২১ নভেম্বর: হাসতে নেই মানা
jugantor
২১ নভেম্বর: হাসতে নেই মানা

  স্পোর্টস ডেস্ক  

২১ নভেম্বর ২০২০, ১০:১১:১৮  |  অনলাইন সংস্করণ

* জোকস-১

আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে বাবা-মাসহ সবাই কনেকে বিদায় দিচ্ছে। এ সময় বর ছাড়া সবাই কান্নাকাটি করছে। পাশেই প্রতিবেশী ছোট্ট একটি ছেলে তার বাবাকে জিজ্ঞাসা করলো-
ছেলে: আচ্ছা বাবা, ওই মেয়ের বাবা-মা কাঁদে কেন?
বাবা: তার মেয়েকে এত বড় করেছে, লেখাপড়া শিখিয়ে মানুষ করেছে। এখন বিদায় দিচ্ছে পরের ঘরে। তাই তার মায়ায় কান্নাকাটি করছে।
ছেলে: তা মেয়েটা কাঁদে কেন?
বাবা: মা-বাবাকে ছেড়ে পরের ঘরে চলে যাচ্ছে। তাই সেই মায়ায় কান্নাকাটি করছে।
ছেলে: তাহলে বরটা কাঁদছে না কেন?
বাবা: সবাই শুধু এখন কাঁদছে। আর ছেলেটা কাঁদবে সারাজীবন। সবে বিয়ে করেছে। বউটা নিয়ে ঘরে উঠুক, তারপর থেকে কাঁদবে।

* জোকস-২

রাস্তায় হোঁচট খেয়ে স্ত্রীর ওপরের ঠোঁটে আঘাত লাগায় স্ত্রীকে নিয়ে বল্টু গেছেন চিকিৎসকের কাছে। চিকিৎসক ওষুধ দিয়ে স্ত্রীর ওপরের ঠোঁটে একটি পট্টি মেরে দিয়ে বললেন-
চিকিৎসক: আর কোনো সমস্যা নেই। কয়েকদিনের মধ্যেই ঠিক হয়ে যাবে।
বল্টু : দুই ঠোঁটে পট্টি মেরে দিতে ফি কত দিতে হবে?

* জোকস-৩

চাকরির ইন্টারভিউ দিতে গেছে এক যুবক। প্রশ্নকর্তা তার কাছে জানতে চাইলেন-
প্রশ্নকর্তা: কখন বুঝবেন, আপনার ইনসমনিয়া (ঘুম না-আসা রোগ) গুরুতর হয়ে উঠেছে?
উত্তরদাতা: যখন অফিসের মিটিংয়ে বসেও আপনার ঘুম পাবে না!

২১ নভেম্বর: হাসতে নেই মানা

 স্পোর্টস ডেস্ক 
২১ নভেম্বর ২০২০, ১০:১১ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

* জোকস-১

আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে বাবা-মাসহ সবাই কনেকে বিদায় দিচ্ছে। এ সময় বর ছাড়া সবাই কান্নাকাটি করছে। পাশেই প্রতিবেশী ছোট্ট একটি ছেলে তার বাবাকে জিজ্ঞাসা করলো-
ছেলে: আচ্ছা বাবা, ওই মেয়ের বাবা-মা কাঁদে কেন?
বাবা: তার মেয়েকে এত বড় করেছে, লেখাপড়া শিখিয়ে মানুষ করেছে। এখন বিদায় দিচ্ছে পরের ঘরে। তাই তার মায়ায় কান্নাকাটি করছে।
ছেলে: তা মেয়েটা কাঁদে কেন?
বাবা: মা-বাবাকে ছেড়ে পরের ঘরে চলে যাচ্ছে। তাই সেই মায়ায় কান্নাকাটি করছে।
ছেলে: তাহলে বরটা কাঁদছে না কেন?
বাবা: সবাই শুধু এখন কাঁদছে। আর ছেলেটা কাঁদবে সারাজীবন। সবে বিয়ে করেছে। বউটা নিয়ে ঘরে উঠুক, তারপর থেকে কাঁদবে।

* জোকস-২

রাস্তায় হোঁচট খেয়ে স্ত্রীর ওপরের ঠোঁটে আঘাত লাগায় স্ত্রীকে নিয়ে বল্টু গেছেন চিকিৎসকের কাছে। চিকিৎসক ওষুধ দিয়ে স্ত্রীর ওপরের ঠোঁটে একটি পট্টি মেরে দিয়ে বললেন-
চিকিৎসক: আর কোনো সমস্যা নেই। কয়েকদিনের মধ্যেই ঠিক হয়ে যাবে।
বল্টু : দুই ঠোঁটে পট্টি মেরে দিতে ফি কত দিতে হবে?

* জোকস-৩

চাকরির ইন্টারভিউ দিতে গেছে এক যুবক। প্রশ্নকর্তা তার কাছে জানতে চাইলেন-
প্রশ্নকর্তা: কখন বুঝবেন, আপনার ইনসমনিয়া (ঘুম না-আসা রোগ) গুরুতর হয়ে উঠেছে?
উত্তরদাতা: যখন অফিসের মিটিংয়ে বসেও আপনার ঘুম পাবে না!