পুরুষ দিবসে যা বললেন অভিনেত্রী শ্রীলেখা
jugantor
পুরুষ দিবসে যা বললেন অভিনেত্রী শ্রীলেখা

  বিনোদন ডেস্ক  

১৯ নভেম্বর ২০২১, ২২:৪৯:১৫  |  অনলাইন সংস্করণ

শ্রীলেখা মিত্র

বিশ্ব পুরুষ দিবসে টালিডউ অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র জানিয়েছেন তিনি পুরুষ বিদ্বেষী নন। তিনি বলেন, ৩৬৪ দিনই তো পুরুষ ‘দি’ বস! মাত্র একটি দিন নারীদের জন্য। কেবল ওই দিনটাই নারী ‘দি’ বস।আমার পুরুষ বিদ্বেষ নেই। নারীবাদীও নই। তাই নারী-পুরুষ ভেদাভেদে একেবারেই বিশ্বাসী নই।

শুক্রবার কলকাতার প্রভাবশালী সংবাদ মাধ্যম আনন্দাবাজার পত্রিকাকে এক সাক্ষৎকারে তিনি এসব কথা বলেন।

শ্রীলেখা বলেন, লিঙ্গভেদের ঊর্ধ্বে যে দিন সমাজ উঠতে পারবে, সে দিন সকলের একটাই পরিচিতি হবে। আমরা মানুষ। আমি সে দিন খুব খুশি হব। সে দিন থেকে আর এমন বিশেষ দিবস পালনের প্রয়োজনও পড়বে না।

টালিউডের এ জনপ্রিয় অভিনেত্রী বলেন, আমরা এখনো পুরুষতান্ত্রিক সমাজের বাসিন্দা। এই ধরনের সমাজের ছত্রছায়ায় বেড়ে ওঠার কুফল কী জানেন? পুরুষের দৃষ্টিভঙ্গি দিয়ে একজন নারী আর একজন নারীকে বিচার করে থাকেন। কটাক্ষ করেন পোশাক নিয়ে, আচার ব্যবহার নিয়ে, বয়স নিয়ে। তারা বুঝতেও পারেন না যে, আসলে তারাও প্রকারান্তরে পুরুষতন্ত্রের শিকার। পুরুষদের মতো করে নিজেরই সমলিঙ্গকে দেখছেন। অবচেতনে সমর্থন করছেন পুরুষতন্ত্রের চিন্তাভাবনাকে।

এ ক্ষেত্রে আমার সঙ্গে কুকুর নিয়ে সম্প্রতি ঘটে যাওয়া ঘটনার উদাহরণ টেনে তিনি বলেন, আমার যদি তারকা বা নামজাদা স্বামী থাকতেন, তাহলে কিন্তু অন্য রকম ব্যবহার পেতাম। একজন বিবাহ-বিচ্ছিন্ন নারী জিতে যাবেন সব বিষয়ে? স্বাধীনভাবে চলবেন, কথা বলবেন? গণমাধ্যম কেন তাকে সমর্থন জানাবে? কেউ মানতে পারেন না। ফলে, আবাসনের প্রতিবেশী নারীরা নির্দ্বিধায় আমার গায়ে হাত তুলতে পারেন। কেউ তার প্রতিবাদ করেন না।

পুরুষ দিবসে যা বললেন অভিনেত্রী শ্রীলেখা

 বিনোদন ডেস্ক 
১৯ নভেম্বর ২০২১, ১০:৪৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
শ্রীলেখা মিত্র
শ্রীলেখা মিত্র। ফাইল ছবি

বিশ্ব পুরুষ দিবসে টালিডউ অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র জানিয়েছেন তিনি পুরুষ বিদ্বেষী নন। তিনি বলেন, ৩৬৪ দিনই তো পুরুষ ‘দি’ বস! মাত্র একটি দিন নারীদের জন্য। কেবল ওই দিনটাই নারী ‘দি’ বস।আমার পুরুষ বিদ্বেষ নেই। নারীবাদীও নই। তাই নারী-পুরুষ ভেদাভেদে একেবারেই বিশ্বাসী নই। 

শুক্রবার কলকাতার প্রভাবশালী সংবাদ মাধ্যম আনন্দাবাজার পত্রিকাকে এক সাক্ষৎকারে তিনি এসব কথা বলেন। 

শ্রীলেখা বলেন, লিঙ্গভেদের ঊর্ধ্বে যে দিন সমাজ উঠতে পারবে, সে দিন সকলের একটাই পরিচিতি হবে। আমরা মানুষ। আমি সে দিন খুব খুশি হব। সে দিন থেকে আর এমন বিশেষ দিবস পালনের প্রয়োজনও পড়বে না।

টালিউডের এ জনপ্রিয় অভিনেত্রী বলেন, আমরা এখনো পুরুষতান্ত্রিক সমাজের বাসিন্দা। এই ধরনের সমাজের ছত্রছায়ায় বেড়ে ওঠার কুফল কী জানেন? পুরুষের দৃষ্টিভঙ্গি দিয়ে একজন নারী আর একজন নারীকে বিচার করে থাকেন। কটাক্ষ করেন পোশাক নিয়ে, আচার ব্যবহার নিয়ে, বয়স নিয়ে। তারা বুঝতেও পারেন না যে, আসলে তারাও প্রকারান্তরে পুরুষতন্ত্রের শিকার। পুরুষদের মতো করে নিজেরই সমলিঙ্গকে দেখছেন। অবচেতনে সমর্থন করছেন পুরুষতন্ত্রের চিন্তাভাবনাকে।

এ ক্ষেত্রে আমার সঙ্গে কুকুর নিয়ে সম্প্রতি ঘটে যাওয়া ঘটনার উদাহরণ টেনে তিনি বলেন, আমার যদি তারকা বা নামজাদা স্বামী থাকতেন, তাহলে কিন্তু অন্য রকম ব্যবহার পেতাম। একজন বিবাহ-বিচ্ছিন্ন নারী জিতে যাবেন সব বিষয়ে? স্বাধীনভাবে চলবেন, কথা বলবেন? গণমাধ্যম কেন তাকে সমর্থন জানাবে? কেউ মানতে পারেন না। ফলে, আবাসনের প্রতিবেশী নারীরা নির্দ্বিধায় আমার গায়ে হাত তুলতে পারেন। কেউ তার প্রতিবাদ করেন না।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন