অল্প সময়েই দর্শক আকৃষ্ট করছে ‘শহরবাস’
jugantor
অল্প সময়েই দর্শক আকৃষ্ট করছে ‘শহরবাস’

  বিনোদন প্রতিবেদন  

১০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১:২৮:৩০  |  অনলাইন সংস্করণ

মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়ের শহরবাসের ইতিকথা উপন্যাসের ছায়া অবলম্বনে এনটিভিতে প্রচার শুরু হয়েছে নতুন ধারাবাহিক নাটক ‘শহরবাস’। মাসুম রেজার রচনায় নাটকটি পরিচালনা করছেন আরিফ খান।

প্রচারে আসার অল্প সময়ের মধ্যেই নাটকটি দর্শকের মনোযোগ আকর্ষণে সক্ষম হয়েছে। এটি প্রতি বৃহস্পতি, শুক্র ও শনিবার রাত ৮টা ২০ মিনিটে প্রচার হচ্ছে এনটিভিতে।

এতে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন রওনক হাসান, ডলি জহুর, গোলাম কিবরিয়া তানভীর, তানজিকা আমিন, ইমতিয়াজ বর্ষণ, সানজিদা প্রীতি, নাবিলা ইসলাম, মাজনুন মিজান, শহীদুল আলম সাচ্চু, বিজরী বরকতউল্লাহ, মায়াবি মায়া প্রমুখ।

এই ধারাবাহিকের গল্প মূলত দুই বন্ধু ও তাদের পরিবার কেন্দ্র করে। মা আমেনা, স্ত্রী লাবণী, ভাই রাহীকে নিয়ে এক বন্ধু মোহনের পরিবার। অন্যদিকে বাবা সাইফ, স্ত্রী সন্ধ্যা ও বোন ঝিনুককে নিয়ে অন্য বন্ধু চন্দনের পরিবার। মোহনের পরিবারের সঙ্গে জড়িয়ে আছে তমিজ ও তার স্ত্রী কমলা এবং সুরত আলিও। মোহন, চন্দন, সন্ধ্যা একসঙ্গে পড়াশোনা করত। সেই সময় তাদের মধ্যে একটা বন্ধুত্ব ছাড়াও একটা অন্য সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

মোহন গ্রামে বেড়ে ওঠা ছেলে, শহরে পড়তে আসে। চন্দন শহরে বেড়ে ওঠা। মোহন পড়াশোনা শেষ করে গ্রামেই ফিরে যায়। অনেক সুযোগ-সুবিধা পাওয়া সত্ত্বেও। সেই কারণে কোনো একসময় কোনো এক ঘটনায় চন্দন মোহনকে বলেছিল- তার শহরে বসবাস করার কোনো যোগ্যতা নেই।

এই কথা মোহনকে প্রভাবিত করে শহরে এসে নিজেকে শহরের বসবাস করার যোগ্য প্রমাণ করার। কিন্তু মোহনের মা আমেনা বেগম কোনোভাবেই তার স্বামীর ভিটা ও সম্পত্তি ছেড়ে শহরে বসবাস করতে রাজি নয়। মোহন তার মাকে রাজি করায়, তবে মায়ের বিভিন্ন শর্ত মেনে নিয়ে।

অবশেষে মোহন তার পরিবার নিয়ে শহরে আসে। কিন্তু এটা সহজভাবে নেয় না চন্দন। সেটি মোহনকে বুঝতে না দিলেও তার স্ত্রী সন্ধ্যা বুঝতে পারে। এভাবেই শুরু হয় গল্পের সংঘাত, দ্বন্দ্ব, প্রেম, ভালোবাসা, টানাপোড়েন।

অল্প সময়েই দর্শক আকৃষ্ট করছে ‘শহরবাস’

 বিনোদন প্রতিবেদন 
১০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১:২৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়ের শহরবাসের ইতিকথা উপন্যাসের ছায়া অবলম্বনে এনটিভিতে প্রচার শুরু হয়েছে নতুন ধারাবাহিক নাটক ‘শহরবাস’। মাসুম রেজার রচনায় নাটকটি পরিচালনা করছেন আরিফ খান।

প্রচারে আসার অল্প সময়ের মধ্যেই নাটকটি দর্শকের মনোযোগ আকর্ষণে সক্ষম হয়েছে। এটি প্রতি বৃহস্পতি, শুক্র ও শনিবার রাত ৮টা ২০ মিনিটে প্রচার হচ্ছে এনটিভিতে।

এতে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন রওনক হাসান, ডলি জহুর, গোলাম কিবরিয়া তানভীর, তানজিকা আমিন, ইমতিয়াজ বর্ষণ, সানজিদা প্রীতি, নাবিলা ইসলাম, মাজনুন মিজান, শহীদুল আলম সাচ্চু, বিজরী বরকতউল্লাহ, মায়াবি মায়া প্রমুখ।

এই ধারাবাহিকের গল্প মূলত দুই বন্ধু ও তাদের পরিবার কেন্দ্র করে। মা আমেনা, স্ত্রী লাবণী, ভাই রাহীকে নিয়ে এক বন্ধু মোহনের পরিবার। অন্যদিকে বাবা সাইফ, স্ত্রী সন্ধ্যা ও বোন ঝিনুককে নিয়ে অন্য বন্ধু চন্দনের পরিবার। মোহনের পরিবারের সঙ্গে জড়িয়ে আছে তমিজ ও তার স্ত্রী কমলা এবং সুরত আলিও। মোহন, চন্দন, সন্ধ্যা একসঙ্গে পড়াশোনা করত। সেই সময় তাদের মধ্যে একটা বন্ধুত্ব ছাড়াও একটা অন্য সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

মোহন গ্রামে বেড়ে ওঠা ছেলে, শহরে পড়তে আসে। চন্দন শহরে বেড়ে ওঠা। মোহন পড়াশোনা শেষ করে গ্রামেই ফিরে যায়। অনেক সুযোগ-সুবিধা পাওয়া সত্ত্বেও। সেই কারণে কোনো একসময় কোনো এক ঘটনায় চন্দন মোহনকে বলেছিল- তার শহরে বসবাস করার কোনো যোগ্যতা নেই।

এই কথা মোহনকে প্রভাবিত করে শহরে এসে নিজেকে শহরের বসবাস করার যোগ্য প্রমাণ করার। কিন্তু মোহনের মা আমেনা বেগম কোনোভাবেই তার স্বামীর ভিটা ও সম্পত্তি ছেড়ে শহরে বসবাস করতে রাজি নয়। মোহন তার মাকে রাজি করায়, তবে মায়ের বিভিন্ন শর্ত মেনে নিয়ে।

অবশেষে মোহন তার পরিবার নিয়ে শহরে আসে। কিন্তু এটা সহজভাবে নেয় না চন্দন। সেটি মোহনকে বুঝতে না দিলেও তার স্ত্রী সন্ধ্যা বুঝতে পারে। এভাবেই শুরু হয় গল্পের সংঘাত, দ্বন্দ্ব, প্রেম, ভালোবাসা, টানাপোড়েন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন