নিপুণকে মা ডাকার কারণ জানালেন সীমান্ত
jugantor
নিপুণকে মা ডাকার কারণ জানালেন সীমান্ত

  বিনোদন প্রতিবেদক  

১৮ জানুয়ারি ২০২২, ২০:১৪:৫১  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ১৭তম নির্বাচন ২৮ জানুয়ারি। ইলিয়াস কাঞ্চন-নিপুণ প্যানেল থেকে কার্যকরী পরিষদের সদস্য পদে নির্বাচন করছেন অভিনেতা সীমান্ত আহমেদ। নিপুণ আক্তারকে তিনি মা বলে সম্বোধন করেন কেন তার কারণ জানিয়েছেন এই অভিনেতা। একই সঙ্গে ভোটারদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে সীমান্ত বলেন, যাদের দিয়ে চলচ্চিত্রের উন্নয়ন হবে, আপনারা তাদেরই নির্বাচিত করুন।

নিপুণকে মা ডাকা প্রসঙ্গে সীমান্ত বলেন, আমার মা বেঁচে নেই। নিপুণ আপু আমার বড়বোনের মতো। আর বড়বোন তো মায়ের সমান। তিনি আমাকে অনেক ভালোবাসেন, স্নেহ করেন। এজন্যই আমি তাকে মা বলে সম্বোধন করি।

শিল্পী সমিতির নির্বাচন নিয়ে তিনি বলেন, আমি একটা কথাই বলতে চাই, সিনেমা না থাকলে আমাদের কারও কোনো মূল্য নেই। সিনেমার স্বার্থেই আমাদের এক হতে হবে। এ জায়গায় কোনো দ্বিধাদ্বন্দ্ব থাকলে চলবে না। এককভাবে সামনে এগোনো সম্ভব না। সবাইকে সঙ্গে নিয়েই সামনে এগিয়ে যেতে হবে। ভোটারদের উদ্দেশে বলব- আপনারা বুঝেশুনে ভোট দেবেন। আপনারা অবশ্যই জানেন সিনেমার স্বার্থে কাদের দরকার।

সীমান্ত আরও বলেন, আমার অভিনয়ের জন্যই মানুষ আমাকে ভালোবাসেন। আমার মা বলতেন, মানুষের ভালোবাসা আল্লাহর দান। এটা আল্লাহ সবাইকে দান করেন না।

এবারের শিল্পী সমিতির নির্বাচনে সভাপতি পদে অভিনেতা মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক পদে চিত্রনায়ক জায়েদ খান একই প্যানেল থেকে নির্বাচন করছেন। অন্যদিকে সভাপতি পদে ইলিয়াস কাঞ্চন ও সাধারণ সম্পাদক পদে চিত্রনায়িকা নিপুণ আক্তারের একটি প্যানেল নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে।

নিপুণকে মা ডাকার কারণ জানালেন সীমান্ত

 বিনোদন প্রতিবেদক 
১৮ জানুয়ারি ২০২২, ০৮:১৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ১৭তম নির্বাচন ২৮ জানুয়ারি। ইলিয়াস কাঞ্চন-নিপুণ প্যানেল থেকে কার্যকরী পরিষদের সদস্য পদে নির্বাচন করছেন অভিনেতা সীমান্ত আহমেদ। নিপুণ আক্তারকে তিনি মা বলে সম্বোধন করেন কেন তার কারণ জানিয়েছেন এই অভিনেতা। একই সঙ্গে ভোটারদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে সীমান্ত বলেন, যাদের দিয়ে চলচ্চিত্রের উন্নয়ন হবে, আপনারা তাদেরই নির্বাচিত করুন।
 
নিপুণকে মা ডাকা প্রসঙ্গে সীমান্ত বলেন, আমার মা বেঁচে নেই। নিপুণ আপু আমার বড়বোনের মতো। আর বড়বোন তো মায়ের সমান। তিনি আমাকে অনেক ভালোবাসেন, স্নেহ করেন। এজন্যই আমি তাকে মা বলে সম্বোধন করি।
 
শিল্পী সমিতির নির্বাচন নিয়ে তিনি বলেন, আমি একটা কথাই বলতে চাই, সিনেমা না থাকলে আমাদের কারও কোনো মূল্য নেই। সিনেমার স্বার্থেই আমাদের এক হতে হবে। এ জায়গায় কোনো দ্বিধাদ্বন্দ্ব থাকলে চলবে না। এককভাবে সামনে এগোনো সম্ভব না। সবাইকে সঙ্গে নিয়েই সামনে এগিয়ে যেতে হবে। ভোটারদের উদ্দেশে বলব- আপনারা বুঝেশুনে ভোট দেবেন। আপনারা অবশ্যই জানেন সিনেমার স্বার্থে কাদের দরকার।

সীমান্ত আরও বলেন, আমার অভিনয়ের জন্যই মানুষ আমাকে ভালোবাসেন। আমার মা বলতেন, মানুষের ভালোবাসা আল্লাহর দান। এটা আল্লাহ সবাইকে দান করেন না।

এবারের শিল্পী সমিতির নির্বাচনে সভাপতি পদে অভিনেতা মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক পদে চিত্রনায়ক জায়েদ খান একই প্যানেল থেকে নির্বাচন করছেন। অন্যদিকে সভাপতি পদে ইলিয়াস কাঞ্চন ও সাধারণ সম্পাদক পদে চিত্রনায়িকা নিপুণ আক্তারের একটি প্যানেল নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন