‘জ্যাককে’ দেখে অঝোরে কাঁদলেন টাইটানিক নায়িকা
jugantor
‘জ্যাককে’ দেখে অঝোরে কাঁদলেন টাইটানিক নায়িকা

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৫ ডিসেম্বর ২০২১, ১৯:৪৬:১৮  |  অনলাইন সংস্করণ

টাইটানিকের ‘জ্যাক’ লিওনার্দো ডি ক্যাপ্রিওর সঙ্গে ‘রোজ’ কেট উইন্সলেটের বন্ধুত্ব নিয়ে নতুন করে বলার কিছু নেই। অস্কারজয়ী দুই অভিনয়শিল্পীর বন্ধুত্বে সময় কিংবা দূরত্ব বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি। এবার প্রিয় বন্ধু লিওনার্দোকে দেখা কান্না থামাতে পারেননি কেট। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন শনিবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, করোনা মহামারির কারণে দীর্ঘদিন বন্ধুর লিওনার্দোর সঙ্গে দেখাসাক্ষাৎ নেই কেটের। দীর্ঘ তিন বছর পর লস অ্যাঞ্জেলসে প্রিয় বন্ধুর সঙ্গে দেখা হওয়ায় তাই কান্নায় ভেঙে পড়েন কেট।

ব্রিটিশ গণমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানকে কেট বলেন, আমি কান্না থামাতে পারছিলাম না। আমি তাকে আমার জীবনের অর্ধেক সময় ধরে চিনি! এমন নয় যে আমি নিউইয়র্ক ছিলাম আর সে লন্ডনে। আমাদের ডিনারে কিংবা কফিশপে দেখা হওয়ার সুযোগ ছিল। আমরা আমাদের দেশ ছাড়তে পারিনি। বিশ্বব্যাপী অনেক বন্ধুত্বের মতো আমরাও করোনার কারণে একে অপরকে ভীষণ মিস করেছি।

১৯৯৭ সালে ব্লকবাস্টার সিনেমা টাইটানিকে প্রথমবারের মতো জুটি বাঁধেন লিওনার্দো ও কেট। এরপর তাদের ২০০৮ সালে রেভোলুশনারি রোড সিনেমায় স্বামী-স্ত্রীর চরিত্রে দেখা যায়।

টাইটানিকে অভিনয়ের সময় কেটের বয়স ছিল ২১ বছর, লিওনার্দোর বয়স ছিল ২২ বছর। এখন কেটের বয়স ৪৬ আর লিওনার্দোর বয়স ৪৭ বছর। এই মধ্যবয়সে এসেও তাদের বন্ধুত্ব অটুট।

এ ব্যাপারে কেট বলেন, সে আমার বন্ধু, সত্যিকারের ঘনিষ্ঠ বন্ধু। আমাদের বন্ধুত্ব আজীবনের।

‘জ্যাককে’ দেখে অঝোরে কাঁদলেন টাইটানিক নায়িকা

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৭:৪৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

টাইটানিকের ‘জ্যাক’  লিওনার্দো ডি ক্যাপ্রিওর সঙ্গে ‘রোজ’ কেট উইন্সলেটের বন্ধুত্ব নিয়ে নতুন করে বলার কিছু নেই। অস্কারজয়ী দুই অভিনয়শিল্পীর বন্ধুত্বে সময় কিংবা দূরত্ব বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি। এবার প্রিয় বন্ধু লিওনার্দোকে দেখা কান্না থামাতে পারেননি কেট। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন শনিবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে। 

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, করোনা মহামারির কারণে দীর্ঘদিন বন্ধুর লিওনার্দোর সঙ্গে দেখাসাক্ষাৎ নেই কেটের। দীর্ঘ তিন বছর পর লস অ্যাঞ্জেলসে প্রিয় বন্ধুর সঙ্গে দেখা হওয়ায় তাই কান্নায় ভেঙে পড়েন কেট। 

ব্রিটিশ গণমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানকে কেট বলেন, আমি কান্না থামাতে পারছিলাম না। আমি তাকে আমার জীবনের অর্ধেক সময় ধরে চিনি! এমন নয় যে আমি নিউইয়র্ক ছিলাম আর সে লন্ডনে। আমাদের ডিনারে কিংবা কফিশপে দেখা হওয়ার সুযোগ ছিল। আমরা আমাদের দেশ ছাড়তে পারিনি। বিশ্বব্যাপী অনেক বন্ধুত্বের মতো আমরাও করোনার কারণে একে অপরকে ভীষণ মিস করেছি। 

১৯৯৭ সালে ব্লকবাস্টার সিনেমা টাইটানিকে প্রথমবারের মতো জুটি বাঁধেন লিওনার্দো ও কেট। এরপর তাদের ২০০৮ সালে রেভোলুশনারি রোড সিনেমায় স্বামী-স্ত্রীর চরিত্রে দেখা যায়। 

টাইটানিকে অভিনয়ের সময় কেটের বয়স ছিল ২১ বছর, লিওনার্দোর বয়স ছিল ২২ বছর। এখন কেটের বয়স ৪৬ আর লিওনার্দোর বয়স ৪৭ বছর। এই মধ্যবয়সে এসেও তাদের বন্ধুত্ব অটুট।

এ ব্যাপারে কেট বলেন, সে আমার বন্ধু, সত্যিকারের ঘনিষ্ঠ বন্ধু। আমাদের  বন্ধুত্ব আজীবনের। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন