মালয়েশিয়ায় সশস্ত্র বাহিনী দিবস পালিত
jugantor
মালয়েশিয়ায় সশস্ত্র বাহিনী দিবস পালিত

  আহমাদুল কবির, মালয়েশিয়া থেকে  

১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১:৫৮:৩৩  |  অনলাইন সংস্করণ

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাস কর্তৃক সশস্ত্র বাহিনী দিবস উদযাপন করা হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে কুয়ালালামপুরের হোটেল রেনেসাঁয় প্রতিরক্ষা শাখার উদ্যোগে ও বাংলাদেশ হাইকমিশনের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় একটি সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

কমান্ডার নাহিদ শারমিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে বাংলাদেশ ও মালয়েশিয়ার জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়। এরপর মালয়েশিয়াতে নবনিযুক্ত প্রতিরক্ষা উপদেষ্টা কমডোর মোস্তাক আহমেদ সশস্ত্র বাহিনী দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, ‘জাতির পিতার আহ্বানে সাড়া দিয়ে সমগ্র বাঙালি মুক্তিকামী মানুষ যখন সশস্ত্র স্বাধীনতা সংগ্রামে ঝাঁপিয়ে পড়েন, তাদের সঙ্গে সশস্ত্র বাহিনীর বাঙালি সদস্যরাও যোগ দেন। পরবর্তীকালে ২১ নভেম্বর ১৯৭১ সালে প্রথমবারের মতো সেনা, নৌ এবং বিমান বাহিনী একযোগে দখলদার পাকিস্তান বাহিনীর বিরুদ্ধে সুসংগঠিত আক্রমণ রচনা করে, যার ফলশ্রুতিতে ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশ পৃথিবীর মানচিত্রে একটি স্বাধীন দেশ হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করে।’

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- মালয়েশিয়া আমর্ড ফোর্সেসের ডিএআইএসডি মহাপরিচালক লেফটেন্যান্ট জেনারেল দাতুক শেখ মোকসিন বিন শেখ হাসান, দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার শহীদুল ইসলাম, ডেপুটি হাইকমিশনার ওয়াহিদা আহমেদ, বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত, প্রতিরক্ষা অ্যাটাশে, মালয়েশিয়া সশস্ত্র বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, সুশীল সমাজ, সাংবাদিক এবং বাংলাদেশ কমিউনিটির গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, প্রবাসী বাংলাদেশি এবং বাংলাদেশ দূতাবাসের সব কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ অনেকে।

বক্তব্য শেষে ৪৮তম সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে কেক কাটা হয়। পরে অনুষ্ঠানে আগত অতিথিদের মধ্যে নৈশভোজ পরিবেশন করা হয়। নৈশভোজ চলাকালীন ‘উদীয়মান বাংলাদেশ এবং সশস্ত্র বাহিনীর উন্নয়ন’,‘সশস্ত্র বাহিনীর যৌথ অনুশীলন’ এবং সশস্ত্র বাহিনী দিবস ২০১৯ উপলক্ষে নির্মিত বিভিন্ন ভিডিও চিত্র প্রদর্শন করা হয়।

 

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

মালয়েশিয়ায় সশস্ত্র বাহিনী দিবস পালিত

 আহমাদুল কবির, মালয়েশিয়া থেকে 
১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৯:৫৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাস কর্তৃক সশস্ত্র বাহিনী দিবস উদযাপন করা হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে কুয়ালালামপুরের হোটেল রেনেসাঁয় প্রতিরক্ষা শাখার উদ্যোগে ও বাংলাদেশ হাইকমিশনের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় একটি সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

কমান্ডার নাহিদ শারমিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে বাংলাদেশ ও মালয়েশিয়ার জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়। এরপর মালয়েশিয়াতে নবনিযুক্ত প্রতিরক্ষা উপদেষ্টা কমডোর মোস্তাক আহমেদ সশস্ত্র বাহিনী দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, ‘জাতির পিতার আহ্বানে সাড়া দিয়ে সমগ্র বাঙালি মুক্তিকামী মানুষ যখন সশস্ত্র স্বাধীনতা সংগ্রামে ঝাঁপিয়ে পড়েন, তাদের সঙ্গে সশস্ত্র বাহিনীর বাঙালি সদস্যরাও যোগ দেন। পরবর্তীকালে ২১ নভেম্বর ১৯৭১ সালে প্রথমবারের মতো সেনা, নৌ এবং বিমান বাহিনী একযোগে দখলদার পাকিস্তান বাহিনীর বিরুদ্ধে সুসংগঠিত আক্রমণ রচনা করে, যার ফলশ্রুতিতে ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশ পৃথিবীর মানচিত্রে একটি স্বাধীন দেশ হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করে।’

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- মালয়েশিয়া আমর্ড ফোর্সেসের ডিএআইএসডি মহাপরিচালক লেফটেন্যান্ট জেনারেল দাতুক শেখ মোকসিন বিন শেখ হাসান, দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার শহীদুল ইসলাম, ডেপুটি হাইকমিশনার ওয়াহিদা আহমেদ, বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত, প্রতিরক্ষা অ্যাটাশে, মালয়েশিয়া সশস্ত্র বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, সুশীল সমাজ, সাংবাদিক এবং বাংলাদেশ কমিউনিটির গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, প্রবাসী বাংলাদেশি এবং বাংলাদেশ দূতাবাসের সব কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ অনেকে।

বক্তব্য শেষে ৪৮তম সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে কেক কাটা হয়। পরে অনুষ্ঠানে আগত অতিথিদের মধ্যে নৈশভোজ পরিবেশন করা হয়। নৈশভোজ চলাকালীন ‘উদীয়মান বাংলাদেশ এবং সশস্ত্র বাহিনীর উন্নয়ন’,‘সশস্ত্র বাহিনীর যৌথ অনুশীলন’ এবং সশস্ত্র বাহিনী দিবস ২০১৯ উপলক্ষে নির্মিত বিভিন্ন ভিডিও চিত্র প্রদর্শন করা হয়।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]