কোন লজ্জা থাকা ভালো?

  রহমান মৃধা, সুইডেন থেকে ২৮ অক্টোবর ২০১৯, ১৭:১১ | অনলাইন সংস্করণ

লজ্জা

কোন লজ্জা থাকা ভালো? লজ্জা নারীর ভূষণ হতেই পারে, কিন্তু তার অর্থ এই নয় যে, নারী সব কিছুর আড়ালে থেকে যাবে। লজ্জার অনেক কারণ থাকতে পারে তাই শুধু নারী-পুরুষের বিভেদে লজ্জাকে ব্যবহার করলে শিক্ষাহীনতার পরিচয় দেয়া হবে।

লাজুক মেয়ে সেদিন লজ্জা শরম ছেড়ে বলেছিল, ‘তুমি কি আমার সঙ্গে ডান্স করবে (vill du dansa med mig)?” আমি বলেছিলাম “ইয়ারনা (gärna)”, মানে হ্যাঁ আনন্দের সঙ্গে করব। বিশ্বখ্যাত লাক্সারী জাহাজ সিলিয়া সিম্ফনি বাল্টিক সাগর পাড়ি দিয়ে চলছে সেন্ট পিটার্সবার্গ, রাশিয়ার একটি ফেডারেল শহর, বাল্টিক সাগরের অন্তর্গত ফিনল্যান্ড উপসাগরের মাথায় নেভা নদীর তীরে অবস্থিত। স্টকহোম থেকে সেন্ট পিটার্সবার্গের পথে দেখেছিলাম তাকে।

হৃদয়ের মাঝে কিছুটা মমতাময়ী লজ্জা যা আমিও পেয়েছিলাম সেদিন। আমরা সবাই কোন না কোন ভাবে লজ্জা পেয়ে থাকি। সব লজ্জা কি এক রকম? না। লজ্জা আমাদের কর্মের ফলাফল যা ভালো বা মন্দ হতে পারে। বিপদে বা অর্থের অভাবে কারো কাছে হাত পাতা বা সাহায্য চাওয়া মধ্যবিত্ত মানুষের জন্য এক বড় লজ্জা।

এ ধরণের লজ্জা বড় লোকের নেই কারণ তাদের কারো কাছে সাহায্যের জন্য হাত পাততে হয়না। গরীবের লজ্জা থাকলেও তাদের হাত পাতা ছাড়া অন্য কোন উপায় নেই কারণ দারিদ্রতা লজ্জাকে গ্রাস করেছে গরীবের হৃদয় থেকে।

দরিদ্র হওয়া খুব ব্যয়বহুল ( to be poor is very expensive)। কারো বাড়ি খেতে গরীবের দাওয়াত পড়ে না। ব্যাংকে টাকা ধার নিতে গেলে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ ধার দেবেনা কারণ কোনো সম্পদ ডিপোজিট রাখার উপায় নেই। কারো কাছে কিছু ধার চাইলে পাওয়া যাবে না। কিন্তু বড়লোকের ক্ষেত্রে পুরোটাই উল্টো। বলা যেতে পারে তেলা মাথায় সবাই তেল দেয়। অন্যদিকে লক্ষণীয় যে মধ্যবিত্তদের (middle class) লজ্জা খুব বেশি।

কারো থেকে কিছু নিতে বা হাত পাততে লজ্জা এসে বাঁধা হয়ে দাড়ায় মধ্যবিত্তদের জীবনে। একটি উদাহরণ দেই, বাংলাদেশ থেকে যে সব শিক্ষার্থী লেখাপড়া করতে ইউরোপে এসেছে তাদের সবারই পড়াশোনার সঙ্গে এটা ওটা কাজ (odd jobs ) করার অনুমতি রয়েছে। এখন অনুমতি থাকলেই ঘরে বসে কাজ পাওয়া যাবেনা। তার জন্য বিভিন্ন জায়গায় গিয়ে নক (Knock) করতে হবে কাজের জন্য। এখন যদি কাজ খুঁজতে বা কাউকে বলতে লজ্জা লাগে তাহলে তো কাজ পাওয়া যাবে না। এক্ষেত্রে লজ্জাকে দূরে সরাতে শিখতে হবে। আবার কাউকে ভালো লাগা অন্যায় কিছু নয়। মানুষ মানুষের জন্য তাই কাউকে ভালোলাগা বা পছন্দ করা সাধারণ ব্যাপার।

কিন্তু লজ্জার কারণে হয়ত কোনদিন বলা হবেনা তাকে ভালোলাগার কথা। ভালোলাগার ক্ষেত্রে যদি লজ্জা এসে বিবেকে বাঁধা হয়ে দাড়ায় তবে সেটাকে মন থেকে সরাতে হবে। একইসঙ্গে অধিকার আদায়ে জুলুম বা দানবের মত ব্যবহার করা যাবেনা। পছন্দের মানুষটিকে সুন্দর করে বলতে হবে হৃদয়ের ভালোলাগার কথা। লজ্জা অনেক সময় কাপুরুষের লক্ষণ হতে পারে। লজ্জা অনেক সময় আত্মবিশ্বাসের অভাব হতে পারে। আবার লজ্জা অনেক সময় ভয়ের কারণ হতে পারে। জীবনে সম্মান এবং সাহস অর্জন করতে দরকার বিনয় এবং দক্ষতা।

সততা, নিষ্ঠা এবং চরিত্রের অভাবে বেশির ভাগ সময় স্বভাবের অবনতি ঘটে। ঘটে চরিত্রের অধ:পতন, আর তাই চরিত্রহীন মানুষ দানবে পরিণত হয়ে সমাজে কুকর্মের সঙ্গে লিপ্ত হয়। এ সব কুকর্ম থেকে দূরে থাকার মত লজ্জা থাকা দরকার। তাই বলতে চাই সৎকর্মে লজ্জা নয় বরং কুকর্মে লজ্জা থাকতে হবে। কারণ আমরা দানব নই আমাদের পরিচয় মানব। আমরা যেনো আমাদের আত্মবিশ্বাস না হারাই এবং আমরা যেনো আমাদের আচরণে কখনও মনের মাঝে লজ্জিত না হই।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

ঘটনাপ্রবাহ : রহমান মৃধার কলাম

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×