সৌদি থেকে ফিরলেন আরও ১৭৬ কর্মী
jugantor
সৌদি থেকে ফিরলেন আরও ১৭৬ কর্মী

  যুগান্তর ডেস্ক  

০৬ জানুয়ারি ২০২০, ১৩:১০:৩৭  |  অনলাইন সংস্করণ

সৌদি আরব থেকে আরও ১৭৬ জন কর্মী দেশে ফিরেছেন। শনিবার গভীর রাতে রাজধানীর শাহজালাল বিমানবন্দরে এসে পৌঁছান তারা। এ নিয়ে গত চার দিনে দেশে ফিরেছেন ৩১৭ কর্মী।

সৌদি ফেরত শহিদ মিয়া জানান, আড়াই বছর আগে সাড়ে চার লাখ টাকা খরচ করে সৌদি আরবে গিয়েছিলেন। তিনি সৌদি আরবে টাইলস ফিটিংয়ের কাজ করতেন। কর্মস্থল থেকে ঘরে ফেরার পথে তাকে পুলিশ আটক করে। তার গায়ে অফিস ড্রেসও ছিল। পায়ে ছিল টাইলস লাগানোর সিমেন্ট মাখানো জুতা। ওই অবস্থাতেই তাকে দেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে।

দেশে ফেরা ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সেলিনা আক্তার ও শামিমা বেগম গৃহকর্মী হিসেবে সৌদি আরব গিয়েছিলেন। তারা নিয়োগ কর্তার মারধরের শিকার হন। পরে তাদের দেশে পাঠানো হয়।

নারায়ণগঞ্জের সোনিয়া আক্তার ও খাদিজা, সিরাজগঞ্জের রাশেদাসহ ১৫ নারী প্রতারণার শিকার হয়েছে সেখানে। পরে তারা পালিয়ে আশ্রয় নেন জেদ্দায় বাংলাদেশ দূতাবাসের সেইফ হোমে। সেখান থেকে শনিবার তাদের দেশে পাঠানো হয়।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

সৌদি থেকে ফিরলেন আরও ১৭৬ কর্মী

 যুগান্তর ডেস্ক 
০৬ জানুয়ারি ২০২০, ০১:১০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সৌদি আরব থেকে আরও ১৭৬ জন কর্মী দেশে ফিরেছেন। শনিবার গভীর রাতে রাজধানীর শাহজালাল বিমানবন্দরে এসে পৌঁছান তারা।  এ নিয়ে গত চার দিনে দেশে ফিরেছেন ৩১৭ কর্মী।

সৌদি ফেরত শহিদ মিয়া জানান, আড়াই বছর আগে সাড়ে চার লাখ টাকা খরচ করে সৌদি আরবে গিয়েছিলেন।  তিনি সৌদি আরবে টাইলস ফিটিংয়ের কাজ করতেন। কর্মস্থল থেকে ঘরে ফেরার পথে তাকে পুলিশ আটক করে। তার গায়ে অফিস ড্রেসও ছিল। পায়ে ছিল টাইলস লাগানোর সিমেন্ট মাখানো জুতা। ওই অবস্থাতেই তাকে দেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে।

দেশে ফেরা ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সেলিনা আক্তার ও শামিমা বেগম গৃহকর্মী হিসেবে সৌদি আরব গিয়েছিলেন। তারা নিয়োগ কর্তার মারধরের শিকার হন। পরে তাদের দেশে পাঠানো হয়।

নারায়ণগঞ্জের সোনিয়া আক্তার ও খাদিজা, সিরাজগঞ্জের রাশেদাসহ ১৫ নারী প্রতারণার শিকার হয়েছে সেখানে। পরে তারা পালিয়ে আশ্রয় নেন জেদ্দায় বাংলাদেশ দূতাবাসের সেইফ হোমে। সেখান থেকে শনিবার তাদের দেশে পাঠানো হয়।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন