আমি কি একজন ভালো মানুষ?

  রহমান মৃধা, সুইডেন থেকে ১০ জানুয়ারি ২০২০, ১০:৪০ | অনলাইন সংস্করণ

মানুষ

আমরা মুসলিম জাতি রয়েছি সারাবিশ্ব জুড়ে। আমরা শান্তি প্রিয় মানুষ এবং আমাদের ধর্ম শান্তির। আমরা শেষ নবীর উম্মত। আমাদের আচরণ সবার থেকে ব্যতিক্রম। আমরা মানুষের সুখে-দুঃখে সাহায্যর হাত বাড়িয়ে দেই।

আমরা মানুষ জাতির অগ্রগামী পথচারী। আমরা পৃথিবীর নানা ধর্মে বিশ্বাসী মুসলিম, হিন্দু, খ্রিস্টান, ইহুদি, বৈদ্ধ জাতি হয়েছি বটে তবে মানুষ হতে পেরেছি কি? মানুষ বলতে কি বোঝানো হয়েছে? তার ব্যাখ্যা যেভাবে দেয়া হয়েছে তাতে মনে হয়না আমরা সেই সংজ্ঞায় উপনীত হতে পেরেছি।

একজন ভাল মানুষের চরিত্র কেমন হতে পারে? অনেকটা উপন্যাসের চরিত্রের মত। পড়ার সময় লেখকের বর্ণনায় আমাদের মনে একেকটা চরিত্র ভেসে বেড়ায়। আমরা দেখতে পাই মহাপুরুষদের চেহারা আমাদের কল্পনায়, তাঁকে দেখতে কেমন, কি ভঙ্গিতে সে কথা বলে ইত্যাদি।

আমাদের যেমন একটি ধারণা সৃষ্টি হয়ে আছে আরব জাতির ওপর আগ থেকে, তা যখন আমরা বাস্তবে দেখছি তখন কিন্তু আমরা হতাশ হচ্ছি। তারপরও হিউম্যান ইজ আ গ্রেট ইনফ্লুয়েন্সার টিল নাও। এখন কথা হচ্ছে এমন মনগড়া ইনফ্লুয়েন্স তৈরি করতে থাকলে সত্যিকার ভাল মানুষের ওপর লোকজনের যেটুকু আস্থা বাকি আছে তাও নষ্ট হয়ে যাবে।

আমাদের উচিত হবে সত্যকে জানা, চেনা এবং নিজের বিবেক দিয়ে বিচার করা। সৌদি থেকে আমাদেরকে তাড়ানো হচ্ছে। কারণ আমরা দরিদ্র মুসলিম। মালয়েশিয়া থেকে আমাদেরকে মেরে পিটিয়ে সরানো হচ্ছে কারণ আমরা তাদের দেশের কাজের লোক। আমাদের নারীদেরকে ধর্ষণ করে দেশে পাঠানো হচ্ছে কারণ গরীবের আবার ইজ্জত কিসের। কারা এসব করছে? আমাদের নিজ ধর্মের মানুষেরাই এটা করছে। আমরা না খেয়ে মরছি অন্যদিকে আমাদের মুসলিম ধনী দেশগুলোর মানুষ দিব্যি সুন্দর জীবন যাপন করছে। মুসলিম বিশ্বে নিজেদের গোলমালের কারণে আমরা দেশ ছেড়ে বিদেশ পাড়ি জমিয়েছি।

সত্য মিথ্যা বলে অন্যের দেশে বসবাস করছি। আমরা অর্থে দরিদ্র, আমাদের চরিত্রে মিথ্যা বলা কোনো অপরাধ নয় বলে আমরা মনে করি। আমরা মিথ্যা কথা বলি। আমরা দুর্নীতি করি, ঘুষ নেই এবং দেই।

আমরা সবধরনের অপকর্ম করি তবে আমরা বিদেশে হালাল খাই। আমাদের ধারণা নেই যে হালাল আমরা খাই তা কিভাবে হালাল। আমরা হালাল কাজ করিনা অথচ হালাল খাই। আমাদের দৈনন্দিন কর্মের ফলাফলকে বিশ্ব দেখছে।

কারণ আমরা সারাবিশ্বে ছড়িয়ে আছি। আমরা খুনের বদলে খুন করতে বিশ্বাসী। আমাদের সমস্যা হলে আমরা অন্যদেশে এসে বসবাস করি। আমরা অন্যদের সাহায্যে বেঁচে থাকতে পছন্দ করি সত্বেও আমরা সেই অন্যকে আবার ঘৃণা করি। আমরা নিজ দেশের মানুষকে নানা শ্রেণিতে বিভক্ত করে তাদের সঙ্গে সেভাবে আচরণ করি। আমরা শিয়া এবং সুন্নির ভেদাভেদে নিজেদেরকে দুই ভাগে বিভক্ত করেছি। আরব জাতির মধ্যে চলছে ঘৃণার রাজনীতি। শিয়া খুন করছে সুন্নিকে এবং সুন্নি খুন করছে শিয়াকে।

সৌদি আরব তার রাজ ভাণ্ডার ঠেকাতে সব সময় আমেরিকাকে ব্যবহার করছে। আমেরিকা বন্ধুদের বাঁচাতে চুক্তি অনুযায়ী কাজ করে চলেছে। আমরা মুখে বলছি মুসলিম জাতি এক হও অন্তরে বলছি উল্টা। আমরা নিজেদেরকে জমিনের শ্রেষ্ঠ মানুষ বলে মনে করি। আমরা নিজের বাবা-মাকে সরিয়ে শ্বশুর শাশুড়িকে ভালোবাসি। আমরা আপন ভাই বোনকে দূরে সরিয়ে শালা-শালীকে বরণ করি। আমরা নিজেদের ধর্মকে বিশ্বের সেরা ধর্ম বলে মনে করি। আমরা কখনও জিজ্ঞেস করিনা অন্যদের কি ধারণা আমাদের সম্পর্কে। এতক্ষণ হলো আমাদেরকে নিয়ে। এখন দেখা যাক আমার অবস্থা কি! আমি একদিন বাংলাদেশ ছেড়ে, লেখাপড়া করতে এবং সেই সঙ্গে ভালো মানুষ হতে সুইডেনে এসেছিলাম পকেটে পাঁচটি ডলার নিয়ে।

সেই পাঁচটি ডলার এয়ারপোর্ট থেকে স্টকহোম সেন্টারে আসতেই সেদিন শেষ হয়ে গিয়েছিল। সেই থেকে প্রবাস জীবন শুরু। নতুন জীবন শুরুর পথে অনেক দেখেছি, অনেক শিখেছি। শুধু পাঁচ ডলার নয় হয়ত পাঁচ মিলিয়ন ডলার রোজগার করেছি। জিরো থেকে হিরো হতে যারা সাহায্য করেছে তাদের ভুলিনি। আমি বেইমান নই, আমি জ্ঞান হারা নই, আমি নেমকহারাম নই, আমি পরশ্রীকাতর নই।

আমি অ্যাডজাস্ট করে চলতে শিখেছি। আমি সত্য কথা বলতে শিখেছি। আমি ভয়কে মোকাবেলা করে জয় করতে শিখেছি। আমি স্রষ্টাকে বিশ্বাস করি এবং তাঁকে সবসময় স্মরণ করি। আমি যেমন নিতে শিখেছি তেমন দিতেও শিখেছি। আমার আত্মার সঙ্গে আমার ভালো হৃদ্যতা রয়েছে। আমি ভালোবাসি মানুষকে। আমার হৃদয় অন্যের বিপদে সাড়া দেয়। আমার মধ্যে মায়া আছে। আমি কি বলতে পারি আমি একজন ভালো মানুষ!

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

ঘটনাপ্রবাহ : রহমান মৃধার কলাম

আরও

'কোভিড-১৯' সর্বশেষ আপডেট

# আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ১৬৪ ৩৩ ১৭
বিশ্ব ১৪,৩১,৭০৬ ৩,০২,১৫০ ৮২,০৮০
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত