অপূর্ব-সাবিলার ‘শুধু তুমিময়’
jugantor
অপূর্ব-সাবিলার ‘শুধু তুমিময়’

  বিনোদন প্রতিবেদন  

৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৩:৫২:৫৫  |  অনলাইন সংস্করণ

মাছরাঙা টেলিভিশনে ৩০ সেপ্টেম্বর রাত ১০টা ৩০ মিনিটে প্রচার হবে নাটক ‘শুধু তুমিময়’। যোবায়েদ আহসানের রচনা ও মাহমুদুর রহমান হিমির পরিচালনায় এতে অভিনয় করেছেন অপূর্ব, সাবিলা নূরসহ অনেকে।

গল্পে দেখা যাবে- অফিসের লিফটে উঠতে গিয়ে ঈশিতার মুখোমুখি হয় হাসান। প্রথম দেখাতেই ঈশিতা যেন জাদুর মতো আকৃষ্ট করে তাকে। ঈশিতা একটি টিভি চ্যানেলের নিউজ প্রেজেন্টার আর হাসান করপোরেট এক্সিকিউটিভ। একই ভবনে অফিস হওয়ায় তাদের মাঝে মাঝেই দেখা হয়। লিফটে কিংবা অফিসের গলির চায়ের দোকানে। দেখা হয়, চোখাচোখি হয়; কিন্তু কখনো কথা হয় না।

লিফট এবং চায়ের দোকানে মজার ঘটনা ঘটতে থাকে। এসব ঘটনার কারণে একজনের প্রতি আরেকজনের আগ্রহ আরও বেড়ে যায়। ঈশিতা চা খেতে নামলেই যেন হাসান খবর পায় সে জন্য নিচে চায়ের দোকানের মালিকের সঙ্গে সুসম্পর্ক তৈরি করে। এ সুযোগে দোকানদার হাসানের কাছ থেকে একটা মোবাইল সেট কিনে নেন। ঈশিতার কাছে হাসানের এই ফোনের কারসাজিটা ধরা পড়ে একদিন। ঈশিতা দোকানদারের কাছ থেকে নাম্বার নিয়ে হাসানকে ফোন দেয়। হাসান সেই মুহূর্তে বিদেশি ডেলিগেট নিয়ে চিটাগং পোর্ট ভিজিটে গেছে। ঈশিতা বলে হাসান যদি তাকে পছন্দ করে তা হলে সেটা যেন তার সামনে এসে বলে। হাসান কথা দেয় ঢাকায় এসে সরাসরি ঈশিতাকে তার ভালোবাসার কথা বলবে। ঈশিতা অপেক্ষায় থাকে।

সেদিনই নিউজ পড়া অবস্থায় ঈশিতার কাছে খবর আসে চট্টগ্রামে এক দুর্ঘটনায় হাসান মারা গেছে। আর ঈশিতা নিজেই হাসানের মৃত্যু সংবাদটা পাঠ করে।

অপূর্ব-সাবিলার ‘শুধু তুমিময়’

 বিনোদন প্রতিবেদন 
৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৩:৫২ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মাছরাঙা টেলিভিশনে ৩০ সেপ্টেম্বর রাত ১০টা ৩০ মিনিটে প্রচার হবে নাটক ‘শুধু তুমিময়’। যোবায়েদ আহসানের রচনা ও মাহমুদুর রহমান হিমির পরিচালনায় এতে অভিনয় করেছেন অপূর্ব, সাবিলা নূরসহ অনেকে।

গল্পে দেখা যাবে- অফিসের লিফটে উঠতে গিয়ে ঈশিতার মুখোমুখি হয় হাসান। প্রথম দেখাতেই ঈশিতা যেন জাদুর মতো আকৃষ্ট করে তাকে। ঈশিতা একটি টিভি চ্যানেলের নিউজ প্রেজেন্টার আর হাসান করপোরেট এক্সিকিউটিভ। একই ভবনে অফিস হওয়ায় তাদের মাঝে মাঝেই দেখা হয়। লিফটে কিংবা অফিসের গলির চায়ের দোকানে। দেখা হয়, চোখাচোখি হয়; কিন্তু কখনো কথা হয় না।

লিফট এবং চায়ের দোকানে মজার ঘটনা ঘটতে থাকে। এসব ঘটনার কারণে একজনের প্রতি আরেকজনের আগ্রহ আরও বেড়ে যায়।  ঈশিতা চা খেতে নামলেই যেন হাসান খবর পায় সে জন্য নিচে চায়ের দোকানের মালিকের সঙ্গে সুসম্পর্ক তৈরি করে। এ সুযোগে দোকানদার হাসানের কাছ থেকে একটা মোবাইল সেট কিনে নেন। ঈশিতার কাছে হাসানের এই ফোনের কারসাজিটা ধরা পড়ে একদিন। ঈশিতা দোকানদারের কাছ থেকে নাম্বার নিয়ে হাসানকে ফোন দেয়। হাসান সেই মুহূর্তে বিদেশি ডেলিগেট নিয়ে চিটাগং পোর্ট ভিজিটে গেছে। ঈশিতা বলে হাসান যদি তাকে পছন্দ করে তা হলে সেটা যেন তার সামনে এসে বলে। হাসান কথা দেয় ঢাকায় এসে সরাসরি ঈশিতাকে তার ভালোবাসার কথা বলবে। ঈশিতা অপেক্ষায় থাকে।

সেদিনই নিউজ পড়া অবস্থায় ঈশিতার কাছে খবর আসে চট্টগ্রামে এক দুর্ঘটনায় হাসান মারা গেছে। আর ঈশিতা নিজেই হাসানের মৃত্যু সংবাদটা পাঠ করে।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন