আমাদের দেশে রাজনীতির যে ধারা চলছে সেটা খুব একটা সুবিধার নয়: ইলিয়াস কাঞ্চন

  অনিন্দ্য মামুন ২৪ জুলাই ২০১৮, ১২:৪০ | অনলাইন সংস্করণ

জনপ্রিয় অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্চন
জনপ্রিয় অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্চন

নব্বই দশকের জনপ্রিয় চলচ্চিত্র অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্চন। তিনি শুধু অভিনেতাই নন, ‘নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা)’ সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান। ইলিয়াস কাঞ্চন চলচ্চিত্রে পা রাখেন ১৯৭৭ সালে। ছবির নাম ‘বসুন্ধরা’।

এরপর একের পর এক হিট ছবি দিয়ে দর্শক হৃদয়ে ঠাঁই নিয়েছেন। এখন অভিনয়ে খুব একটা দেখা যায় না তাকে। সামাজিক কর্মকান্ড নিয়েই ব্যস্ত রয়েছেন। বর্তমান ব্যস্ততা ও সমসাময়িক প্রসঙ্গ নিয়ে আজকের ‘হ্যালো...’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি।

* যুগান্তর: সম্প্রতি একটি ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় শুরু করেছেন...

** ইলিয়াস কাঞ্চন: অভিনয় খুব একটা করা হয় না। নাটকে কাছের মানুষদের অনুরোধে কাজ করি। নতুন এ ধারাবাহিকটির নাম ‘সোনালি দিন’। এতে নতুন পুরোনো অনেক মুখই দেখা যাবে। আমার সঙ্গে চম্পাও রয়েছে। রোকেয়া প্রাচী নির্মাণ করছেন নাটকটি।

* যুগান্তর: অভিনয়ে আপনাকে তেমন একটা দেখা যাচ্ছে না কেন?

** ইলিয়াস কাঞ্চন: এখন সময় বদলেছে। ফিল্ম ইন্ডাষ্ট্রি কেমন যেন হয়ে গেছে। একজন শিল্পীকে বেইজ করেই ছবি নির্মিত হচ্ছে। অথচ আগে এমনটি ছিল না। সবাইকে নিয়েই ভাবা হতো। আমি যখন নায়কের ভূমিকায় অভিনয় করেছি তখন তো বছরে শতাধিক ছবি মুক্তি পেতো। এখন ছবির সংখ্যা কমেছে। হলের সংখ্যাও কমেছে। তাই মনে হয় আমাদের অভিনয় নিয়ে ব্যস্ততাও কমেছে। শুরু থেকেই আমি কখনও কারও কাছে অভিনয়ের জন্য ধর্না দেইনি। এখনও দিচ্ছি না।

* যুগান্তর: একসময় আপনি চলচ্চিত্র প্রযোজনাও করেছেন। এখন তো প্রযোজকের বড্ড অভাব...

** ইলিয়াস কাঞ্চন: মাত্র দুটি ছবি প্রযোজনা করেছি আমি। তখন পরিবেশ অন্যরকম ছিল। এতো জটিলতা ছিল না। তখন তো সিনেমা হলের সংখ্যা প্রায় চৌদ্দশ’র মতো ছিল। আর এখন বড় জোর ৩শ।

এ কমসংখ্যক হলও কয়েকভাগে ভাগ হয়ে গেছে। যারা ভাগ করে নিয়ে গেছেন চলচ্চিত্র বানিয়ে তাদের কাছে রিকোয়েস্ট করে রিলিজ দিতে হবে। সেটা পারব না। তাই সিনেমাও প্রযোজনাও করছি না। তবে মাঝে মাঝে মন চায় চলচ্চিত্র বানাই।

* যুগান্তর: ‘নিসচা’র কাজ কেমন চলছে?

** ইলিয়াস কাঞ্চন: এখন তো ‘নিরাপদ সড়ক চাই (নিচসা)’ আন্দোলন নিয়েই আমার সব ব্যস্ততা। এটিই একমাত্র প্রধান কাজ ধরে নিয়ে সামনে হাঁটছি। নিয়মিত ড্রাইভারদের মোটিভেশনাল ট্রেনিং দিচ্ছি।

বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে ছাত্রছাত্রীদের সচেতনতানমূলক প্রোগ্রাম করছি। আমি মনে করি সড়ক দুর্ঘটনার জন্য শুধু চালকরাই দায়ী নন; এর জন্য খারাপ গাড়ি, রাস্তার সমস্যা, আমাদের সচেতনার অভাব - সবকিছুই দায়ী। এগুলো নিয়েই দেশের মানুষকে সচেতন করছি।

* যুগান্তর: আপনি নাকি রাজনীতি আসছেন?

** ইলিয়াস কাঞ্চন: প্রশ্নটি এখন অনেকেই আমাকে করছেন। অনেকে আমাকে অনুরোধও করছেন আমি কেন এমপি ইলেকশন করছি না। তারা মনে করেন , রাজনীতিতে এলে বা আমি এমপি হলে যে কাজটি এখন করছি সেটি আরও ভালোভাবে করতে পারব। কিন্তু আমার কথা হচ্ছে ভিন্ন। আমাদের দেশে রাজনীতির যে ধারা চলছে সেটা খুব একটা সুবিধার নয়।

এখন যদি আমি নিবার্চন করি তাহলে অনেকে বলবে আমি এটার জন্য এতোদিন দৌঁড়েছি। নিসচা নিয়ে কাজ করেছি। আর এখন তো এমপি হলেও এমন কাজ করা সম্ভব নয়। কারণ সর্বদা দলের অনুগত হয়ে থাকতে হবে। তাই বলি এ ধারার রাজনীতি চলতে থাকলে রাজনীতিতে ইলিয়াস কাঞ্চনকে দেখা যাবে না।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected].com

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter