২১ মার্চ: হাসতে নেই মানা
jugantor
২১ মার্চ: হাসতে নেই মানা

  যুগান্তর ডেস্ক  

২১ মার্চ ২০২১, ০৯:৩৮:৪০  |  অনলাইন সংস্করণ

* জোকস-১

বল্টু: মিলি কি খাচ্ছো?
মিলি: দেখতেই তো পারছো, সিংগারা খাচ্ছি।
বল্টু: উফ! কী হট!
মিলি: সিংগারা তো হটই খায়।
বল্টু: আমি কি তোমার সিংগাড়ার আলু হতে পারি।
মিলি: আমি তো আলু ফেলে দিয়ে সিংগারা খাই।

* জোকস-২

একদিন শিক্ষক ক্লাসে পড়াচ্ছেন—
শিক্ষক: আচ্ছা, বলতে পারো দুধের সঙ্গে বিড়ালের কোনখানে মিল আছে?
ছাত্র: স্যার, এটা তো খুব সহজ প্রশ্ন।
শিক্ষক: তাহলে বলো।
ছাত্র: স্যার, দুটো থেকেই ‘ছানা’ পাওয়া যায়।

* জোকস- ৩

এক ছাত্র তার বন্ধুকে চিৎকার করে ‘নিহা’ বলে ডাকছে—
শিক্ষক: এই নিরঞ্জন, তুমি নিহা বলে কাকে ডাকছ?
ছাত্র: আমার বন্ধুকে স্যার।
শিক্ষক: নিহা কোনো ছেলের নাম হতে পারে?
ছাত্র: না, মানে ওর আসল নাম নিরঞ্জন হালদার স্যার! আমরা সংক্ষেপে নিহা বলে ডাকি।
শিক্ষক: ভাগ্যিস তোদের কালে আমার জন্ম হয়নি। আমার নাম তো শান্তনু লাহিড়ী। তোরা তো তবে ‘শালা’ বলে ডাকতি।

* জোকস-৪

শাস্তি হিসেবে নিজের নাম ১০০ বার লেখা
দুই ছাত্র মারামারি করার পর শিক্ষক তাদের শাস্তি হিসেবে নিজের নাম ১০০ বার করে লিখতে বললেন—
১ম ছাত্র: স্যার, আপনি বল্টুর পক্ষে রায় দিয়েছেন।
শিক্ষক: কেন! আমি তো দু’জনকেই সমানভাবে ১০০ বার নাম লিখতে দিয়েছি!
১ম ছাত্র: স্যার, ওর নাম হচ্ছে বল্টু। আর আমার নাম হচ্ছে অনন্ত রাজ হৃদয় চৌধুরী।

২১ মার্চ: হাসতে নেই মানা

 যুগান্তর ডেস্ক 
২১ মার্চ ২০২১, ০৯:৩৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

* জোকস-১

বল্টু: মিলি কি খাচ্ছো?
মিলি: দেখতেই তো পারছো, সিংগারা খাচ্ছি।
বল্টু: উফ! কী হট!
মিলি: সিংগারা তো হটই খায়।
বল্টু: আমি কি তোমার সিংগাড়ার আলু হতে পারি।
মিলি: আমি তো আলু ফেলে দিয়ে সিংগারা খাই।

* জোকস-২

একদিন শিক্ষক ক্লাসে পড়াচ্ছেন—
শিক্ষক: আচ্ছা, বলতে পারো দুধের সঙ্গে বিড়ালের কোনখানে মিল আছে?
ছাত্র: স্যার, এটা তো খুব সহজ প্রশ্ন।
শিক্ষক: তাহলে বলো।
ছাত্র: স্যার, দুটো থেকেই ‘ছানা’ পাওয়া যায়।

* জোকস- ৩

এক ছাত্র তার বন্ধুকে চিৎকার করে ‘নিহা’ বলে ডাকছে—
শিক্ষক: এই নিরঞ্জন, তুমি নিহা বলে কাকে ডাকছ?
ছাত্র: আমার বন্ধুকে স্যার।
শিক্ষক: নিহা কোনো ছেলের নাম হতে পারে?
ছাত্র: না, মানে ওর আসল নাম নিরঞ্জন হালদার স্যার! আমরা সংক্ষেপে নিহা বলে ডাকি।
শিক্ষক: ভাগ্যিস তোদের কালে আমার জন্ম হয়নি। আমার নাম তো শান্তনু লাহিড়ী। তোরা তো তবে ‘শালা’ বলে ডাকতি।

* জোকস-৪

শাস্তি হিসেবে নিজের নাম ১০০ বার লেখা
দুই ছাত্র মারামারি করার পর শিক্ষক তাদের শাস্তি হিসেবে নিজের নাম ১০০ বার করে লিখতে বললেন—
১ম ছাত্র: স্যার, আপনি বল্টুর পক্ষে রায় দিয়েছেন।
শিক্ষক: কেন! আমি তো দু’জনকেই সমানভাবে ১০০ বার নাম লিখতে দিয়েছি!
১ম ছাত্র: স্যার, ওর নাম হচ্ছে বল্টু। আর আমার নাম হচ্ছে অনন্ত রাজ হৃদয় চৌধুরী।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন