১১ জানুয়ারি: হাসতে নেই মানা
jugantor
১১ জানুয়ারি: হাসতে নেই মানা

  যুগান্তর ডেস্ক  

১১ জানুয়ারি ২০২১, ০৯:৪৫:২২  |  অনলাইন সংস্করণ


* জোকস-১

বল্টুর চোখ কালো, নাক লাল আর কপাল ফোলা আরমাটি লাগানো। স্ত্রীর জুতো কিনতে বাজারে গেছে বল্টু।

বল্টু: ভাই, এক জোড়া লেডিস চপ্পল দেন তো। একটু নরম আর তুলতুলে দেখে দেবেন।

দোকানি: জি ভাই, তা আপনার চেহারা দেখেই বোঝা যাচ্ছে। বলতে হবে না। এই জোড়া নেন। এবার থেকে চোখ লাল হবে না। কপালে জাস্ট মাটিই লাগবে।

* জোকস-২

এক রাতে বল্টুর ঘরে চোর ঢুকল। টের পেয়ে বল্টুর বউ বলছে-

বউ: এই তাড়াতাড়ি নিচে এসো।

বল্টু: কেন?

বউ: একটা চোর ঘরে ঢুকেছে। হায় হায়! তোমার জন্য যে কেকটা বানাইছি, সেটা খেয়ে ফেলছে! তাড়াতাড়ি আসো!
বল্টু: এখন আমি কী করব? পুলিশ ডাকব না-কি অ্যাম্বুলেন্স ডাকব?

* জোকস-৩

বল্টুদের বাসার নিচ দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন এক পথচারী। কিছুক্ষণ পর তিনি উঠে এলেন বল্টুদের ড্রয়িং রুমে। কারণ তিনি নিচ দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় বারান্দা থেকে কে যেন তার গায়ে পানি ফেলেছে।

তাই বাবা বল্টুকে ডেকে জিজ্ঞাসা করলেন, ‘তুমি কি ভদ্রলোকের গায়ে বারান্দা থেকে পানি ফেলেছ?’ বল্টু বলল, ‘না বাবা।’ বাবা বললেন, ‘কিন্তু বারান্দায় তুমি ছাড়া আর কেউ ছিল না। তাই না?’

অবশেষে বণ্টুর মা এলেন। তিনি বললেন, ‘বল্টু সোনা, সত্যি কথাটা স্বীকার কর। ভদ্রলোককে সরি বল।’ তখন বল্টু কাঁদ কাঁদ হয়ে বলল, ‘মামনি, সত্যি বলছি আমি পানি ফেলিনি। আমি তো শুধু হিসু করেছিলাম।’

১১ জানুয়ারি: হাসতে নেই মানা

 যুগান্তর ডেস্ক 
১১ জানুয়ারি ২০২১, ০৯:৪৫ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ


* জোকস-১ 

বল্টুর চোখ কালো, নাক লাল আর কপাল ফোলা আর মাটি লাগানো। স্ত্রীর জুতো কিনতে বাজারে গেছে বল্টু। 

বল্টু: ভাই, এক জোড়া লেডিস চপ্পল দেন তো। একটু নরম আর তুলতুলে দেখে দেবেন।

দোকানি: জি ভাই, তা আপনার চেহারা দেখেই বোঝা যাচ্ছে। বলতে হবে না। এই জোড়া নেন। এবার থেকে চোখ লাল হবে না। কপালে জাস্ট মাটিই লাগবে।  

 

* জোকস-২

এক রাতে বল্টুর ঘরে চোর ঢুকল। টের পেয়ে বল্টুর বউ বলছে-

বউ: এই তাড়াতাড়ি নিচে এসো।

বল্টু: কেন?

বউ: একটা চোর ঘরে ঢুকেছে। হায় হায়! তোমার জন্য যে কেকটা বানাইছি, সেটা খেয়ে ফেলছে! তাড়াতাড়ি আসো!
বল্টু: এখন আমি কী করব? পুলিশ ডাকব না-কি অ্যাম্বুলেন্স ডাকব?

* জোকস-৩

বল্টুদের বাসার নিচ দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন এক পথচারী। কিছুক্ষণ পর তিনি উঠে এলেন বল্টুদের ড্রয়িং রুমে। কারণ তিনি নিচ দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় বারান্দা থেকে কে যেন তার গায়ে পানি ফেলেছে।

তাই বাবা বল্টুকে ডেকে জিজ্ঞাসা করলেন, ‘তুমি কি ভদ্রলোকের গায়ে বারান্দা থেকে পানি ফেলেছ?’ বল্টু বলল, ‘না বাবা।’ বাবা বললেন, ‘কিন্তু বারান্দায় তুমি ছাড়া আর কেউ ছিল না। তাই না?’

অবশেষে বণ্টুর মা এলেন। তিনি বললেন, ‘বল্টু সোনা, সত্যি কথাটা স্বীকার কর। ভদ্রলোককে সরি বল।’ তখন বল্টু কাঁদ কাঁদ হয়ে বলল, ‘মামনি, সত্যি বলছি আমি পানি ফেলিনি। আমি তো শুধু হিসু করেছিলাম।’