ইতালিতে নাগরিকত্ব আইন পরিবর্তনের প্রস্তাব
jugantor
ইতালিতে নাগরিকত্ব আইন পরিবর্তনের প্রস্তাব

  জমির হোসেন, ইতালি থেকে  

০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৯:২৬:১৯  |  অনলাইন সংস্করণ

ইতালিতে বহুল আলোচিত নাগরিকত্ব আইন পরিবর্তনের প্রস্তাব উত্থাপন করা হয়েছে। ফের অভিবাসীরা যেন সহজভাবে পাসপোর্ট পেতে পারে সেজন্য বর্তমান জোট সরকার এ প্রস্তাবটি আইন সভায় উত্থাপন করেন।

বাংলাদেশি কোনো নাগরিক ইতালির নাগরিকত্বের আবেদন করলে সব ঠিক থাকলে পক্রিয়া শেষ হয়ে পাসপোর্ট হাতে পেতে আগে দুই বছর পরে নতুন আইনে ৪ বছর করা হয়। যা বাংলাদেশি প্রবাসীদের জন্য এ আইন চরম দুর্ভোগ বয়ে আনে। ফলে ইতালির নাগরিকত্ব পেতে হতাশা ভোগ করতে হচ্ছে বাংলাদেশিসহ অভিবাসীদের।

এর আগে ইতালির নাগরিকত্বের জন্য আবেদনের দুই বছর অথবা ৭৩০ দিন অপেক্ষার পর বাংলাদেশিরা নাগরিকত্ব পেতেন কিন্তু গত বছর ডিসেম্বরে কট্টর অভিবাসী বিরোধী সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মাত্তেও সালভিনি অভিবাসী ও নিরাপত্তা আইনে দুই বছরের সঙ্গে আরও দুই বছর বৃদ্ধি করেন ফলে একজন অভিবাসীকে ইতালিয়ান পাসপোর্ট পেতে প্রায় ১৪ বছর অপেক্ষা করতে হচ্ছে। এরমধ্যে কোন আইনি সমস্যা থাকলে নাগরিকত্ব অনিশ্চিত হয়ে পড়ে।

প্রবাসী বাংলাদেশিসহ বিভিন্ন দেশের অভিবাসীদের জন্য কিছু কিছু আইনের শিথিলতা আনার চেষ্টা করছেন বর্তমান জোট সরকার। ডেমোক্রেটিক পার্টি (পিডি) ও ফাইষ্টার মুভমেন্ট ( চিনকুয়ে স্তেল্লা) এরই ধারাবাহিকতায় সরকার ক্ষমতা গ্রহণের পর ইতালিয়ান নাগরিকত্ব সংস্কার আইনে সালভিনির অনুমোদিত প্রধান অংশগুলো সংশোধনের উদ্যোগ নেন।

গেল বছর সেপ্টেম্বরে এ বিষয়ে প্রাথমিকভাবে পদক্ষেপ নেয়ার পর অক্টোবরে ইতালির আইন সভায় (কামেরা ) সংবিধান সংস্কারের জন্য নতুন নিয়ম সম্পর্কিত প্রস্তাব উত্থাপন করেন।

এ ব্যাপারে প্রবাসী বাংলাদেশিরা মনে করেন যদি পূর্বের নিয়মে নাগরিকত্ব আইন ফিরে আসে তবে অনেকেই দ্রুত ইতালিয়ান পাসপোর্ট পেতে যাবেন। অন্যদিকে এ খবরটি অত্যন্ত আনন্দের সংবাদ হিসেবে বাংলাদেশিরা সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন। প্রসঙ্গত, সব কিছু ঠিক থাকলে নতুন নাগরিকত্ব আইনের চূড়ান্ত গেজেট আকারে প্রকাশের সম্ভাবনা রয়েছে।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশিদের কাগজপত্রে চরম অনিয়ম ও অর্থের বিনিময়ে নির্দিষ্ট সময়ের পূর্বে নাগরিকত্ব পাওয়ার একাধিক অভিযোগ রয়েছে। যার ফলে দুই বছরের পরিবর্তে চার বছর করা হয় নাগরিকত্ব আইন।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

ইতালিতে নাগরিকত্ব আইন পরিবর্তনের প্রস্তাব

 জমির হোসেন, ইতালি থেকে 
০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৭:২৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ইতালিতে বহুল আলোচিত নাগরিকত্ব আইন পরিবর্তনের প্রস্তাব উত্থাপন করা হয়েছে। ফের অভিবাসীরা যেন সহজভাবে পাসপোর্ট পেতে পারে সেজন্য বর্তমান জোট সরকার এ প্রস্তাবটি আইন সভায় উত্থাপন করেন।

বাংলাদেশি কোনো নাগরিক ইতালির নাগরিকত্বের আবেদন করলে সব ঠিক থাকলে পক্রিয়া শেষ হয়ে পাসপোর্ট হাতে পেতে আগে দুই বছর পরে নতুন আইনে ৪ বছর করা হয়। যা বাংলাদেশি প্রবাসীদের জন্য এ আইন চরম দুর্ভোগ বয়ে আনে। ফলে ইতালির নাগরিকত্ব পেতে হতাশা ভোগ করতে হচ্ছে বাংলাদেশিসহ অভিবাসীদের।

এর আগে ইতালির নাগরিকত্বের জন্য আবেদনের দুই বছর অথবা ৭৩০ দিন অপেক্ষার পর বাংলাদেশিরা নাগরিকত্ব পেতেন কিন্তু গত বছর ডিসেম্বরে কট্টর অভিবাসী বিরোধী সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মাত্তেও সালভিনি অভিবাসী ও নিরাপত্তা আইনে দুই বছরের সঙ্গে আরও দুই বছর বৃদ্ধি করেন ফলে একজন অভিবাসীকে ইতালিয়ান পাসপোর্ট পেতে প্রায় ১৪ বছর অপেক্ষা করতে হচ্ছে। এরমধ্যে কোন আইনি সমস্যা থাকলে নাগরিকত্ব অনিশ্চিত হয়ে পড়ে।

প্রবাসী বাংলাদেশিসহ বিভিন্ন দেশের অভিবাসীদের জন্য কিছু কিছু আইনের শিথিলতা আনার চেষ্টা করছেন বর্তমান জোট সরকার। ডেমোক্রেটিক পার্টি (পিডি) ও ফাইষ্টার মুভমেন্ট ( চিনকুয়ে স্তেল্লা) এরই ধারাবাহিকতায় সরকার ক্ষমতা গ্রহণের পর ইতালিয়ান নাগরিকত্ব সংস্কার আইনে সালভিনির অনুমোদিত প্রধান অংশগুলো সংশোধনের উদ্যোগ নেন।

গেল বছর সেপ্টেম্বরে এ বিষয়ে প্রাথমিকভাবে পদক্ষেপ নেয়ার পর অক্টোবরে ইতালির আইন সভায় (কামেরা ) সংবিধান সংস্কারের জন্য নতুন নিয়ম সম্পর্কিত প্রস্তাব উত্থাপন করেন।

এ ব্যাপারে প্রবাসী বাংলাদেশিরা মনে করেন যদি পূর্বের নিয়মে নাগরিকত্ব আইন ফিরে আসে তবে অনেকেই দ্রুত ইতালিয়ান পাসপোর্ট পেতে যাবেন। অন্যদিকে এ খবরটি অত্যন্ত আনন্দের সংবাদ হিসেবে বাংলাদেশিরা সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন। প্রসঙ্গত, সব কিছু ঠিক থাকলে নতুন নাগরিকত্ব আইনের চূড়ান্ত গেজেট আকারে প্রকাশের সম্ভাবনা রয়েছে।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশিদের কাগজপত্রে চরম অনিয়ম ও অর্থের বিনিময়ে নির্দিষ্ট সময়ের পূর্বে নাগরিকত্ব পাওয়ার একাধিক অভিযোগ রয়েছে। যার ফলে দুই বছরের পরিবর্তে চার বছর করা হয় নাগরিকত্ব আইন।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
 
আরও খবর