বেগ ফর লাইফ', 'রাজকাহিনী', 'গ্ল্যামার'সহ বহু সিনেমায় পার্শ্বচরিত্রে তার অভিনয় সিনেপ্রেমীদের নজর কেড়েছে।

মিঠুন চক্রবর্তী, প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়, সব্যসাচী চক্রবর্তী, আবীর চট্টোপাধ্যায়, পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের মতো খ্যাতনামা অভিনেতাদের সঙ্গে কাজ করেছেন শ্রীকান্ত।

শ্রীকান্ত অভিনীত প্লাস্টিক বোতলের ব্যবহার নিয়ে নির্মিত স্বল্প দৈর্ঘ্যের ছবি 'ছিপি' (দি ক্যাপ) একাধিক পুরস্কার পেয়েছে।

আর এমন একজন সুখ্যাত অভিনেতা বাজারে মাছ বিক্রি করছেন!

এ বিষয়ে শ্রীকান্ত জানান, অভিনয়শিল্প দর্শকদের মনের খিদে মেটায়, পাশাপাশি আমার পেটের খিদেও মেটায়। করোনায় সিনেমা সেভাবে হচ্ছে না। রোজগার বন্ধ। তাই মাছ বিক্রি করে পেটের খিদে মেটাতে হচ্ছে।

এতে আপত্তি নেই শ্রীকান্তের। বললেন, সৎ কাজ। লজ্জা নেই, আফসোস নেই। তা ছাড়া আমি তো একা নই। কত মানুষ অসহায়। লড়ছে। আমিও লড়ছি।

শ্রীকান্তের কথায় সহমত অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্রের। ফেসবুকে তিনি লিখেছেন— কোনো কাজ ছোট নয় ঠিকই, তবু প্রশ্ন থেকেই যায়। পরিশ্রম করে নিজের সংসার চালাচ্ছেন এই শিল্পী। আপনাকে শ্রদ্ধা জানাই।

তবে অনেকেই বিষয়টি নেতিবাচক হিসেবে দেখছেন।

কলকাতার সিনেপ্রেমীদের বক্তব্য— করোনার এই অসময়ে এমন একজন গুণী শিল্পীকে কি চলচ্চিত্র সমিতি বা ওপরের সারির অভিনেতারা সহায়তা করতে পারতেন না? তাকে জীবন-জীবিকা চালাতে মাছ বিক্রি করতে হচ্ছে কেন!
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন