নায়িকা শিমু হত্যাকাণ্ডে নোবেলকে যে প্রশ্ন করতে চান তার বোন
jugantor
নায়িকা শিমু হত্যাকাণ্ডে নোবেলকে যে প্রশ্ন করতে চান তার বোন

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৮ জানুয়ারি ২০২২, ১৩:৪৯:৫৭  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকাই ছবির নায়িকা রাইমা ইসলাম শিমু হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে তার স্বামী নোবেল ও গাড়িচালক ফরহাদকে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে শিমু হত্যার দায় শিকার করেছেন তার স্বামী সাখাওয়াত আলী নোবেল।

এ কথা জানতে পেরে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন শিমুর ভাইবোনেরা। বিষয়টি তারা ভাবতেই পারছেন না। কেন তাদের বোনকে এভাবে নৃশংসভাবে হত্যা করলেন নোবেল, সে প্রশ্ন রাখতে চান শিমুর বোন ফাতিমা নিশা।

মঙ্গলবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে নিহত ফাতিমা নিশা বলেন, আমার বোনের কোনো শত্রু ছিল না। ও নিজেও কখনও বলেনি যে ওর কোনো শত্রু আছে। নোবেলের সঙ্গে তার ১৮ বছরের সংসার। তারা প্রেম করে বিয়ে করেছেন। তবে নোবেল কেন এ কাজ করতে যাবেন? কী অপরাধ ছিল আমার বোনের? আপনারা লাশের ছবি দেখেছেন কিনা জানি না? এত নৃশংসভাবে মানুষ-মানুষকে খুন করতে পারে!

মামলা করবেন কিনা প্রশ্নে শিমুর ভাই শহিদুল ইসলাম খোকন বলেন, আমরা ওসির সঙ্গে আলোচনা করে মামলা করব।

সোমবার দুপুরে কেরানীগঞ্জের হজরতপুর ব্রিজের কাছে আলিয়াপুর এলাকায় রাস্তার পাশে পড়ে থাকা বস্তা দেখে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেন।

পরে পুলিশ গিয়ে নারীর লাশ উদ্ধার করে। পরে সেটি নায়িকা শিমুর লাশ বলে শনাক্ত হয়। বর্তমানে রাজধানীর স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (মিটফোর্ড)তার মরদেহ রয়েছে ।

কেরানীগঞ্জ থানার ওসি মো. আবু সালাম মিয়া জানান, লাশ বস্তায় ভরে রাস্তার পাশে ফেলে রাখা হয়েছিল। শিমুকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

স্বামী ও দুই সন্তানকে নিয়ে রাজধানীর গ্রিনরোড এলাকার বাসায় থাকতেন নায়িকা শিমু। তিনি নিখোঁজ জানিয়ে সোমবার কলাবাগান থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন তার স্বামী নোবেল।

এ তথ্য দিয়ে নিউমার্কেট জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার শরীফ মোহাম্মদ ফারুকুজ্জামান বলেন, জিডিতে নোবেল বলেছিলেন, মাওয়ায় শুটিংয়ের কথা বলে রোববার সকালে বাসা থেকে বেরিয়ে আর ফেরেননি তার স্ত্রী।

প্রসঙ্গত, দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে অভিনয়ের সঙ্গে জড়িত ছিলেন শিমু। ৫০টিরও বেশি সিনেমায় অভিনয় করেন তিনি। শুধু রূপালি পর্দায় নয়; ছোট পর্দায়ও শিমুর পদাচরণ ছিল। বহু নাটকে দেখা গেছে তাকে।

মৌসুমি, শাবনূর, পূর্ণিমাদের মতো জনপ্রিয় অভিনেত্রী না হলেও শিমু অভিনয় করেছেন জনপ্রিয় সব অভিনেতার বিপরীতে।

চিত্রনায়ক রিয়াজ, অমিত হাসান, বাপ্পারাজ, জাহিদ হাসান, মোশারফ করিম, শাকিব খানের বিপরীতে স্ক্রিন শেয়ার করেন এ নায়িকা৷

১৯৯৮ সালে কাজী হায়াৎ পরিচালিত ‘বর্তমান’ সিনেমা দিয়ে ঢাকাই ছবিতে অভিষেক হয় রাইমা ইসলাম শিমুর।

নায়িকা শিমু হত্যাকাণ্ডে নোবেলকে যে প্রশ্ন করতে চান তার বোন

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৮ জানুয়ারি ২০২২, ০১:৪৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকাই ছবির নায়িকা রাইমা ইসলাম শিমু হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে তার স্বামী নোবেল ও গাড়িচালক ফরহাদকে আটক করেছে পুলিশ। 

পুলিশ জানিয়েছে, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে শিমু হত্যার দায় শিকার করেছেন তার স্বামী সাখাওয়াত আলী নোবেল। 

এ কথা জানতে পেরে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন শিমুর ভাইবোনেরা।  বিষয়টি তারা ভাবতেই পারছেন না। কেন তাদের বোনকে এভাবে নৃশংসভাবে হত্যা করলেন নোবেল, সে প্রশ্ন রাখতে চান শিমুর বোন ফাতিমা নিশা।

মঙ্গলবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে নিহত ফাতিমা নিশা বলেন, আমার বোনের কোনো শত্রু ছিল না। ও নিজেও কখনও বলেনি যে ওর কোনো শত্রু আছে। নোবেলের সঙ্গে তার ১৮ বছরের সংসার। তারা প্রেম করে বিয়ে করেছেন। তবে নোবেল কেন এ কাজ করতে যাবেন? কী অপরাধ ছিল আমার বোনের? আপনারা লাশের ছবি দেখেছেন কিনা জানি না? এত নৃশংসভাবে মানুষ-মানুষকে খুন করতে পারে! 

মামলা করবেন কিনা প্রশ্নে শিমুর ভাই শহিদুল ইসলাম খোকন বলেন, আমরা ওসির সঙ্গে আলোচনা করে মামলা করব। 

সোমবার দুপুরে কেরানীগঞ্জের হজরতপুর ব্রিজের কাছে আলিয়াপুর এলাকায় রাস্তার পাশে পড়ে থাকা বস্তা দেখে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেন।

পরে পুলিশ গিয়ে নারীর লাশ উদ্ধার করে। পরে সেটি নায়িকা শিমুর লাশ বলে শনাক্ত হয়। বর্তমানে রাজধানীর স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (মিটফোর্ড)তার মরদেহ রয়েছে । 

কেরানীগঞ্জ থানার ওসি মো. আবু সালাম মিয়া জানান, লাশ বস্তায় ভরে রাস্তার পাশে ফেলে রাখা হয়েছিল। শিমুকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। 

স্বামী ও দুই সন্তানকে নিয়ে রাজধানীর গ্রিনরোড এলাকার বাসায় থাকতেন নায়িকা শিমু। তিনি নিখোঁজ জানিয়ে সোমবার কলাবাগান থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন তার স্বামী নোবেল।

এ তথ্য দিয়ে নিউমার্কেট জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার শরীফ মোহাম্মদ ফারুকুজ্জামান বলেন, জিডিতে নোবেল বলেছিলেন, মাওয়ায় শুটিংয়ের কথা বলে রোববার সকালে বাসা থেকে বেরিয়ে আর ফেরেননি তার স্ত্রী। 

প্রসঙ্গত, দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে অভিনয়ের সঙ্গে জড়িত ছিলেন শিমু। ৫০টিরও বেশি সিনেমায় অভিনয় করেন তিনি। শুধু রূপালি পর্দায় নয়; ছোট পর্দায়ও শিমুর পদাচরণ ছিল। বহু নাটকে দেখা গেছে তাকে।

মৌসুমি, শাবনূর, পূর্ণিমাদের মতো জনপ্রিয় অভিনেত্রী না হলেও শিমু অভিনয় করেছেন জনপ্রিয় সব অভিনেতার বিপরীতে। 

চিত্রনায়ক রিয়াজ, অমিত হাসান, বাপ্পারাজ, জাহিদ হাসান, মোশারফ করিম, শাকিব খানের বিপরীতে স্ক্রিন শেয়ার করেন এ নায়িকা৷

১৯৯৮ সালে কাজী হায়াৎ পরিচালিত ‘বর্তমান’ সিনেমা দিয়ে ঢাকাই ছবিতে অভিষেক হয় রাইমা ইসলাম শিমুর।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : অভিনেত্রী শিমু হত্যা