৭ মার্চ: হাসতে নেই মানা
jugantor
৭ মার্চ: হাসতে নেই মানা

  যুগান্তর ডেস্ক  

০৭ মার্চ ২০২১, ০৯:৫৯:২৪  |  অনলাইন সংস্করণ

* জোকস-১


বল্টুর মা: ভালো করে লেখাপড়া কর। বিসিএস ক্যাডার হ। অনেক বড় চাকরি পাবি। সরকারি অফিসের বড় অফিসার হবি। ভবিষ্যত উজ্জ্বল থাকবে।

বল্টু: কে কইছে! এখন তো দেখি সরকারি অফিসের ড্রাইভার হইলেই কেল্লাফতে। টেকা আর টেকা। গাড়ি, বাড়ি সব পামু। অফিসার হইয়া কি লাভ?

* জোকস-২

পৃথিবীতে চার ধরনের মেয়ে কখনো খুঁজে পাওয়া সম্ভব নয়-
১. যে মেয়ে তার বয়ফ্রেন্ডকে কখনোই মিসডকল দেয় না!
২. যে মেয়ে শপিং করতে পছন্দ করে না!
৩. যে মেয়ের মনে কোনো হিংসা নেই!
৪. যে মেয়ে উপরের তিনটি ধরন পড়ার পরেও মাথা ঠান্ডা রাখতে পারে!

* জোকস-৩

হিমা: আন্টি, মা এক কাপ চিনি দিতে বলছে!
আন্টি: দাঁড়াও দিচ্ছি। আচ্ছা, আর কী বলেছে?
হিমা: আর বলছে, ওই কৃপণ মহিলা যদি না দেয়, তাইলে মিমি আন্টির কাছ থাইকা নিয়া আসিস!

* জোকস-৪

এক ফার্মেসি থেকে ওষুধ কিনলেন ভাবনা। বাসায় গিয়ে দেখলেন ওষুধের মেয়াদ শেষ। তাই এসে দোকানদারকে বললেন-
ভাবনা: আমাকে মারার জন্য ওষুধ দিয়েছেন?
দোকানদার: আজ দশ বছর হলো আমি ওষুধ বিক্রি করছি। কেউ কোনোদিন অভিযোগ করেনি। আপনার মুখেই এই প্রথম অভিযোগ শুনছি।
ভাবনা: ভুলে যাচ্ছেন কেন, মৃতরা কোনোদিন অভিযোগ করতে পারে না।

৭ মার্চ: হাসতে নেই মানা

 যুগান্তর ডেস্ক 
০৭ মার্চ ২০২১, ০৯:৫৯ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

* জোকস-১


বল্টুর মা: ভালো করে লেখাপড়া কর।  বিসিএস ক্যাডার হ।  অনেক বড় চাকরি পাবি।  সরকারি অফিসের বড় অফিসার হবি। ভবিষ্যত উজ্জ্বল থাকবে।

বল্টু: কে কইছে! এখন তো দেখি সরকারি অফিসের ড্রাইভার হইলেই কেল্লাফতে। টেকা আর টেকা।  গাড়ি, বাড়ি সব পামু।  অফিসার হইয়া কি লাভ? 

* জোকস-২

পৃথিবীতে চার ধরনের মেয়ে কখনো খুঁজে পাওয়া সম্ভব নয়-
১. যে মেয়ে তার বয়ফ্রেন্ডকে কখনোই মিসডকল দেয় না!
২. যে মেয়ে শপিং করতে পছন্দ করে না!
৩. যে মেয়ের মনে কোনো হিংসা নেই!
৪. যে মেয়ে উপরের তিনটি ধরন পড়ার পরেও মাথা ঠান্ডা রাখতে পারে!

* জোকস-৩

হিমা: আন্টি, মা এক কাপ চিনি দিতে বলছে!
আন্টি: দাঁড়াও দিচ্ছি। আচ্ছা, আর কী বলেছে?
হিমা: আর বলছে, ওই কৃপণ মহিলা যদি না দেয়, তাইলে মিমি আন্টির কাছ থাইকা নিয়া আসিস!

* জোকস-৪

এক ফার্মেসি থেকে ওষুধ কিনলেন ভাবনা। বাসায় গিয়ে দেখলেন ওষুধের মেয়াদ শেষ। তাই এসে দোকানদারকে বললেন-
ভাবনা: আমাকে মারার জন্য ওষুধ দিয়েছেন?
দোকানদার: আজ দশ বছর হলো আমি ওষুধ বিক্রি করছি। কেউ কোনোদিন অভিযোগ করেনি। আপনার মুখেই এই প্রথম অভিযোগ শুনছি।
ভাবনা: ভুলে যাচ্ছেন কেন, মৃতরা কোনোদিন অভিযোগ করতে পারে না।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন