৩০ সেপ্টেম্বর: হাসতে নেই মানা
jugantor
৩০ সেপ্টেম্বর: হাসতে নেই মানা

  যুগান্তর ডেস্ক  

৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫:৫৭:৪২  |  অনলাইন সংস্করণ

জোকস-১

বাবুল রাতের বেলা বাড়ি ফিরছে। রাস্তায় একটা ঢাকনা ছাড়া ম্যানহোল ছিল। অন্ধকারে দেখতে না পাওয়ায় বাবুল সেই ম্যানহোলে পড়ে গেল। তারপর বেশ অনেকক্ষণ চেষ্টা করে নোংরা মাখা গায়ে উপরে উঠে এলো।

উপরে এসে নিজেই নিজেকে বলল, ‘ভাগ্যিস, ঢাকনাটা খোলা ছিল বলে উঠতে পারলাম। না হলে তো সারারাতই ম্যানহোলের ভেতরে কাটাতে হতো।


* জোকস-২

এক ঘটক বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে গেল পাত্রীর বাসায়-
পাত্রী: ছেলে দেখতে কেমন?
ঘটক: পাত্র দেখতে একেবারে বলিউডের সিনেমার হিরোর মতো।
পাত্রী: বলেন কি? কোন সিনেমার হিরোর মতো?
ঘটক: ‘জিরো’ সিনেমার হিরোর মতো।

* জোকস-৩

প্রেমিকা: তুমি আমাকে খুব ভালোবাস, তাই না।
প্রেমিক: হ্যাঁ। সত্যি ভালোবাসি!
প্রেমিকা: সত্যি?
প্রেমিক: সত্যি!
প্রেমিকা: শতভাগ সত্যি?
প্রেমিক: সত্যি নয় তো কী? বিশ্বাস না হলে মলি, পলি, জুলিকে জিজ্ঞেস করে দেখো। ওদেরকেও আমি একই কথা বলেছি।

* জোকস-৪

পরিচিত রেস্টুরেন্টে খাওয়া শেষে খদ্দের ওয়েটারকে ডেকে বলল-
খদ্দের: তোমাদের আগের বাবুর্চিটা মারা গেছে, তাই না?
ওয়েটার: আপনি কী করে জানলেন, স্যার? খাবার কি খারাপ হয়েছে?
খদ্দের: না, খাবার ঠিকই আছে। তবে আগে সাদা চুল পেতাম, ইদানীং কালো চুল পাচ্ছি।

৩০ সেপ্টেম্বর: হাসতে নেই মানা

 যুগান্তর ডেস্ক 
৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫:৫৭ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

 জোকস-১

বাবুল রাতের বেলা বাড়ি ফিরছে। রাস্তায় একটা ঢাকনা ছাড়া ম্যানহোল ছিল। অন্ধকারে দেখতে না পাওয়ায় বাবুল সেই ম্যানহোলে পড়ে গেল। তারপর বেশ অনেকক্ষণ চেষ্টা করে নোংরা মাখা গায়ে উপরে উঠে এলো।

উপরে এসে নিজেই নিজেকে বলল, ‘ভাগ্যিস, ঢাকনাটা খোলা ছিল বলে উঠতে পারলাম। না হলে তো সারারাতই ম্যানহোলের ভেতরে কাটাতে হতো।


* জোকস-২

এক ঘটক বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে গেল পাত্রীর বাসায়-
পাত্রী: ছেলে দেখতে কেমন?
ঘটক: পাত্র দেখতে একেবারে বলিউডের সিনেমার হিরোর মতো।
পাত্রী: বলেন কি? কোন সিনেমার হিরোর মতো?
ঘটক: ‘জিরো’ সিনেমার হিরোর মতো।

* জোকস-৩

প্রেমিকা: তুমি আমাকে খুব ভালোবাস, তাই না।
প্রেমিক: হ্যাঁ। সত্যি ভালোবাসি!
প্রেমিকা: সত্যি?
প্রেমিক: সত্যি!
প্রেমিকা: শতভাগ সত্যি?
প্রেমিক: সত্যি নয় তো কী? বিশ্বাস না হলে মলি, পলি, জুলিকে জিজ্ঞেস করে দেখো। ওদেরকেও আমি একই কথা বলেছি।

* জোকস-৪

পরিচিত রেস্টুরেন্টে খাওয়া শেষে খদ্দের ওয়েটারকে ডেকে বলল-
খদ্দের: তোমাদের আগের বাবুর্চিটা মারা গেছে, তাই না?
ওয়েটার: আপনি কী করে জানলেন, স্যার? খাবার কি খারাপ হয়েছে?
খদ্দের: না, খাবার ঠিকই আছে। তবে আগে সাদা চুল পেতাম, ইদানীং কালো চুল পাচ্ছি।