২০ বছর পর মুখ খুললেন বিপাশা বসু
jugantor
২০ বছর পর মুখ খুললেন বিপাশা বসু

  বিনোদন ডেস্ক  

২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৪:৪০:৪৮  |  অনলাইন সংস্করণ

বলিউডে ২০ বছর পূর্ণ হলো ‘শ্যামবর্ণা সুন্দরী’ বিপাশা বসুর। ২০০১ সালের ২১ সেপ্টেম্বর ‘আজনবি’ ছবি দিয়ে বলিউডে অভিষেক ঘটে বাঙালি এই অভিনেত্রীর।

রূপালি পর্দায় ২০ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে বিপাশা বসুর সাক্ষাৎকার নিয়েছে টাইমস অব ইন্ডিয়া।

যেখানে তিনি প্রকাশ করেছেন,২০ বছর ধরে হৃদয়ে পুষে রাখা চাপা কষ্ট। ৪২ বছর বয়সি এ নায়িকা জানালেন, গায়ের রং আর সব নায়িকার মতো ফর্সা না হওয়ায় অনেক কথাই শুনতে হয়েছে তাকে। একটা সময় ছিল যখন তাকে সন্ধ্যার পর ঘরের বাইরেও যেতে দেওয়া হতো না। এতে নাকি তিনি আরও কালো হয়ে যাবেন!

বলিউডে অভিষেকের পর গায়ের রঙ নিয়ে লোকজনের অহেতুক পরামর্শ শুনেছেন, নানাভাবেই হেনস্তার শিকার হয়েছেন বলে জানান বিপাশা।

বিপাশা বলেন, এটা তখনকার কথা, যখন আমি আমার প্রথম হেয়ার-স্টাইলিস্ট কৌশলের সঙ্গে দেখা করি। সেও আমাকে নায়িকা হওয়ার ‘নিয়ম’ শিখিয়েছিল। সে বলল, জনসম্মুখে না গিয়ে আমি যেন আড়ালে থাকি।’

সুইজারল্যান্ডে ‘আজনবি’র শুটিংয়ের এক ঘটনা রোমন্থন করেন বিপাশা।

বলেন, আমি আইস টি খাচ্ছিলাম। এ সময় আমার হেয়ারস্টাইলিস্ট এসে বলে, ‘সবাই ভাবছেন যে আপনি হুইস্কি পান করছেন।’ তারপর সে আমাকে পরামর্শ দেয়, আমি যেন চা বা জুস কাপে নিয়ে খাই। আরেক দিন একটা ব্যাকলেস ব্লাউজ পরে থাকায় আমাকে বলা হয়, ‘অভিনেত্রীরা কেবল পর্দায় এমন পোশাক পরেন, বাস্তবে না।’

বিপাশা জানান, শুরুর দিকে এসব পরামর্শ চুপচাপ মেনে নিলেও পরে এসব স্রেফ ভণ্ডামি মনে হয় তার কাছে। তিনি যা নন বা করছেন না তা কেন দেখাতে হবে!

পাল্টা প্রশ্ন ছুঁড়েতন বিপাশা - , ‘আপনি স্বাভাবিক জীবনে যা পরতে পারেন না, সেটা কীভাবে পর্দায় পরছেন?’

২০ বছর পর মুখ খুললেন বিপাশা বসু

 বিনোদন ডেস্ক 
২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:৪০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বলিউডে ২০ বছর পূর্ণ হলো ‘শ্যামবর্ণা সুন্দরী’ বিপাশা বসুর।  ২০০১ সালের ২১ সেপ্টেম্বর ‘আজনবি’ ছবি দিয়ে বলিউডে অভিষেক ঘটে বাঙালি এই অভিনেত্রীর।

রূপালি পর্দায় ২০ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে বিপাশা বসুর সাক্ষাৎকার নিয়েছে টাইমস অব ইন্ডিয়া।

যেখানে তিনি প্রকাশ করেছেন, ২০ বছর ধরে হৃদয়ে পুষে রাখা চাপা কষ্ট।  ৪২ বছর বয়সি এ নায়িকা জানালেন, গায়ের রং আর সব নায়িকার মতো ফর্সা না হওয়ায় অনেক কথাই শুনতে হয়েছে তাকে। একটা সময় ছিল যখন তাকে সন্ধ্যার পর ঘরের বাইরেও যেতে দেওয়া হতো না। এতে নাকি তিনি আরও কালো হয়ে যাবেন!

বলিউডে অভিষেকের পর গায়ের রঙ নিয়ে লোকজনের অহেতুক পরামর্শ শুনেছেন, নানাভাবেই হেনস্তার শিকার হয়েছেন বলে জানান বিপাশা।   

বিপাশা বলেন, এটা তখনকার কথা, যখন আমি আমার প্রথম হেয়ার-স্টাইলিস্ট কৌশলের সঙ্গে দেখা করি। সেও আমাকে নায়িকা হওয়ার ‘নিয়ম’ শিখিয়েছিল। সে বলল, জনসম্মুখে না গিয়ে আমি যেন আড়ালে থাকি।’

সুইজারল্যান্ডে ‘আজনবি’র শুটিংয়ের এক ঘটনা রোমন্থন করেন বিপাশা। 

বলেন, আমি আইস টি খাচ্ছিলাম।  এ সময় আমার হেয়ারস্টাইলিস্ট এসে বলে, ‘সবাই ভাবছেন যে আপনি হুইস্কি পান করছেন।’ তারপর সে আমাকে পরামর্শ দেয়, আমি যেন চা বা জুস কাপে নিয়ে খাই। আরেক দিন একটা ব্যাকলেস ব্লাউজ পরে থাকায় আমাকে বলা হয়, ‘অভিনেত্রীরা কেবল পর্দায় এমন পোশাক পরেন, বাস্তবে না।’

বিপাশা জানান, শুরুর দিকে এসব পরামর্শ চুপচাপ মেনে নিলেও পরে এসব স্রেফ ভণ্ডামি মনে হয় তার কাছে। তিনি যা নন বা করছেন না তা কেন দেখাতে হবে! 

পাল্টা প্রশ্ন ছুঁড়েতন বিপাশা - , ‘আপনি স্বাভাবিক জীবনে যা পরতে পারেন না, সেটা কীভাবে পর্দায় পরছেন?’
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন