পর্তুগালে সোশ্যালিস্ট পার্টির ৪৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

প্রকাশ : ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১২:৫০ | অনলাইন সংস্করণ

  মো. রাসেল আহম্মেদ, পর্তুগাল থেকে

১৯ এপ্রিল ছিল পর্তুগাল সোশ্যালিস্ট পার্টির ৪৬ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপিত হয়েছে। ১৯৭৩ সালের এ দিনে জার্মানির Bad Münstereifel শহরে ড. Mario Soares এর নেতৃত্বে একনায়কতন্ত্রের বিরুদ্ধে একদল পর্তুগীজ স্বাধীনতাকামী মানুষ পর্তুগাল সোশ্যালিস্ট পার্টি গঠন করে।

সোশ্যালিস্ট পার্টির বিভিন্ন দাবীর প্রেক্ষিতে এক সেনা অভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে ১৯৭৪ সালের ২৫ এপ্রিল একনায়কতন্ত্রকে হটিয়ে গনতন্ত্রের স্বাধীনতা অর্জিত হয়। তাই ২৫ এপ্রিল পর্তুগালের স্বাধীনতা দিবস হিসেবে পরিচিতি লাভ করে।

প্রতি বছরের ন্যায় এবারও প্রায় ২০০০ মানুষের নৈশভোজের মধ্য দিয়ে এ দিনটি উদযাপিত হয়েছে। পার্টির সেক্রেটারি ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ড. আন্তনিয় কোস্টা, মেয়র ড. ফারনান্দো মেদিনা, মন্ত্রী পরিষদ, দলের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাবৃন্দ, দলের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট, প্রধানমন্ত্রী, স্পীকার, সোশ্যালিস্ট পার্টির সর্বস্তরের নেতা কর্মীরা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

২৬ মে ২০১৯ ইউরোপিয়ান পার্লামেন্ট নির্বাচন উপলক্ষ্যে দলের সভাপতি ও সেক্রেটারি, কেবিনেট মন্ত্রী এবং একজন ফাউন্ডার সদস্য দীর্ঘ ৪৬ বছরের বিভিন্ন কার্যক্রম তুলে ধরেন। তাছাড়াও সোশ্যালিস্ট পার্টিকে কেন ভোট দিয়ে ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টে কথা বলার সুযোগ দিতে হবে তার ব্যাখ্যা করেন।

ইমিগ্রান্টদের জন্য পর্তুগাল সোশ্যালিস্ট পার্টির দেয়া বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা এবং অবদানের কথা বক্তব্যে উল্লেখ করেন।

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত সোশ্যালিস্ট পার্টির স্থানীয় নেতা এবং লিসবন সিটি কাউন্সিলর রানা তসলিম উদ্দিনের নেতৃত্বে পর্তুগাল প্রবাসী বাংলাদেশি ব্যবসায়ী, সাংবাদিকসহ বিভিন্ন শ্রেনীপেশার প্রায় ১২ জনের প্রতিনিধিদল এ অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন।

বাংলাদেশি অধ্যুষিত এলাকার সোশ্যালিস্ট পার্টির সেক্রেটারি, লিসবন মহানগরীর প্রেসিডেন্ট ও লিসবনের মেয়রসহ অনেকেই অংশগ্রহনকারী প্রতিনিধি দলের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন এবং কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে, ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।