১৮ ফেব্রুয়ারি: হাসতে নেই মানা
jugantor
১৮ ফেব্রুয়ারি: হাসতে নেই মানা

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০৯:৫১:০৮  |  অনলাইন সংস্করণ

* জোকস-১

বল্টুর বউ: সারক্ষণ তো খাচ্ছ আর ঘুরে বেড়াচ্ছ। কোনো কাজেই আসছ না। ঘরের কোন কাজে আসো তুমি শুনি?

বল্টু: বলো কী? আমি না থাকলে ঘর মোছার গেঞ্জিটা কোথা থেকে আসত শুনি?

* জোকস-২

কামাল তার প্রেমিকা তিশার সাথে ডেটিংয়ে গেছে-
তিশা: আমি আমার পার্সটা ভুলে বাসায় রেখে এসেছি।
কামাল: তাতে সমস্যা কী?
তিশা: কিন্তু এখন আমার দুই হাজার টাকার খুব দরকার।
কামাল: কোনো সমস্যা নেই, আমি আছি না! এই নাও ২০ টাকা। এটা দিয়ে রিকশায় করে বাসায় গিয়ে পার্সটা নিয়ে এসো!

* জোকস-৩

ছেলে: বাবা, তুমি কি কিছু টাকা বাঁচাতে চাও?
বাবা: অবশ্যই চাই।
ছেলে: তাহলে আমাকে একটি বাইক কিনে দাও।
বাবা: কেন?
ছেলে: তাতে জুতার তলা ক্ষয় কম হবে। আমাকে জুতা কিনে দেওয়ার টাকাটা তোমার বেঁচে যাবে।

* জোকস-৪

রাহেল: হ্যাঁ রে, তোর বাড়ির সবাই কি তোর মতো কৃপণ?
রাজিব: ঠিক কৃপণ না, একটু হিসেবি।
রাহেল: কেমন?
রাজিব: যেমন ধর, আমার কাকা গত পরশু বাসের সিটের ওপর একটা কাশির সিরাপ কুড়িয়ে পেলেন। তা এমন দামি ওষুধটা তো নষ্ট করা যায় না, তাই কাল রাতভর উনি বৃষ্টিতে ভিজলেন। আজ সকাল থেকে শুরু হলো কাশি, এখন ওষুধটা কাজে লাগছে।

১৮ ফেব্রুয়ারি: হাসতে নেই মানা

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০৯:৫১ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

* জোকস-১

বল্টুর বউ: সারক্ষণ তো খাচ্ছ আর ঘুরে বেড়াচ্ছ। কোনো কাজেই আসছ না। ঘরের কোন কাজে আসো তুমি শুনি?

বল্টু: বলো কী? আমি না থাকলে ঘর মোছার গেঞ্জিটা কোথা থেকে আসত শুনি?

* জোকস-২

কামাল তার প্রেমিকা তিশার সাথে ডেটিংয়ে গেছে-
তিশা: আমি আমার পার্সটা ভুলে বাসায় রেখে এসেছি।
কামাল: তাতে সমস্যা কী?
তিশা: কিন্তু এখন আমার দুই হাজার টাকার খুব দরকার।
কামাল: কোনো সমস্যা নেই, আমি আছি না! এই নাও ২০ টাকা। এটা দিয়ে রিকশায় করে বাসায় গিয়ে পার্সটা নিয়ে এসো!

* জোকস-৩

ছেলে: বাবা, তুমি কি কিছু টাকা বাঁচাতে চাও?
বাবা: অবশ্যই চাই।
ছেলে: তাহলে আমাকে একটি বাইক কিনে দাও।
বাবা: কেন?
ছেলে: তাতে জুতার তলা ক্ষয় কম হবে। আমাকে জুতা কিনে দেওয়ার টাকাটা তোমার বেঁচে যাবে।

* জোকস-৪

রাহেল: হ্যাঁ রে, তোর বাড়ির সবাই কি তোর মতো কৃপণ?
রাজিব: ঠিক কৃপণ না, একটু হিসেবি।
রাহেল: কেমন?
রাজিব: যেমন ধর, আমার কাকা গত পরশু বাসের সিটের ওপর একটা কাশির সিরাপ কুড়িয়ে পেলেন। তা এমন দামি ওষুধটা তো নষ্ট করা যায় না, তাই কাল রাতভর উনি বৃষ্টিতে ভিজলেন। আজ সকাল থেকে শুরু হলো কাশি, এখন ওষুধটা কাজে লাগছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন