মালদ্বীপের প্রদীপ্ত আলোর ভাধু আইল্যান্ড

  রনি নন্দী, মালদ্বীপ থেকে ১৭ জুন ২০১৯, ১৪:২৫ | অনলাইন সংস্করণ

ভাধু আইল্যান্ড

নয়নাভিরাম প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের ভাধু আইল্যান্ড মালদ্বীপের বিস্ময়কর এক সমুদ্র সৈকত। প্রবাল প্রাচীর ঘেরা এ দ্বীপের বৈশিষ্ট্য সন্ধ্যা নামার সঙ্গে সঙ্গে ঢেউয়ের সঙ্গে ভেসে আসে যেন লক্ষ লক্ষ তারা।

দ্বীপরাজ্য মালদ্বীপ ২৬ টি অ্যাটোল আর প্রায় ১ হাজার টি ক্ষুদ্র দ্বীপ নিয়ে ভারতীয় মহাসাগরের দেশ মালদ্বীপ। অ্যাটোল মানে লেগুন ঘেরা প্রবালদ্বীপ। এর মধ্যে মাত্র ২ শত দ্বীপ বাসযোগ্য। বাকিগুলো অব্যবহৃত অবস্থায় আছে। মালদ্বীপের রাজধানী মালে, এটি বিশ্বের সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ শহরগুলির মধ্যে একটি। মাত্র ৯.২৭ বর্গ কিলোমিটারের এ শহরে প্রায় ১ লাখ ৩৩ হাজার ৪১২ জন মানুষের বসবাস। মালদ্বীপের মোট জনসংখ্যা ৪ লাখ ৩৬ হাজার ৩৩০ জন।

প্রকৃতি তার অপরূপ রূপ যেন ঢেলে দিয়েছে এই মালদ্বীপে। বিশাল সমুদ্র, নীল আকাশ আর প্রবাল দ্বীপ। দ্বীপে দ্বীপে অসাধারণ সব সমুদ্র সৈকত। ভাধু আইল্যান্ড সেকল দ্বীপের মধ্যে অন্যতম।

ভাধু মালে থেকে ১৯৪ কিলোমিটার দূরে রা অ্যাটোলে অবস্থিত। ১.৪ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যে আর প্রস্থে ০.৪ কিলোমিটার এই দ্বীপে লোকসংখ্যা ৫৫০ জন অভিবাসীসহ। অকল্পনীয় প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের নিদর্শন এ ভাধু দ্বীপের রাতগুলো যেন অপেক্ষা করে আরও অনেক বিস্ময় নিয়ে। রাতের বেলা যখন ভাধু দ্বীপের তীরে আছড়ে পড়ে সাগরের ঢেউ, তখন মনে হয় যেন আয়নার মতো স্বচ্ছ জলে প্রতিফলিত হচ্ছে রাতের আকাশের অসংখ্য উজ্জ্বল তারা। আবার কখনো কখনো মনে হয় বুঝি আকাশের তারাগুলো সব নেমে এসেছে ভাধু দ্বীপের তীরে।

সৈকতে যেন ঐশ্বরিক তারাবাতি জ্বালিয়ে দিয়েছে কেউ। মনে হয় প্রকৃতি সৈকতকে সাজিয়ে দিয়েছে লক্ষ তারায়। মিটিমিট নীল আলোয় তাক লাগানো এক বিস্ময়কর সুন্দর এই ভাদু দ্বীপ। এ উজ্জ্বল নীল আলো আর কিছুর নয়, এক ধরণের সামুদ্রিক ফাইটোপ্লাঙ্কটনের। ফাইটোপ্লাঙ্কটনের নাম ডিনোফ্লাজেলাটিস। এইসব ফাইটোপ্লাঙ্কটনে রয়েছে লুসিফেরাস নামক রাসায়নিক উপাদান যা আলো সৃষ্টি করতে পারে। জোনাকি, জেলিফিসের মতো অনেক জীবেরই আছে আলো তৈরির করার ক্ষমতা। জীবের আলো তৈরি করার এ ক্ষমতাকে বলে Bioluminescence।

এটা অবশ্যই প্রকৃতির এক আশ্চর্য ঘটনা। সাধারণত নিজেদের আত্মরক্ষা, শিকার ধরা, আক্রমনকারী প্রাণীকে বিভ্রান্ত করা জন্য এসব ফাইটো প্লাঙ্কটন আলো বিচ্ছুরণ করে।

এই ফাইটোপ্ল্যাঙ্কটগুলো নিজের উৎপাদিত নীল রঙের আলো বিকিরণ করে নীল আলোর ফিনকি ছড়িয়ে বিশ্বের অন্যতম সুন্দর ও অসাধারণ প্রাকৃতিক আলোর খেলার নিদর্শন তৈরি করে চলেছে। হাজার বছর ধরে রাতের আলো আঁধারিতে মালদ্বীপের ভাধু দ্বীপের তীরে। মালদ্বীপের ভাধু দ্বীপ ইউরোপ-আমেরিকাসহ এশিয়ার ভ্রমণপিপাসুদের জন্য এক স্বর্গরাজ্য।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×