সকল গতির উর্ধ্বে মনের গতি

  রহমান মৃধা, সুইডেন থেকে ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১২:১৮ | অনলাইন সংস্করণ

মনের গতি

সকল গতির উর্ধ্বে মনের গতি তার পরও আছে এক গতি যা আমরা জানিনা। গতি কি? গতি হলো প্রতিটি বস্তুর সরণ। পদার্থবিজ্ঞানের ভাষায় প্রসঙ্গ কাঠামোর বা পারিপার্শ্বের সাপেক্ষে যখন কোনো বস্তুর অবস্থানের পরিবর্তন ঘটে তখন তাকে গতিশীল বস্তু এবং এই ঘটনাকে গতি (Motion) বলা হয়।

সাধারণত কোনো স্থির পfরিপার্শিকের বা প্রসঙ্গ কাঠামোর সাপেক্ষে বস্তুটি গতিশীল আছে কিনা তা তুলনা করা হয়। একে বলা হয় পরম গতি। কিন্তু বাস্তবে পরম গতিশীল কোনো বস্তু পাওয়া সম্ভব নয়। কারণ, বিশ্বজগতের প্রত্যেকটি বস্তুই গতিশীল। যেমন পৃথিবী নিজ অক্ষের ওপর গতিশীল যা সূর্যকে কেন্দ্র করে ঘোরে, আবার সূর্যও গতিশীল। সুতরাং ভূপৃষ্ঠের ওপর থাকা সকল বস্তু পৃথিবীর গতির সঙ্গে গতিশীল অবস্থায় রয়েছে।

অতএব বাস্তবে কোনো স্থির বস্তু বা প্রসঙ্গ কাঠামো পাওয়া সম্ভব নয় যেটির সঙ্গে তুলনার মাধ্যমে নির্ধারণ করা যাবে যে ঐ বস্তুটি স্থিতিশীল নাকি গতিশীল রয়েছে। যাই হোক না কেন যেসব গতি আমরা নির্ধারণ করতে পারি তার ওপর আমাদের একটি ধারণা আছে।

তবে লাইলাতুল মেরাজের রাত যে রাতে নবী মুহাম্মদ (সা.) ঐশ্বরিক উপায়ে ঊর্ধ্বাকাশে আরোহণ করেছিলেন স্রষ্টার সঙ্গে সাক্ষাৎ করার জন্য। বোরাক নামক বিশেষ বাহনে তিনি আসীন হয়ে ঊর্ধ্বলোকে গমন করেন। ঊর্ধ্বাকাশে সিদরাতুল মুনতাহায় তিনি আল্লাহ'র সাক্ষাৎ লাভ করেন। যে বোরাক বাহনে করে তিনি ঊর্ধ্বলোকে গিয়েছিলে তার গতি কতো ছিল তা আমরা জানিনা।

আবার প্রেম-ভালবাসা হরমোনের একটি রসায়নের খেলা! এটা আমাদের মস্তিষ্কে সৃষ্ট এক ধরণের রাসায়নিক অবস্থা। এই রাসায়নিক হরমোনের গভীরতা যতো বেশি তার গতিও ততো বেশি।

নানা ধরনের গতি রয়েছে যেমন শ্বাস-প্রশ্বাসের গতি, বাতাসের গতি, শব্দের গতি, আলোর গতি, ভালোবাসার গতি, বোরাক বাহনের গতি, মনের গতি ইত্যাদি। কোন গতি কত দ্রুত তা জানি বা না জানি তাতে কিছু যায় আসে না। তবুও মাথায় চিন্তা ঢুকেছে, মনের গতি এবং তার আকর্ষনীয় ক্ষমতার ওপর।

যেখানেই গিয়েছি জীবনে, ভাবতেই মন সেখানে গিয়ে হাজির। এই মনের গতির দ্রুততা কতো তা আজও জানতে পারিনি। মনে হচ্ছে যতো কাছে বা দূরেই যাই না কেন মন সেখানে হাজির এবং সময়ের কোনো পার্থক্য উপলব্ধি করতে পারছিনা। আছেন কি কেউ যে এই পার্থক্য খুঁজে পেয়েছেন?

আমি এই মুহূর্তে সুইডেনে বসে ভাবছি বাংলাদেশের কথা। ১৯৭১ সালের নভেম্বর মাসের এক পড়ন্ত বিকেলে দুইজন রাজাকারের সঙ্গে একজন পাকসেনা আমাদের বাড়িতে ঢুকেছে। তাদের মতলব খারাপ কারণ পাকসেনার সঙ্গে কোনো অস্ত্র নেই। পুরো বাড়ি তন্নতন্ন করে খুঁজছে কিন্তু কি খুঁজছে তা বলছে না। পাকসেনাটি রাজাকারের মাধ্যমে আমাকে জিজ্ঞেস করছে বাড়ির সবাই কোথায়?

আমি বললাম বাড়িতে কেউ নেই। শুধু আমি আর আমার বড় দাদি ছাড়া। বাকি সব গতকাল রাতে বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছে আমার নানা বাড়ি। তারা জিজ্ঞেস করলো নানাবাড়ি কোথায়? বললাম চারিখাদায়। সে আবার কোথায়? বললাম নড়াইল। কিছুক্ষণ ঘোরাঘুরি করে তারা চলে গেল তাদের ক্যাম্পে। ঘটনা ঘটেছিল আজ থেকে প্রায় পঞ্চাশ বছর আগে এবং বাংলাদেশে। আমি সুইডেনে এই মুহূর্তে স্মৃতিচারণ করছি! বিস্ময়কর ব্যাপার হলো আমি ভাবছি এত বছর আগের ঘটনা অথচ দিব্বি মনে হচ্ছে এই তো সেদিন! সেদিনের সেই ঘটনা হৃদয়ে এসে হাজির হয়েছে দ্রুততার সঙ্গে। এ কোন গতি? সময়ের, ভাবনার, জীবনের নাকি মনের গতি? এতটি বছর পার হয়েছে। কত কিছু ঘটেছে অথচ মুহূর্তের মধ্যে সব ঘুরে দেখা হয়ে গেল! তাই হঠাৎ এই দ্রুতগতির কথা ভাবনায় ঢুকেছে।

মনের গতির সঙ্গে কি তাহলে স্রষ্টার ক্ষমতা এবং তার শক্তির ওপর কিছু তুলনা করতে পারি? না পারিনা। কারণ তার ক্ষমতা জানার মত জ্ঞান আমাদের নেই। যদিও আমরা আজীবনের সব কিছু ঘটে যাওয়া ঘটনাগুলো ভ্রমণ করতে পারি মুহূর্তে, তবুও এ ক্ষমতা স্রষ্টার ক্ষমতার সঙ্গে তুলনা করার নয়, এতটুকু বুঝতে পেরেছি।

মনে হচ্ছে আমার ক্ষমতা, আমার গতি, পৃথিবীর মধ্যেই সীমাবদ্ধ। মনের গতি যতো দ্রুতই হোক না কেন সীমানার বাইরে যাওয়ার মতো সম্মতি আমাদের নেই। তাই সকল গতির উর্ধ্বে মনের গতি থাকলেও মনের গতির ঊর্ধ্বেও আরেক গতি রয়েছে। সে গতি আমাদের অজানা, আমাদের ধরাছোঁয়ার বাইরে। সে গতির নাম ইনফিনিটি গতি।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

ঘটনাপ্রবাহ : রহমান মৃধার কলাম

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×