না চাইলেও নির্বাচনে থাকতে হচ্ছে পরীমনিকে
jugantor
না চাইলেও নির্বাচনে থাকতে হচ্ছে পরীমনিকে

  বিনোদন ডেস্ক  

১৭ জানুয়ারি ২০২২, ১৩:৩১:৫০  |  অনলাইন সংস্করণ

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে সদস্য পদে প্রার্থী হয়েছিলেন পরীমনি। কাঞ্চন-নিপুণ পরিষদ থেকে মনোনয়ন জমা দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু হঠাৎ নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন ঢাকাই সিনেমার আলোচিত এই নায়িকা।

কারণ হিসেবে জানিয়েছিলেন, অনাগত সন্তানের জন্য কোনো ঝুঁকি নিতে চান না। নির্বাচনের আগেই ভারতে যেতে চান চিকিৎসার্থে।

কিন্তু কোনো কারণই ধোপে টিকল না। নির্বাচনে অংশ নিতেই হচ্ছে ঢাকাই ছবির এই আলোচিত অভিনেত্রীকে। তিনি না থাকলেও ব্যালট পেপারে তার নাম ঠিকই থাকছে।

কারণ শনিবার বেলা দুইটা পর্যন্ত মনোনয়ন প্রত্যাহারের সময়সীমা ছিল। এই সময়ের মধ্যে মনোনয়ন প্রত্যাহারের আবেদন করেনি পরীমনি। বিকালে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন।

বিষয়টি নিয়ে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন পরিচালনার দায়িত্বে থাকা কমিশনার অভিনেতা পীরজাদা হারুন বলেছেন, এখন আর প্রার্থিতা প্রত্যাহার করার সুযোগ নেই। পরীমনি চাইলে নির্বাচনে অংশগ্রহণ নাও করতে পারেন তবে ব্যালট ব্যাপারে নাম থাকবে।

রোববার বিকালে প্রকাশিত মনোনয়নপ্রাপ্ত প্রার্থীদের তালিকায় পরীমনির নাম রয়েছে।

৪৪ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন, তাদের প্রত্যেককেই দেওয়া হয়েছে নির্বাচনে অংশ নেওয়ার অনুমতি।

এর আগে শনিবার দুপুরে সাংবাদিকদের পরীমনি বলেছিলেন, তার অনাগত সন্তানের জন্মের আগে তিনি কোনো ধরনের ঝুঁকি নিতে চান না। চিকিৎসক তাকে সম্পূর্ণ বিশ্রামে থাকতে বলেছেন। তার স্বামী রাজও চায় না পরী এ অবস্থায় নির্বাচনে অংশ নিক। তাই নির্বাচন না করাটাই তার জন্য উত্তম।

বিধি অনুযায়ী পরীমনিকে নির্বাচনে অংশ নিতেই হবে বলে জানিয়েছেন অভিনেতা সাইমন সাদিক।

তিনি বলেন, পরীমনি যখন আমাকে ফোন দিয়ে বলেন যে, তিনি অসুস্থ, তাই তাকে কলকাতা যেতে হবে চিকিৎসার জন্য। সে জন্য এ নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াতে চান। তখনই আমি শিল্পী সমিতির নির্বাচন কমিশনারের কাছে এসে বলি; কিন্তু তখন আর সময় ছিল না প্রত্যাহার করার। তাই প্রত্যাহার হয়নি।

প্রসঙ্গত, এবারের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে দুটি প্যানেল। একটিতে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে থাকছেন যথাক্রমে বরেণ্য চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন ও নায়িকা নিপুণ। অন্যটিতে আছেন গত দুই মেয়াদে দায়িত্বে থাকা মিশা সওদাগর ও জায়েদ খান।

গত মঙ্গলবার রাতে ইলিয়াস কাঞ্চন-নিপুণ প্যানেলে কার্যকরী সদস্য পদে প্রার্থী হিসেবে সই করেন পরীমনি।

না চাইলেও নির্বাচনে থাকতে হচ্ছে পরীমনিকে

 বিনোদন ডেস্ক 
১৭ জানুয়ারি ২০২২, ০১:৩১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে সদস্য পদে প্রার্থী হয়েছিলেন পরীমনি। কাঞ্চন-নিপুণ পরিষদ থেকে মনোনয়ন জমা দিয়েছিলেন তিনি।  কিন্তু হঠাৎ নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন ঢাকাই সিনেমার আলোচিত এই নায়িকা। 

কারণ হিসেবে জানিয়েছিলেন, অনাগত সন্তানের জন্য কোনো ঝুঁকি নিতে চান না। নির্বাচনের আগেই ভারতে যেতে চান চিকিৎসার্থে।

কিন্তু কোনো কারণই ধোপে টিকল না। নির্বাচনে অংশ নিতেই হচ্ছে ঢাকাই ছবির এই আলোচিত অভিনেত্রীকে। তিনি না থাকলেও ব্যালট পেপারে তার নাম ঠিকই থাকছে।  

কারণ শনিবার বেলা দুইটা পর্যন্ত মনোনয়ন প্রত্যাহারের সময়সীমা ছিল। এই সময়ের মধ্যে মনোনয়ন প্রত্যাহারের আবেদন করেনি পরীমনি।  বিকালে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন।

বিষয়টি নিয়ে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন পরিচালনার দায়িত্বে থাকা কমিশনার অভিনেতা পীরজাদা হারুন বলেছেন, এখন আর প্রার্থিতা প্রত্যাহার করার সুযোগ নেই। পরীমনি চাইলে নির্বাচনে অংশগ্রহণ নাও করতে পারেন তবে ব্যালট ব্যাপারে নাম থাকবে।

রোববার বিকালে প্রকাশিত মনোনয়নপ্রাপ্ত প্রার্থীদের তালিকায় পরীমনির নাম রয়েছে। 

৪৪ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন, তাদের প্রত্যেককেই দেওয়া হয়েছে নির্বাচনে অংশ নেওয়ার অনুমতি।

এর আগে শনিবার দুপুরে সাংবাদিকদের পরীমনি বলেছিলেন, তার অনাগত সন্তানের জন্মের আগে তিনি কোনো ধরনের ঝুঁকি নিতে চান না। চিকিৎসক তাকে সম্পূর্ণ বিশ্রামে থাকতে বলেছেন।  তার স্বামী রাজও চায় না পরী এ অবস্থায় নির্বাচনে অংশ নিক। তাই নির্বাচন না করাটাই তার জন্য উত্তম। 

বিধি অনুযায়ী পরীমনিকে নির্বাচনে অংশ নিতেই হবে বলে জানিয়েছেন অভিনেতা সাইমন সাদিক। 

তিনি বলেন, পরীমনি যখন আমাকে ফোন দিয়ে বলেন যে, তিনি অসুস্থ, তাই তাকে কলকাতা যেতে হবে চিকিৎসার জন্য। সে জন্য এ নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াতে চান। তখনই আমি শিল্পী সমিতির নির্বাচন কমিশনারের কাছে এসে বলি; কিন্তু তখন আর সময় ছিল না প্রত্যাহার করার। তাই প্রত্যাহার হয়নি।

প্রসঙ্গত, এবারের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে দুটি প্যানেল। একটিতে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে থাকছেন যথাক্রমে বরেণ্য চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন ও নায়িকা নিপুণ। অন্যটিতে আছেন গত দুই মেয়াদে দায়িত্বে থাকা মিশা সওদাগর ও জায়েদ খান।

গত মঙ্গলবার রাতে ইলিয়াস কাঞ্চন-নিপুণ প্যানেলে কার্যকরী সদস্য পদে প্রার্থী হিসেবে সই করেন পরীমনি।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন