নিকের থেকে দূরে থাকা কষ্টের: প্রিয়াঙ্কা
jugantor
নিকের থেকে দূরে থাকা কষ্টের: প্রিয়াঙ্কা

  বিনোদন ডেস্ক  

০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ২০:২৫:১৫  |  অনলাইন সংস্করণ

কিছুদিন আগে প্রিয়াঙ্কা তার নাম থেকে স্বামী নিকের ‘জোনাস’ পদবি মুছে ফেলেন। এরপরই প্রিয়াঙ্কা-নিক দম্পতির বিবাহবিচ্ছেদের গুঞ্জন শুরু হয়। যদিও পরে জানা গেছে, এসব সত্য নয়।

কিছুদিন আগে এক সাক্ষাৎকারে প্রিয়াঙ্কা জানিয়েছেন, নিকের কাছ থেকে দূরে থাকা তার জন্য কষ্টের।

প্রিয়াঙ্কা আর নিক পয়লা ডিসেম্বর তাদের তৃতীয় বিবাহবার্ষিকী উদযাপন করলেন।

প্রিয়াঙ্কা চোপড়া দীর্ঘদিন ধরে লন্ডনে ওয়েবসিরিজ ‘সিটাডেল’-এর শুটিংয়ে ব্যস্ত ছিলেন। সে সময় তার পাশে ছিলেন না স্বামী নিক জোনাস। এই সময়টা নাকি প্রিয়াঙ্কার জন্য খুব কষ্টের ছিল।

প্রিয়াঙ্কার ভাষায়, আমার কাছে সময়টা বেশ কঠিন ছিল। পুরো এক বছর নিজের বাড়ি থেকে দূরে থাকা খুবই মুশকিল। পরিস্থিতি এমন ছিল যে নিজের পরিবারের সঙ্গে দেখা করার জন্যও আপনি কোথাও যেতে পারবেন না। আমার মা, ভাই ভারতে ছিল। আমার স্বামী ছিল আমেরিকায়। আর আমি ছিলাম যুক্তরাজ্যে। ওই সময় কেউই কিছু বুঝে উঠতে পারছিলাম না। এ ছাড়া আসা-যাওয়ায় ভয়ও ছিল। কারণ যদি কারও কিছু হয়ে যায়। কিন্তু সৃষ্টিকর্তার কৃপায় আমরা সবাই ঠিক আছি।

নিক স্বামী হিসেবে কেমন, জবাবে সাবেক এই বিশ্বসুন্দরী জানান, তিনি লন্ডনে থাকার সময় নিক দেখা করার জন্য সব ছেড়ে চলে আসত। নিক এত দূর থেকে ছুটে যেত শুধু তার সঙ্গে ডিনার করার জন্য। তারপর আবার ফিরে যেত।

প্রিয়াঙ্কা বলেন, আসলে ও মানুষ হিসেবে দুর্দান্ত। আমি মনে করি, আমাদের সবার একজনের প্রতি আরেকজনের এভাবে খেয়াল রাখা উচিত।

নিকের থেকে দূরে থাকা কষ্টের: প্রিয়াঙ্কা

 বিনোদন ডেস্ক 
০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ০৮:২৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কিছুদিন আগে প্রিয়াঙ্কা তার নাম থেকে স্বামী নিকের ‘জোনাস’ পদবি মুছে ফেলেন। এরপরই প্রিয়াঙ্কা-নিক দম্পতির বিবাহবিচ্ছেদের গুঞ্জন শুরু হয়। যদিও পরে জানা গেছে, এসব সত্য নয়।

কিছুদিন আগে এক সাক্ষাৎকারে প্রিয়াঙ্কা জানিয়েছেন, নিকের কাছ থেকে দূরে থাকা তার জন্য কষ্টের।

প্রিয়াঙ্কা আর নিক পয়লা ডিসেম্বর তাদের তৃতীয় বিবাহবার্ষিকী উদযাপন করলেন। 

প্রিয়াঙ্কা চোপড়া দীর্ঘদিন ধরে লন্ডনে ওয়েবসিরিজ ‘সিটাডেল’-এর শুটিংয়ে ব্যস্ত ছিলেন। সে সময় তার পাশে ছিলেন না স্বামী নিক জোনাস। এই সময়টা নাকি প্রিয়াঙ্কার জন্য খুব কষ্টের ছিল। 

প্রিয়াঙ্কার ভাষায়, আমার কাছে সময়টা বেশ কঠিন ছিল। পুরো এক বছর নিজের বাড়ি থেকে দূরে থাকা খুবই মুশকিল। পরিস্থিতি এমন ছিল যে নিজের পরিবারের সঙ্গে দেখা করার জন্যও আপনি কোথাও যেতে পারবেন না। আমার মা, ভাই ভারতে ছিল। আমার স্বামী ছিল আমেরিকায়। আর আমি ছিলাম যুক্তরাজ্যে। ওই সময় কেউই কিছু বুঝে উঠতে পারছিলাম না। এ ছাড়া আসা-যাওয়ায় ভয়ও ছিল। কারণ যদি কারও কিছু হয়ে যায়। কিন্তু সৃষ্টিকর্তার কৃপায় আমরা সবাই ঠিক আছি।

নিক স্বামী হিসেবে কেমন, জবাবে সাবেক এই বিশ্বসুন্দরী জানান, তিনি লন্ডনে থাকার সময় নিক দেখা করার জন্য সব ছেড়ে চলে আসত। নিক এত দূর থেকে ছুটে যেত শুধু তার সঙ্গে ডিনার করার জন্য। তারপর আবার ফিরে যেত।

প্রিয়াঙ্কা বলেন, আসলে ও মানুষ হিসেবে দুর্দান্ত। আমি মনে করি, আমাদের সবার একজনের প্রতি আরেকজনের এভাবে খেয়াল রাখা উচিত।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন