ঘুরে এলাম আন্দালুসিয়া

  রহমান মৃধা, সুইডেন থেকে ০৮ নভেম্বর ২০১৯, ১৮:৩০ | অনলাইন সংস্করণ

আন্দালুসিয়া

১ নভেম্বর ভোর চারটে বাজতেই ঘড়ির অ্যালার্ম বেজে উঠল। ঝটপট করে ঘুম থেকে উঠে রেডি হয়ে গেলাম। টাক্সি নিচে এসে হাজির হয়েছে। রওনা দিলাম স্টকহোম আরল্যান্ডা এয়ারপোর্টে আন্দালুসিয়া (স্পেন) ভ্রমণের উদ্দেশ্যে। সকাল ছয়টায় প্লেন ছাড়ার কথা কিন্তু ওয়েদার খারাপ হওয়ার কারণে দেরি হলো প্যারিস চার্লস দ্যা গলে পৌঁছাতে।

ঘন্টা দুই পরে প্যারিসে এসে হাজির হতেই বেশ তাড়াহুড়ো করে কানেক্টিং ফ্লাইট ধরতে হলো। যাইহোক চার্লস দ্যা গলে একটু আড্ডা দেয়ার প্ল্যান ছিল তা আর হলো না। প্লেন মালাগা এয়ারপোর্টে সময় মত এসে হাজির হয়েছে। গাড়ি ভাড়া করে সোজা তোরেমলিনোসে চলে এলাম। চমৎকার ওয়েদার ২৮ ডিগ্রী সেন্ট্রিগ্রেট তবে গাড়ি পার্ক করতে ঘন্টাখানেক চলে গেল। রাস্তায় কোথাও ইঞ্চি পরিমান জায়গা খালি নেই। ভাগ্যগুণে মিলে গেল পার্কিং শেষে ঝটপট করে ব্যাগ বাসায় রেখে বেরিয়ে পড়লাম তোরেমলিনোসের নিকটস্থ ভূমধ্যসাগরের পাড়ে।

বিশাল দীর্ঘ সমুদ্রসৈকতে ঢেউয়ের পরে ঢেউ এসে বলে গেল “বিয়েন ভেনিদো আ মালাগা” ওয়েল কাম ট্যু মালাগা। ভেবেছিলাম বন্ধু নাজমুল হুদা লন্ডন থেকে হুট করে এসে আমাদের সঙ্গে যোগ দেবে কিন্তু সে সময় করে উঠতে পারেনি বিধায় তার আর আসা হলো না এবার। স্পেনে মোট ১৭টি স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল এবং পঞ্চাশটি প্রভিন্স রয়েছে। আন্দালুসিয়া স্পেনের স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চলগুলোর মধ্য সবচেয়ে জনবহুল এবং দ্বিতীয় বৃহত্তম অঞ্চল।

প্রতিটি স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চলের নিজস্ব রাজধানী রয়েছে যেমন আন্দালুসিয়া রাজধানীর নাম সেভিয়া। আন্দালুসিয়া আটটি প্রদেশে বিভক্ত। প্রদেশগুলোর নাম তাদের রাজধানী শহরের নামে রাখা হয়েছে: প্রশাসনিক বিভাগসমূহের চারটি প্রভিন্স (মালাগা, সেভিয়া, গ্রানাডা, কর্ডোভা) ঘুরে আসলাম। মালাগা প্রভিন্সে সময় কেটেছে এবার বেশি। এস্তোপনা, মার্বেয়া, রিভিয়েরা, মিসাছ, ফুয়েনসিরোলা, তোরেমলিনোস, মালাগা এবং নের্সা ছিল এবারের ভ্রমণের শহরগুলো। ছোট ছোট ভিডিও করেছি এবং তা বর্ণনাসহ ফেসবুকে ছেড়েছি। নিজে দেখা এবং অন্যকে দেখার সুযোগ করে দেয়া ছিল উদ্দেশ্য। কারো প্রশ্নে জানার আগ্রহ, কারো প্রশ্নে জ্বালাতন করার ভাব, কারো প্রশ্নে ভাবনা, কারো থেকে একটু শুকরিয়া পাওয়া ছিল সপ্তাহের ঘটনা প্রবাহের অংশ বিশেষ। অনেকে আবার সরাসরি জানতে চায় এতো দেশ বিদেশ ঘুরি তাহলে কাজকর্ম করি কখন। আমাদের আচার আচারণের অনেক কিছুই ফুটে ওঠে ফেসবুকের কমেন্টস পড়লে।

অনেক প্রশ্নই যা একান্ত ব্যক্তিকেন্দ্রিক তাও ফেসবুকে লেখা হয় যদিও ফেসবুকে মেসেঞ্জার রয়েছে যার ব্যবহার এতবছরেও শেখা হলো না। যাইহোক কিছু কিছু কাজ আছে যা করতে জায়গা মত যেতে হয় যেমন ক্লিন করা বা সরাসরি সার্ভিস যেখানে থাকা দরকার।

প্রযুক্তির যুগে টেলিফোন থাকলেই অনেক কাজ মোবাইলের মাধ্যমে যে করা সম্ভব তা হয়ত অনেকেই এখনও ভাবতে পারেনা। এখানেই গ্লোবাল নাগরিকত্বের সঙ্গে সিঙ্গেল নাগরিকত্বের ব্যবধান। যতক্ষণ আমি ইন্টারনেটের সঙ্গে যুক্ত, আমার কাজ করার বা আমার সঙ্গে যোগাযোগ করার সমস্যা সাধারণত কারো হওয়ার কথা নয়।

তাছাড়া আমার চিন্তাচেতনায় শেয়ার ভ্যালু কনসেপ্ট ব্যবহার করি কারণ আমি মনে করি, যে কোন ভালো জিনিস যদি আমি শেয়ার করি কেউ না কেউ এর দ্বারা উপকৃত হবে বা কিছু জানতে পারবে। সবার হয়ত আমার মত সুযোগ নেই অনেক কিছু দেখা বা জানার। আমার বেশ শখ স্পেনে নানা ধরনের গাছপালা ফল মূলের চাষ করা। বাংলাদেশে যে সব ফল, মূল এবং ফুল আমি দেখেছি তার সব কিছুই এখানে রোপণ করতে চাই। তাই খুঁজতে বেরিয়েছি, কোন আবহাওয়া পারফেক্ট হবে এধরণের গাছপালার জন্য তার সন্ধানে।

কয়েকটি জায়গা দেখে এলাম, এরপর ভালেন্সিয়া প্রভিন্স দেখব, তারপর সিদ্ধান্ত নেব, কোথায় মনের মত করে বসতবাড়ি তৈরি করা যায়। সুইডেন সামার খুবই সুন্দর তাই সামারে এখানেই থাকার ইচ্ছে রয়েছে। শীতে স্পেনের ওয়েদার ভালো সুইডেনের তুলনায় যার কারণে স্পেন ভ্রমণ এখন চলছে একটু বেশি।

স্পেনের আন্দালুসিয়ার পাশ দিয়ে গড়ে ওঠা শহরগুলোর একদিকে পাহাড় অন্যদিকে সাগরের ভিউ এবং সুন্দর ওয়েদার যা সত্যি মনোমুগ্ধকর।তারপর ক্ষেতের শাকসব্জী, ফলমূল সরাসরি গাছ থেকে তুলে খাওয়া এবং রান্না করা বাংলাদেশের মত করে সহধর্মীনির সঙ্গে, এক বিশাল মজার ব্যপার। জীবনের শেষের সময়গুলো যদি এমন করে কেটে যায় ক্ষতি কি তাতে। যাই হোক না কেন, যাই ঘটুক না কেন, চলবে কলম, দেব বর্ণনা, দেব অনুপ্রেরণা নিজেকে এবং অন্যকেও।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

ঘটনাপ্রবাহ : রহমান মৃধার কলাম

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×