৬ জানুয়ারি: হাসতে নেই মানা

  যুগান্তর ডেস্ক ০৬ জানুয়ারি ২০১৯, ১০:১৬ | অনলাইন সংস্করণ

৬ জানুয়ারি: হাসতে নেই মানা

সময়টা ফেসবুকের। ফেসবুকে খুব সক্রিয় এক গৃহিণী স্ট্যাটাস দিল-

'আজ করল্লা আর লইট্যা শুটকি দিয়ে গরুর মাংসের দো পেয়াজি করেছি...।'

* কর্তা অফিসে বসে লাইক দিল।

কমেন্টস এ তিনি লিখলেন - ওয়াও! লাভ ইউ জানু, অফিস থেকেই তোমার রান্নার সুবাস, খ্যান্ট উয়েট।

* দম্পতির ছেলেঃ ডিসলাইক, আমি বার্গার খামু।

* বান্ধবীঃ এই রেসিপি টা লিখে শেয়ার দে না রে! আমিও রাধঁবো ওর জন্য।

* পাশের বাসার ভাবিঃ লাইক, এন্ড আমাকে এক বাটি দিয়েন তো আপা।

* বউয়ের মাঃ আহারে আমার মেয়টা শশুর বাড়ি গিয়ে কি কষ্টেই না আছে, এখনি চুলো গুতাচ্ছে সবাই তোকে শুধু পোক করে নারে?

* শাশুড়িঃ কি যে রাধোঁ না তোমরা? আমারে এই আইটেম থেকে আনট্যাগ করো, আজ আমি সাগুদানা আর দুধ খাবো।

* ননদ হবু বরকে ট্যাগ করে কমেন্ট করলঃ আমাকে কিন্তু আজকে তুমি চাইনিজে নিয়ে যাবা, ভাবি আজকেও ছাইঁপাশ রাধঁছে।

* দেবর বন্ধুকে ট্যাগ করে লিখলঃ দোস্ত তোর মেসে বুয়ারে চাউল এক পট বাড়ায়া দিতে ক! আমি আইতাছি, দুপুরে খামু।

* দাড়োয়ানঃ ম্যাডাম! দরজা জানলা বন্ধ কইরা রান্ধেন পিলিজ, অলরেডি পাশের ফেলাটের লোকজন গন্ধের চোটে রিপোর্ট বাটনে কিলিক মারছে।

* জরিনা খাতুন’স রেসিপি পেজঃ আপনি আমাদের রেসিপি নিজের নামে চলানোয় আপনাকে আনফ্রেন্ড করতে বাধ্য হলাম।

সব শেষে বুয়া যে কমেন্ট করল সেটা পড়ে সেই গৃহিণী স্ট্যাটাস মুছতে বাধ্য হলোঃ

* বুয়া লিখলঃ ইসটেটাস পরে দিয়েন, আগে শপিং মল থাইকা আইসা রান্না বওয়ান খালাম্মা।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×