হিন্দি ভাষা বিতর্কে এবার মুখ খুললেন অক্ষয়
jugantor
হিন্দি ভাষা বিতর্কে এবার মুখ খুললেন অক্ষয়

  বিনোদন ডেস্ক  

২৩ মে ২০২২, ১০:২৮:৫১  |  অনলাইন সংস্করণ

বলিউড বনাম দক্ষিণী ইন্ডাস্ট্রির এ বিভাজন মোটেই ভালো লাগছে না অভিনেতা অক্ষয় কুমারের।

‘হিন্দি বিতর্কে’ উত্তাল বলিউড এবং দক্ষিণী ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি। হিন্দি রাষ্ট্রভাষা কিনা, তা নিয়ে বিতর্কে জড়িয়েছিলেন অজয় দেবগন আর কানাড়া অভিনেতা কিচ্চা সুদীপ। এ বিষয়ে এবার মুখ খুললেন অভিনেতা অক্ষয় কুমার। দুই ইন্ডাস্ট্রির মধ্যেই এ রকম বিভাজন মোটেই ভালো লাগছে না তার।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে দেওয়া সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে এ বিষয় অভিনেতা জানিয়েছেন, এ ভাগাভাগি আমার অপছন্দের। কেউ যখন দক্ষিণী ইন্ডাস্ট্রি বা উত্তরের ইন্ডাস্ট্রি বলে, আমার খুব খারাপ লাগে। আমার মনে হয় আমরা একটাই ইন্ডাস্ট্রি। আমাদের বুঝতে হবে, এভাবেই ব্রিটিশরা এসে আমাদের ভাগ করে দিয়ে গিয়েছিল। কিন্তু আমরা তা থেকে শিক্ষা নিইনি। আমরা এখনও বুঝতে পারছি না। যে দিন বুঝতে শিখব যে আমরা সবাই একই ইন্ডাস্ট্রির অংশ, সে দিন অনেক ভালো কাজ করতে পারব।

হিন্দি ছাড়া অন্যান্য ভাষার অনেক ছবি ভারতজুড়ে প্রচুর ব্যবসা করেছে। এর মধ্যে রয়েছে ‘কেজিএফ চ্যাপ্টার ২’, ‘আরআরআ’ ও ‘পুষ্প দ্য রাইস’। এর পরই অভিনেতা অজয় দেবগণ কানাড়া অভিনেতা কিচ্চা সুদীপের হিন্দি ও কানাড়া ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি এবং ভাষা সম্পর্কে মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় টুইট করেছেন।

দক্ষিণী তারকা কিচ্চা সুদীপ, ‘কেজিএফ ২’-এর ব্যাপক সাফল্যের পর সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে বলেছেন, হিন্দি আর আমাদের রাষ্ট্রীয় ভাষা নেই। সুদীপের এই কথা হজম করতে পারেননি বলিউডের 'সিংহম'।

টুইটারের দেয়ালে হিন্দিতে অজয় প্রশ্ন রাখেন— যদি হিন্দি সত্যি রাষ্ট্রীয় ভাষা না হয়, তবে সুদীপ কেন নিজের ছবি হিন্দিতে ডাবিং করে রিলিজ করেন। অজয় লেখেন— কিচ্চা সুদীপ ভাই, যদি তোমার মতানুসারে হিন্দি আমাদের রাষ্ট্রীয় ভাষা না হয়, তা হলে তুমি কেন তোমার মাতৃভাষায় তৈরি ছবি হিন্দিতে ডাবিং করে রিলিজ কর? হিন্দি আমার মাতৃভাষা এবং আমাদের রাষ্ট্রীয় ভাষা, সেটি থাকবেই।

অজয়ের টুইটের জবাবও দিয়েছেন সুদীপ। জানান, যে প্রেক্ষাপটে তিনি এই কথা বলেছেন তা একদম ভিন্ন। হয়তো অজয় তাকে ভুল বুঝেছেন। কেন ওই বক্তব্য রেখেছেন তিনি, তা সামনাসামনি দেখা হলে বিস্তারিত জানাবেন। কোনো রকম তর্ক করা বা বিতর্ককে উসকে দেওয়ার কোনো ইচ্ছা তার নেই, জানান কিচ্চা সুদীপ। এই থেকেই ভাষা বিতর্কে উত্তাল দুই ইন্ডাস্ট্রি।

হিন্দি ভাষা বিতর্কে এবার মুখ খুললেন অক্ষয়

 বিনোদন ডেস্ক 
২৩ মে ২০২২, ১০:২৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বলিউড বনাম দক্ষিণী ইন্ডাস্ট্রির এ বিভাজন মোটেই ভালো লাগছে না অভিনেতা অক্ষয় কুমারের।

‘হিন্দি বিতর্কে’ উত্তাল বলিউড এবং দক্ষিণী ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি। হিন্দি রাষ্ট্রভাষা কিনা, তা নিয়ে বিতর্কে জড়িয়েছিলেন অজয় দেবগন আর কানাড়া অভিনেতা কিচ্চা সুদীপ। এ বিষয়ে এবার মুখ খুললেন অভিনেতা অক্ষয় কুমার। দুই ইন্ডাস্ট্রির মধ্যেই এ রকম বিভাজন মোটেই ভালো লাগছে না তার। 

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে দেওয়া সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে এ বিষয় অভিনেতা জানিয়েছেন, এ ভাগাভাগি আমার অপছন্দের। কেউ যখন দক্ষিণী ইন্ডাস্ট্রি বা উত্তরের ইন্ডাস্ট্রি বলে, আমার খুব খারাপ লাগে। আমার মনে হয় আমরা একটাই ইন্ডাস্ট্রি। আমাদের বুঝতে হবে, এভাবেই ব্রিটিশরা এসে আমাদের ভাগ করে দিয়ে গিয়েছিল। কিন্তু আমরা তা থেকে শিক্ষা নিইনি। আমরা এখনও বুঝতে পারছি না। যে দিন বুঝতে শিখব যে আমরা সবাই একই ইন্ডাস্ট্রির অংশ, সে দিন অনেক ভালো কাজ করতে পারব।

হিন্দি ছাড়া অন্যান্য ভাষার অনেক ছবি ভারতজুড়ে প্রচুর ব্যবসা করেছে। এর মধ্যে রয়েছে ‘কেজিএফ চ্যাপ্টার ২’, ‘আরআরআ’ ও ‘পুষ্প দ্য রাইস’। এর পরই অভিনেতা অজয় দেবগণ কানাড়া অভিনেতা কিচ্চা সুদীপের হিন্দি ও কানাড়া ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি এবং ভাষা সম্পর্কে মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় টুইট করেছেন। 

দক্ষিণী তারকা কিচ্চা সুদীপ, ‘কেজিএফ ২’-এর ব্যাপক সাফল্যের পর সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে বলেছেন, হিন্দি আর আমাদের রাষ্ট্রীয় ভাষা নেই। সুদীপের এই কথা হজম করতে পারেননি বলিউডের 'সিংহম'।

টুইটারের দেয়ালে হিন্দিতে অজয় প্রশ্ন রাখেন— যদি হিন্দি সত্যি রাষ্ট্রীয় ভাষা না হয়, তবে সুদীপ কেন নিজের ছবি হিন্দিতে ডাবিং করে রিলিজ করেন। অজয় লেখেন— কিচ্চা সুদীপ ভাই, যদি তোমার মতানুসারে হিন্দি আমাদের রাষ্ট্রীয় ভাষা না হয়, তা হলে তুমি কেন তোমার মাতৃভাষায় তৈরি ছবি হিন্দিতে ডাবিং করে রিলিজ কর? হিন্দি আমার মাতৃভাষা এবং আমাদের রাষ্ট্রীয় ভাষা, সেটি থাকবেই। 

অজয়ের টুইটের জবাবও দিয়েছেন সুদীপ। জানান, যে প্রেক্ষাপটে তিনি এই কথা বলেছেন তা একদম ভিন্ন। হয়তো অজয় তাকে ভুল বুঝেছেন। কেন ওই বক্তব্য রেখেছেন তিনি, তা সামনাসামনি দেখা হলে বিস্তারিত জানাবেন। কোনো রকম তর্ক করা বা বিতর্ককে উসকে দেওয়ার কোনো ইচ্ছা তার নেই, জানান কিচ্চা সুদীপ। এই থেকেই ভাষা বিতর্কে উত্তাল দুই ইন্ডাস্ট্রি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন