ইসলামি সংগীতে আবু সুফিয়ানের ১৮ বছর
jugantor
ইসলামি সংগীতে আবু সুফিয়ানের ১৮ বছর

  মুহাম্মদুল্লাহ  

০৭ অক্টোবর ২০২২, ০২:৫৩:৪৩  |  অনলাইন সংস্করণ

ইসলামি সংগীতে আবু সুফিয়ানের ১৮ বছর

দীর্ঘ ১৮ বছর ধরে গানের মাধ্যমে বাংলাভাষী মানুষের কাছে ইসলামের বাণী পৌঁছে দিচ্ছেন ইসলামি সংগীত শিল্পী আবু সুফিয়ান। এছাড়াও সমাজের নানা অসঙ্গতি ও অন্যায়ের বিরুদ্ধেও গান গেয়ে প্রতিবাদ জানান এই শিল্পী।

‘আজকে মানুষ ইসলামি সংস্কৃতি বাদ দিয়ে পশ্চিমা ও বিজাতীয় সংস্কৃতি গ্রহণ করছে। নিজেদের স্বকীয়তা ভুলে যাচ্ছে। অপসংস্কৃতিতে ডুবে বিপথগামী হচ্ছে। মুসলমানদের নিজস্ব পরিচয়, সংস্কৃতি ও সভ্যতা সবই ভুলতে বসেছি আমরা। এই কঠিন সময়ে মুসলমানদেরকে জাগিয়ে তুলতে ও ইসলামের বিলুপ্তপ্রায় সংস্কৃতি ছড়িয়ে দিতেই আমি গান গাই,’ বলছিলেন কণ্ঠশিল্পী আবু সুফিয়ান।

আবু সুফিয়ানের জন্ম মাদারীপুরের কালকিনিতে। মাওলানা আজিজুর রহমানের চার সন্তানের মধ্যে তিনি তৃতীয়। বর্তমানে জাতীয় সাংস্কৃতিক সংগঠন কলরবের (একাংশ) প্রধান পরিচালকের দায়িত্ব পালন করছেন আবু সুফিয়ান। ২০০৪ সালে মরহুম আইনুদ্দীন আল আজাদের হাত ধরে ইসলামি সংগীত জগতে পথচলা শুরু তার।

শিল্পী আবু সুফিয়ান বলেন, আমার স্বপ্ন ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা হলো, যুবকদের জন্য পথ তৈরি করা। যে পথে পরবর্তী প্রজন্ম নির্বিঘ্নে চলতে পারবে। কারণ, যুবকরা যদি সমাজের অসঙ্গতি ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে যায়, ইসলাম প্রচারের দায়িত্ব কাঁধে তুলে নেয়, তাহলে এই সমাজ পরিবর্তন হতে সময় লাগবে না।

তিনি আরো বলেন, মানুষ এখন ইসলামি সংগীতের প্রতি ঝুঁকছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লক্ষ্য করলে দেখা যায়, সাধারণ মানের একটি ইসলামি সংগীতও অসংখ্য মানুষ দেখছে। দর্শকদের হৃদয় স্পর্শ করছে ইসলামি গানগুলো। এটি অবশ্যই আশাজাগানিয়া কথা। কিন্তু সমাজের সর্বস্তরে ইসলামি সংস্কৃতি ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে দিতে যত সংগঠন বা প্রতিষ্ঠান দরকার, তা কিন্তু এখনো তৈরি হয়নি। এক্ষেত্রে আমাদের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে সামনে এগিয়ে যেতে হবে।

শিল্পী আবু সুফিয়ানের একক অডিও অ্যালবাম তিনটি। যৌথ প্রযোজনায় প্রায় ২০০ গান রিলিজ হয়েছে। এছাড়াও ইউটিউবে অসংখ্য জীবনমুখী সংগীত রয়েছে তার। বর্তমানে কলরব টিভি নামে একটি ইউটিউব চ্যানেলে তার লেখা ও সুর করা বেশকিছু গান রিলিজ হয়েছে। যা দর্শকদের মাঝে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে।

আবু সুফিয়ানকে বাংলাদেশে ইসলামি গণজাগরণী শিল্পী হিসেবে মানুষ চেনে। ভক্তদের মাঝে তিনি জাগরণী সংগীতের মাধ্যমেই পরিচিতি লাভ করেছেন। ১৮ বছরে প্রায় ৫ হাজার স্টেইজ শো করেছেন এই শিল্পী।

ইসলামি সংগীতের মাধ্যমে মৃত্যু পর্যন্ত দ্বীনে ইসলামের দাওয়াত পৌঁছে দিতে চান তিনি। পাশাপাশি দেশ ও দেশের মানুষের পক্ষে গান গেয়ে দেশ প্রেমীকদের খাতায় নাম লেখাতে চান আবু সুফিয়ান।

ইসলামি সংগীতে আবু সুফিয়ানের ১৮ বছর

 মুহাম্মদুল্লাহ 
০৭ অক্টোবর ২০২২, ০২:৫৩ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ইসলামি সংগীতে আবু সুফিয়ানের ১৮ বছর
শিল্পী আবু সুফিয়ান।

দীর্ঘ ১৮ বছর ধরে গানের মাধ্যমে বাংলাভাষী মানুষের কাছে ইসলামের বাণী পৌঁছে দিচ্ছেন ইসলামি সংগীত শিল্পী আবু সুফিয়ান। এছাড়াও সমাজের নানা অসঙ্গতি ও অন্যায়ের বিরুদ্ধেও গান গেয়ে প্রতিবাদ জানান এই শিল্পী। 

‘আজকে মানুষ ইসলামি সংস্কৃতি বাদ দিয়ে পশ্চিমা ও বিজাতীয় সংস্কৃতি গ্রহণ করছে। নিজেদের স্বকীয়তা ভুলে যাচ্ছে। অপসংস্কৃতিতে ডুবে বিপথগামী হচ্ছে। মুসলমানদের নিজস্ব পরিচয়, সংস্কৃতি ও সভ্যতা সবই ভুলতে বসেছি আমরা। এই কঠিন সময়ে মুসলমানদেরকে জাগিয়ে তুলতে ও ইসলামের বিলুপ্তপ্রায় সংস্কৃতি ছড়িয়ে দিতেই আমি গান গাই,’ বলছিলেন কণ্ঠশিল্পী আবু সুফিয়ান। 

আবু সুফিয়ানের জন্ম মাদারীপুরের কালকিনিতে। মাওলানা আজিজুর রহমানের চার সন্তানের মধ্যে তিনি তৃতীয়। বর্তমানে জাতীয় সাংস্কৃতিক সংগঠন কলরবের (একাংশ) প্রধান পরিচালকের দায়িত্ব পালন করছেন আবু সুফিয়ান। ২০০৪ সালে মরহুম আইনুদ্দীন আল আজাদের হাত ধরে ইসলামি সংগীত জগতে পথচলা শুরু তার। 

শিল্পী আবু সুফিয়ান বলেন, আমার স্বপ্ন ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা হলো, যুবকদের জন্য পথ তৈরি করা। যে পথে পরবর্তী প্রজন্ম নির্বিঘ্নে চলতে পারবে। কারণ, যুবকরা যদি সমাজের অসঙ্গতি ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে যায়, ইসলাম প্রচারের দায়িত্ব কাঁধে তুলে নেয়, তাহলে এই সমাজ পরিবর্তন হতে সময় লাগবে না। 

তিনি আরো বলেন, মানুষ এখন ইসলামি সংগীতের প্রতি ঝুঁকছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লক্ষ্য করলে দেখা যায়, সাধারণ মানের একটি ইসলামি সংগীতও অসংখ্য মানুষ দেখছে। দর্শকদের হৃদয় স্পর্শ করছে ইসলামি গানগুলো। এটি অবশ্যই আশাজাগানিয়া কথা। কিন্তু সমাজের সর্বস্তরে ইসলামি সংস্কৃতি ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে দিতে যত সংগঠন বা প্রতিষ্ঠান দরকার, তা কিন্তু এখনো তৈরি হয়নি। এক্ষেত্রে আমাদের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে সামনে এগিয়ে যেতে হবে। 

শিল্পী আবু সুফিয়ানের একক অডিও অ্যালবাম তিনটি। যৌথ প্রযোজনায় প্রায় ২০০ গান রিলিজ হয়েছে।  এছাড়াও ইউটিউবে অসংখ্য জীবনমুখী সংগীত রয়েছে তার।  বর্তমানে কলরব টিভি নামে একটি ইউটিউব চ্যানেলে তার লেখা ও সুর করা বেশকিছু গান রিলিজ হয়েছে। যা দর্শকদের মাঝে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। 

আবু সুফিয়ানকে বাংলাদেশে ইসলামি গণজাগরণী শিল্পী হিসেবে মানুষ চেনে। ভক্তদের মাঝে তিনি জাগরণী সংগীতের মাধ্যমেই পরিচিতি লাভ করেছেন। ১৮ বছরে প্রায় ৫ হাজার স্টেইজ শো করেছেন এই শিল্পী। 

ইসলামি সংগীতের মাধ্যমে মৃত্যু পর্যন্ত দ্বীনে ইসলামের দাওয়াত পৌঁছে দিতে চান তিনি। পাশাপাশি দেশ ও দেশের মানুষের পক্ষে গান গেয়ে দেশ প্রেমীকদের খাতায় নাম লেখাতে চান আবু সুফিয়ান।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন