২১৫ কোটি রুপি প্রতারণার অভিযোগ, চার্জশিটে জ্যাকুলিনের নাম
jugantor
২১৫ কোটি রুপি প্রতারণার অভিযোগ, চার্জশিটে জ্যাকুলিনের নাম

  বিনোদন ডেস্ক  

১৭ আগস্ট ২০২২, ২২:৪৪:৩৮  |  অনলাইন সংস্করণ

২১৫ কোটি রুপি প্রতারণার অভিযোগ, চার্জশিটে জ্যাকুলিনের নাম

২১৫ কোটি টাকার দুর্নীতির মামলায় অবশেষে অভিযুক্ত হলেন বলিউড অভিনেত্রী জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজ। আগে সন্দেহভাজনের তালিকায় থাকলেও এবার অভিযোগপত্রে জুড়ে গেলো তার নাম।

আর্থিক প্রতারণা ও মুদ্রা পাচারের দায়ে গত বছর সুকেশ চন্দ্রশেখর গ্রেফতার হন। ভারতের আর্থিক দুর্নীতি-সংক্রান্ত তদন্তকারী সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের (ইডি) তদন্তে নামার পর ভারতের অর্থনৈতিক গোয়েন্দা সংস্থা সুকেশের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ ওঠে বলিউড অভিনেত্রী জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজের।

কয়েক দফা জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি হন শ্রীলঙ্কান অভিনেত্রী। এবার মামলার অভিযোগপত্র দিয়েছে ইডি। সেখানে ২১৫ কোটি রুপি আর্থিক প্রতারণার দায়ে অভিযুক্ত করা হয়েছে জ্যাকুলিনকে। বুধবার (১৭ আগস্ট) এ অভিযোগপত্রে জমা দেওয়া হয় আদালতে।

ইডি সূত্রের দাবি, তদন্তে স্পষ্ট বোঝা গেছে জ্যাকুলিন জানতেন সুকেশ একজন দুর্নীতিবাজ। জেনে বুঝেই এ দুর্নীতিবাজের টাকায় যথেষ্ট সুযোগ-সুবিধা ভোগ করেছেন তিনি। সুকেশের কাছ থেকে অনেকবার বহুমূল্য ‘উপহার’ পেয়েছেন অভিনেত্রী। ইডির জেরায় তা স্বীকারও করেছেন জ্যাকুলিন।

ইডি সূত্রে খবর, সুকেশের কাছ থেকে যেসব উপহার পেয়েছেন জ্যাকুলিন সব মিলে তার মূল্য ১০ কোটি টাকার কম নয়। এর মধ্যে দামি গাড়ি যেমন রয়েছে, আরও রয়েছে ৫২ লাখ টাকা দামের ঘোড়া, ৯ লাখ টাকার পারশিয়ান বিড়াল।

উপহারের তালিকায় রয়েছে গুচি, শ্যানেলের একাধিক ডিজ়াইনার ব্যাগ, গুচির জিমওয়্যার, লুই ভিতোঁর জুতা, হিরের দুজোড়া কানের দুল, মূল্যবান পাথর বসানো ব্রেসলেট।

প্রতারণার দায়ে জ্যাকুলিনের নামে অভিযোগপত্র দেওয়া হলেও জানা গেছে, জ্যাকুলিনকে এখনই গ্রেফতার করা হবে না। তবে তার বিদেশে যাতায়াত নিষিদ্ধ হবে। আগেও অভিনেত্রীর ওপর ভারত ছাড়াতে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া ছিল। তবে কয়েক মাস আগে আদালতের অনুমতি নিয়ে শুটিং করতে একবার বিদেশ গিয়েছিলেন তিনি।


২১৫ কোটি রুপি প্রতারণার অভিযোগ, চার্জশিটে জ্যাকুলিনের নাম

 বিনোদন ডেস্ক 
১৭ আগস্ট ২০২২, ১০:৪৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
২১৫ কোটি রুপি প্রতারণার অভিযোগ, চার্জশিটে জ্যাকুলিনের নাম
ছবি: সংগৃহীত

২১৫ কোটি টাকার দুর্নীতির মামলায় অবশেষে অভিযুক্ত হলেন বলিউড অভিনেত্রী জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজ।  আগে সন্দেহভাজনের তালিকায় থাকলেও এবার অভিযোগপত্রে জুড়ে গেলো তার নাম।  

আর্থিক প্রতারণা ও মুদ্রা পাচারের দায়ে গত বছর সুকেশ চন্দ্রশেখর গ্রেফতার হন। ভারতের আর্থিক দুর্নীতি-সংক্রান্ত তদন্তকারী সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের (ইডি) তদন্তে নামার পর ভারতের অর্থনৈতিক গোয়েন্দা সংস্থা সুকেশের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ ওঠে বলিউড অভিনেত্রী জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজের। 

কয়েক দফা জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি হন শ্রীলঙ্কান অভিনেত্রী। এবার মামলার অভিযোগপত্র দিয়েছে ইডি। সেখানে ২১৫ কোটি রুপি আর্থিক প্রতারণার দায়ে অভিযুক্ত করা হয়েছে জ্যাকুলিনকে।  বুধবার (১৭ আগস্ট) এ অভিযোগপত্রে জমা দেওয়া হয় আদালতে।

ইডি সূত্রের দাবি, তদন্তে স্পষ্ট বোঝা গেছে জ্যাকুলিন জানতেন সুকেশ একজন দুর্নীতিবাজ। জেনে বুঝেই এ দুর্নীতিবাজের টাকায় যথেষ্ট সুযোগ-সুবিধা ভোগ করেছেন তিনি। সুকেশের কাছ থেকে অনেকবার বহুমূল্য ‘উপহার’ পেয়েছেন অভিনেত্রী। ইডির জেরায় তা স্বীকারও করেছেন জ্যাকুলিন।

ইডি সূত্রে খবর, সুকেশের কাছ থেকে যেসব উপহার পেয়েছেন জ্যাকুলিন সব মিলে তার মূল্য ১০ কোটি টাকার কম নয়। এর মধ্যে দামি গাড়ি যেমন রয়েছে, আরও রয়েছে ৫২ লাখ টাকা দামের ঘোড়া, ৯ লাখ টাকার পারশিয়ান বিড়াল।

উপহারের তালিকায় রয়েছে গুচি, শ্যানেলের একাধিক ডিজ়াইনার ব্যাগ, গুচির জিমওয়্যার, লুই ভিতোঁর জুতা, হিরের দুজোড়া কানের দুল, মূল্যবান পাথর বসানো ব্রেসলেট।

প্রতারণার দায়ে জ্যাকুলিনের নামে অভিযোগপত্র দেওয়া হলেও জানা গেছে, জ্যাকুলিনকে এখনই গ্রেফতার করা হবে না। তবে তার বিদেশে যাতায়াত নিষিদ্ধ হবে। আগেও অভিনেত্রীর ওপর ভারত ছাড়াতে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া ছিল। তবে কয়েক মাস আগে আদালতের অনুমতি নিয়ে শুটিং করতে একবার বিদেশ গিয়েছিলেন তিনি।


 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন