আহারে শরতের এই বাহারে

  রহমান মৃধা, সুইডেন থেকে ০৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:৩৯ | অনলাইন সংস্করণ

অনুপ্রেরণা

দেখতে দেখতে সুইডেনে গ্রীষ্মের সময় ফুরিয়ে গেলো। স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়গুলো নতুন অনুপ্রেরণা নিয়ে ছাত্রছাত্রীদের আমন্ত্রণ এবং সেই সঙ্গে বরণ করছে। কর্মজীবনে কিকঅফের (kick off) মধ্যদিয়ে ছোটবড় কম্পানীগুলো কর্মচারীদের মোটিভেশন (motivation) ফিরিয়ে আনতে বিভিন্ন ধরণের এক্টিভিটিস (activates) বা টিম বিল্ডিংয়ের (team building) ব্যবস্থা করছে।

রাজা এবং রাজ পরিবার সংসদ ভবন উদ্বোধন করেন প্রতি বছরই সুইডিশ ট্র্যাডিশন (tradition) অনুযায়ী। রাজা মাননীয় স্পিকারের অনুরোধে জাতীয় সংসদ উদ্বোধন করে থাকেন। মঙ্গলবার, ১০ সেপ্টেম্বর, সংসদের (রিক্সডাগের) নতুন কার্যদিবস শুরু হবে, জাতীয় সংসদ ২০১৯/২০।

নতুন প্রজন্মের অনেকের জন্য প্রথম স্কুল জীবন শুরু হয়েছে। কেউ নতুন কিছু পেলো কেউ আবার পুরনো কিছু হারালো। চারিদিকে বেশ পরিবর্তন দেখা যাচ্ছে। সকালটা আর সূর্যের কিরণ দিয়ে শুরু হচ্ছে না। আকাশ মেঘে ঢাকা কিছুটা অন্ধকার এ সময়টিতে। খোলামেলা বা হাল্কা কাপড়ে চলাফেরা করার সময় শেষের পথে। হঠাৎ একঝলক সূর্যের আলো যখন গাছপালার ওপর পলক ফেলছে ঠিক তখন এক মনোমুগ্ধকর দৃশ্য সবার নজর কেড়ে নিচ্ছে। কারণ শরতের আবির্ভাব একটু একটু দেখা দিতে শুরু করেছে।

কমপক্ষে এক মাসের বেশি সময় নিখিলের সৌন্দর্য এত চমৎকার হবে যা শুধু ইউরোপে বিশেষ করে সুইডেনে পরিস্কারভাবে অনুভব করা যাবে। গাছের পাতাগুলো তার রঙ পাল্টিয়ে রংধনুর মত সাত রঙে রাঙ্গিয়ে তুলতে শুরু করেছে। শিল্পীর তুলিতে আঁকা শরতের এই মনোমুগ্ধকর দৃশ্য কেড়েছে অনেক টুরিস্টের মন। সুইডেনের শরৎ সত্যিই এক মন জুড়ানো দৃশ্য যা না দেখলেই নয়। আমি কাছ থেকে দেখছি, আমি দূর হতে দেখছি আর মুগ্ধ হয়ে চেয়ে থাকছি আর অভিভূত হচ্ছি প্রতিক্ষণ।

আমি সৃষ্টিকর্তার প্রতি আমার প্রাণঢালা ভালোবাসা আর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি, - তুমি আমাকে এই সুন্দর ভুবনের সবকিছু উপভোগ করার সুযোগ দিয়েছো। তুমি শ্রেষ্ঠ, তুমি মহান, তুমি পরম দয়ালু এবং করুণাময় রাব্বুল আলামিন।

গ্রীষ্মের মতো শরতও এক সময় শেষ হয়ে যাবে। শুরু হবে হেমন্ত। সুইডেন চার ঋতুর দেশ (গ্রীষ্ম, বসন্ত, শরৎ এবং শীত) তাই হেমন্ত শরতের মধ্যেই পড়ে। গাছপালা তার পুরো সৌন্দর্য হারাবে। পুরো সুইডেনকে অন্ধকার গ্রাস করবে। আসবে শীত, বরফে ঢেকে যাবে সারাদেশ। নতুন জীবনের অপেক্ষায় আর প্রতীক্ষায় দাড়িয়ে থাকবে নানা ধরনের গাছপালা সারিসারি। দেখে মনে হবে দেহ আছে, প্রাণ নাই।

শীতের শেষে আসবে বসন্ত আবার ফিরে। গাছপালা ফিরে পাবে নতুন জীবন। সেই আশা এবং প্রত্যাশা নিয়ে জীবন চলছে চলবে পৃথিবীর বুকে।

বাংলাদেশেও শরৎ ঋতু সুইডেনের মতই সব সৌন্দর্যের চিরন্তন প্রতীক। বলা যেতে পারে শরতে বাংলাদেশ শুধু সুন্দর নয়, অপূর্ব, অতুলনীয় ও অসাধারণ সুন্দর।

শরতে ঘুমের ঘোরে অনেকেই স্বপ্ন দেখবে আবার কেউ জেগে জেগে সোনার বাংলাকে তার মনের মত করে গড়বে এবং হয়তো সাজাবে সুইডেনের শরতের মত করে।

কেন যেন মনে হচ্ছে আমার সেই ছোট বেলার দিনগুলোর কথা। সেই শরতের বিকালে নীল আকাশের নিচে দোল খাওয়া শুভ্র কাশফুলকে। প্রকৃতির পালাবদলের খেলা তখন চলতো শরতের মাঝামাঝি সময়।

এখনও কি বাংলাদেশের বাইরে প্রকৃতিতে চোখ রাখলে ধরা পড়ে শরৎ; -প্রকৃতির সেই মোহনীয় রূপ, কাচের মতো স্বচ্ছ নীল আকাশে গুচ্ছ গুচ্ছ সাদা মেঘের ভেলার ছোটাছুটি, নদীর বা বিলের ধারে কিংবা গ্রামের কোনো প্রান্তে মৃদু সমীরণে দোল খাওয়া শুভ্র কাশফুলের স্নিগ্ধতা, আর সেই বিল ও ঝিলের পানিতে শাপলা শালুক ফুলের সুন্দর মায়াবী দৃশ্যের সমারোহ! বাংলাদেশের শরতকে সুইডেনে বসে অনুভব করা সত্যি এক স্বপ্ন যা শুধু জেগে জেগে নয় ঘুমের ঘোরেও তাকে দেখি। তাই সবাইকে শরতের প্রাণঢালা ভালোবাসা দূরপরবাস সুইডেন থেকে।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

ঘটনাপ্রবাহ : রহমান মৃধার কলাম

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×