১৩ ডিসেম্বর: হাসতে নেই মানা
jugantor
১৩ ডিসেম্বর: হাসতে নেই মানা

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৯:৫২:০৪  |  অনলাইন সংস্করণ

বর্তমানে বিভিন্ন ফুড শপ, রেস্তোরাঁ, শপিং মলে ওয়াইফাই সুবিধা দেয়া হয়। কাস্টমারকে টানতেই এই প্রতিযোগিতায় লিপ্ত হয়েছে ব্যবসায়ীরা।

এমন কি বিরক্তিকর জ্যামে সময় কাটাতে বা প্রয়োজনীয় কাজ সারতে বাসে ওয়াইফাই কানেকশন দেয়া হয়। ঠিক তেমনি এক ফাস্টফুড শপে ওয়াইফাই কানেকশনের সুবিধা দেখে এক যুবক ঢুকল।

ওয়েটারঃ স্যার কী খাবেন? আমাদের আছে বিফ, মাটন আর চিকেন বার্গার, হটডগ সঙ্গে ফ্রেঞ্চ ফ্রাই ফ্রি।

যুবকঃ আচ্ছা! তা না হয় খেলাম, তো আপনাদের ওয়াইফাই পাসওয়ার্ডটা দিন তো দেখি।

ওয়েটারঃ (একটু মন খারাপ করে)আগে কিছু খান।

যুবকঃ (মুচকি হেসে) আচ্ছা একটা বিফ বার্গার দেন।

খাওয়া শেষে যুবক ওয়েটারকে বলল, তো ওয়াইফাই পাসওয়ার্ডটা দিন, প্লিজ।

ওয়েটারঃ আগে কিছু খান।

যুবকঃ (ভ্রু কুঁচকে) খেলামতো! ওকে, একটা কোক দেন।

কোকে চুমুক দিতে দিতে যুবক আবার ওয়াইফাই কানেকশনের পাসওয়ার্ড চাইল।

ওয়েটার এবারও বললঃ আগে কিছু খান।

এবার যুবক গেল খেপে। তার চ্যাঁচামেচিতে শপের মালিক চলে এলেন। যুবকের মেজাজ ঠাণ্ডা করার চেষ্টা করলেন।

মালিকঃ ভাই, কী চান আপনি? যা চাইছেন তাই পাবেন। প্লিজ কুল ডাউন।

যুবকঃ ওয়াইফাই পাসওয়ার্ডটা দিন, প্লিজ।

মালিকঃ ওহ! এই কথা? আগে কিছু খান।

যুবকঃ (প্রচন্ড রেগে) মানে কী? খেতে খেতে ৫০০ টাকার খাবার খেয়ে ফেললাম আর তবু আপনারা বারবার বলছেন আগে কিছু খান? ফাজলামো চলছে? মালিকঃ আরে ভাই আপনি ভুল বুজছেন। আমাদের ওয়াইফাই কানেকশনের পাসওয়ার্ড হচ্ছে - আগে কিছু খান।

১৩ ডিসেম্বর: হাসতে নেই মানা

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৯:৫২ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বর্তমানে বিভিন্ন ফুড শপ, রেস্তোরাঁ, শপিং মলে ওয়াইফাই সুবিধা দেয়া হয়। কাস্টমারকে টানতেই এই প্রতিযোগিতায় লিপ্ত হয়েছে ব্যবসায়ীরা।

এমন কি বিরক্তিকর জ্যামে সময় কাটাতে বা প্রয়োজনীয় কাজ সারতে বাসে ওয়াইফাই কানেকশন দেয়া হয়। ঠিক তেমনি এক ফাস্টফুড শপে ওয়াইফাই কানেকশনের সুবিধা দেখে এক যুবক ঢুকল।

ওয়েটারঃ স্যার কী খাবেন? আমাদের আছে বিফ, মাটন আর চিকেন বার্গার, হটডগ সঙ্গে ফ্রেঞ্চ ফ্রাই ফ্রি।

যুবকঃ আচ্ছা! তা না হয় খেলাম, তো আপনাদের ওয়াইফাই পাসওয়ার্ডটা দিন তো দেখি।

ওয়েটারঃ (একটু মন খারাপ করে)আগে কিছু খান।

যুবকঃ (মুচকি হেসে) আচ্ছা একটা বিফ বার্গার দেন।

খাওয়া শেষে যুবক ওয়েটারকে বলল, তো ওয়াইফাই পাসওয়ার্ডটা দিন, প্লিজ।

ওয়েটারঃ আগে কিছু খান।

যুবকঃ (ভ্রু কুঁচকে) খেলামতো! ওকে, একটা কোক দেন।

কোকে চুমুক দিতে দিতে যুবক আবার ওয়াইফাই কানেকশনের পাসওয়ার্ড চাইল।

ওয়েটার এবারও বললঃ আগে কিছু খান।

এবার যুবক গেল খেপে। তার চ্যাঁচামেচিতে শপের মালিক চলে এলেন। যুবকের মেজাজ ঠাণ্ডা করার চেষ্টা করলেন।

মালিকঃ ভাই, কী চান আপনি? যা চাইছেন তাই পাবেন। প্লিজ কুল ডাউন।

যুবকঃ ওয়াইফাই পাসওয়ার্ডটা দিন, প্লিজ।

মালিকঃ ওহ! এই কথা? আগে কিছু খান।

যুবকঃ (প্রচন্ড রেগে) মানে কী? খেতে খেতে ৫০০ টাকার খাবার খেয়ে ফেললাম আর তবু আপনারা বারবার বলছেন আগে কিছু খান? ফাজলামো চলছে? মালিকঃ আরে ভাই আপনি ভুল বুজছেন। আমাদের ওয়াইফাই কানেকশনের পাসওয়ার্ড হচ্ছে - আগে কিছু খান।