দুপুরেই হাসপাতালে নেয়া হয় অভিনেত্রী তাজিনকে

  যুগান্তর রিপোর্ট ২২ মে ২০১৮, ২১:২০:৫৬ | অনলাইন সংস্করণ

তাজিন আহমেদ। ফাইল ছবি

হৃদযন্দ্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মঙ্গলবার না ফেরার দেশে চলে গেলেন টিভি পর্দার একসময়ের জনপ্রিয় অভিনেত্রী তাজিন আহমেদ। (ইন্নালিল্লাহি ... রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৪৩ বছর। তিনি মা’সহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

তাজিনের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সকালের দিকে হার্ট অ্যাটাক করলে তাকে দ্রুত রাজধানীর উত্তরার চীন-জাপান মৈত্রী হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানকার ডাক্তাররা অপারগ হলে এরপর দুপুর ২টা ৩০ মিনিটে এ অভিনেত্রীকে নেয়া হয় উত্তরার রিজেন্ট হাসপাতালে। এ হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে থাকা অবস্থায় বিকাল ৪টা ৩০ মিনিটে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

তার মৃত্যুর খবরে শোকের ছায়া নেমে আসে মিডিয়া পাড়ায়। বিশেষ করে নাট্যাঙ্গনের তার সহকর্মীরা শুটিং বন্ধ রেখে তাকে শেষবারের মতো দেখতে হাসপাতালে ছুটে যান। এ সময় হাসপাতালে উপস্থিত ছিলেন চিত্রনায়ক রিয়াজ, অভিনেতা রওনক হাসান, নির্মাতা বদরুল আনাম সৌদ, সকাল আহমেদ, অভিনেত্রী জেনীসহ অনেকেই।

জানা গেছে, যখন এ অভিনেত্রীর হার্ট অ্যাটাক হয় তখন বাসায় কেবল একজন মেকাপম্যান ছিলেন। এ মেকাপম্যানই সর্বদা তাজিনের সঙ্গেই থাকতেন। ওই মেকাপম্যানই তাজিনকে উত্তরার রিজেন্ট হাসপাতালে নিয়ে যান। হাসপাতালে নেয়ার পর তার অবস্থা খুবই মুমূর্ষু বলে জানান ডাক্তার। এরপরই রিজেন্ট হাসাপাতালে নিয়ে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়। শেষ পর্যন্ত ডাক্তাররা তার হার্ট চালু করতে শেষ চেষ্টা হিসেবে ইলেকট্রিক শকও দেন। কিন্তু তারপরও ফেরা হলো না এ অভিনেত্রীর। নিতে হলো চির বিদায়।

১৯৭৫ সালের ৩০ জুলাই নোয়াখালীতে জন্মগ্রহণ করেন তাজিন আহমেদ। তিনি বেড়ে উঠেছেন পাবনা জেলায়। ঢাকার ইডেন কলেজ থেকে পড়াশোনা শেষ করেছেন এ অভিনেত্রী। ম্যানেজমেন্টে স্নাতকোত্তর করেছেন তিনি। দিলারা ডলি রচিত ও শেখ নিয়ামত আলী পরিচালিত ‘শেষ দেখা শেষ নয়’ নাটকে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে তার অভিনয়যাত্রা শুরু হয়েছিল। নাটকটি ১৯৯৬ সালে বিটিভিতে প্রচার হয়। এরপর তিনি অসংখ্য নাটক-টেলিছবি দর্শকদের উপহার দিয়েছেন। হুমায়ূন আহমেদের নাটক ‘নীলচুড়ি’তে অভিনয় করেও বেশ আলোচিত হন। তার সর্বশেষ অভিনীত ধারাবাহিক নাটক ‘বিদেশি পাড়া’। তবে দীর্ঘদিন ধরে তিনি মিডিয়া থেকে দূরে ছিলেন।

তিনি দীর্ঘদিন থিয়েটারেও অভিনয় করেছেন। ‘নাট্যজন’ থিয়েটারের হয়ে বেশকিছু নাটকে তিনি অভিনয় করেন। এরপর ‘আরণ্যক’ নাট্যদলের হয়ে ‘ময়ূর সিংহাসন’ নাটকে কাজ করেছিলেন। এতে তিনি বলাকা চরিত্রে অভিনয় করেন। তার সর্বশেষ অভিনীত মঞ্চনাটক এটি।

অভিনয়ের বাইরে লেখালেখির কাজেও যুক্ত ছিলেন তাজিন। লিখেছেন একাধিক নাটক। আর নিয়মিত মিডিয়ায় সময় দিতে না পারলেও উপস্থাপনায় ছিলেন বেশ দাপুটে। এনটিভিতে প্রচারিত ‘টিফিনের ফাঁকে’ অনুষ্ঠানে টানা ১০ বছর উপস্থাপনা করেন তিনি। একাত্তর টিভিতেও ‘একাত্তরের সকালে’ হাজির হয়েছেন তিনি।

তাজিন আহমেদ রাজনৈতিক সংগঠন ‘বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী গণতান্ত্রিক আন্দোলন (এনডিএম)’-এ যোগ দিয়েছিলেন। দলটির কেন্দ্রীয় কমিটির বিভাগীয় সম্পাদক (সাংস্কৃতিক) পদে দায়িত্বপালন করেছেন তিনি।

দীর্ঘদিন ধরেই ঢাকায় একা বসবাস করে আসছেন। স্বামীর সঙ্গে বিচ্ছেদের পর তার মেকাপ আর্টিস্টই তাকে দেখাশোনা করতেন। মূলত বিটিভিযুগীয় অভিনেত্রী ছিলেন তাজিন আহমেদ। ওই সময়ে বিটিভির দর্শকদের কাছে তুমুল জনপ্রিয় একটি নাম হয়ে উঠেন তিনি।

জাহিদ হাসান, আজিজুল হাকিম, আজাদ আবুল কালাম, তৌকীর আহমেদ, টনি ডায়েসদের সঙ্গে জুটি বেঁধে নিয়মিতই একের পর এক নাটকে অভিনয় করতেন। শুধু অভিনয়ে নয়, মডেলিং করেও নাম কুড়িয়েছিলেন তিনি। ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে সাংবাদিকতার সঙ্গেও জড়িত ছিলেন এ অভিনেত্রী।

 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত