আজ আন্তর্জাতিক আর্কাইভস দিবস

প্রকাশ : ০৯ জুন ২০১৮, ১৬:২০ | অনলাইন সংস্করণ

  যুগান্তর রিপোর্ট

আজ আন্তর্জাতিক আর্কাইভস দিবস। ইন্টারন্যাশনাল কাউন্সিল অন আর্কাইভস (আইসিএ) এর উদ্যোগে ২০০৮ সাল থেকে প্রতি বছরের ৯ জুন দিবসটি পালিত হচ্ছে।

যথাযথ গুরুত্বের সাথে বাংলাদেশেও আজ সরকারি-বেসরকারি ভাবে আন্তর্জাতিক আর্কাইভস দিবস পালিত হচ্ছে।

আর্কাইভস : গভর্নেন্স,মেমোরি, অ্যান্ড হেরিটেজ’ শীর্ষক  প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে পালিত হচ্ছে এবারের আন্তর্জাতিক আর্কাইভস দিবস।

দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক পৃথক বাণী দিয়েছেন।

রাষ্ট্রপতি তার বাণীতে আরকাইভস ব্যবহারকারী, গবেষক এবং আরকাইভস ও গ্রন্থাগার অধিদফতরের কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, সুশাসন, তথ্যভাণ্ডার ও ঐতিহ্যের ধারক হিসেবে ১৯৭২ সাল থেকে জাতীয় আরকাইভস কাজ করে আসছে। জাতীয় আরকাইভস আজ বাংলাদেশের শিক্ষা, সাহিত্য, সংস্কৃতি, ইতিহাস ও ঐতিহ্যের প্রাণকেন্দ্রে পরিণত হয়েছে।

ভূ-রাজনীতি, নিজস্ব ভাষা এবং সংস্কৃতি বিবেচনায় বাংলাদেশ পৃথিবীর বুকে নিজের স্থান করে নিয়েছে উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি বলেন, জাতীয় আরকাইভসের সংগ্রহশালায় রক্ষিত পুরাতন নথিপত্র দেশ-বিদেশের সাংবাদিক, বুদ্ধিজীবী, শিক্ষক, গবেষকসহ সর্বস্তরের জনসাধারণের নিকট গ্রহণযোগ্য ইতিহাস চর্চার অমূল্য দলিল। তাই আন্তর্জাতিক আরকাইভস দিবসে এবারের প্রতিপাদ্য ‘আর্কাইভস : গভর্নেন্স,মেমোরি, অ্যান্ড হেরিটেজ’বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে অত্যন্ত প্রাসঙ্গিক।

রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘আমি আশা করি এ দিবসটি পালনের মাধ্যমে আরকাইভস ও গ্রন্থাগার অধিদফতর আরকাইভসের গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে জনগণকে অবহিত করতে সমর্থ হবে।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘জাতীয় আরকাইভস খুব শিগগিরই দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম সমৃদ্ধশালী কেন্দ্রীয় সংরক্ষণাগার হিসেবে আত্মপ্রকাশ করবে।’

তিনি বলেন, উন্নয়নে বাংলাদেশ এখন বিশ্বে ‘রোল মডেল।’ সম্প্রতি বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ হতে উন্নয়নশীল দেশের ক্যাটেগরিতে উন্নীত হয়েছে। এ স্বীকৃতি বিশ্বে বাংলাদেশের মর্যাদা আরও বৃদ্ধি করেছে।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। গত সাড়ে ৯ বছরে বাংলাদেশ আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন, দারিদ্র্য বিমোচন, শিক্ষা, সংস্কৃতি, যোগাযোগ, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি, কৃষি, স্বাস্থ্য, অবকাঠামোগত উন্নয়নসহ প্রায় প্রতিটি ক্ষেত্রে অভূতপূর্ব অগ্রগতি অর্জন করেছে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭২ সালের নভেম্বরে আরকাইভস ও গ্রন্থাগার অধিদপ্তরটি প্রতিষ্ঠা করেন।

২০০১ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতীয় আরকাইভস ভবন নির্মাণের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন। জাতীয় আরকাইভস ভবন নির্মাণের প্রথম পর্যায় ২০০৪ সালে এবং ২য় পর্যায় ২০১২ সালে শেষ হয়।

বর্তমানে জাতীয় আরকাইভসের কার্যক্রম ৫তলা বিশিষ্ট প্রশাসনিক ভবন এবং ৭তলা বিশিষ্ট স্ট্যাক ভবনে সম্পাদন হচ্ছে যা আগারগাঁও, শেরেবাংলা নগর, ঢাকা-১২০৭-এ অবস্থিত।