যাবার বেলা শুধু স্মৃতিটাই রেখে চলে গেল

  রহমান মৃধা, সুইডেন থেকে ১৭ জানুয়ারি ২০২০, ১৭:১০ | অনলাইন সংস্করণ

স্মৃতি

নূরের চেহারায় আমার সেই ছোট ভাই সেলিমের ছায়া দেখেছিলাম যেমনটি দেখেছিলেন আমার বাবা-মা সেলিমকে নিয়ে।

সেলিম সুস্থ হয়ে আস্তে আস্তে কি সুন্দর কি চমৎকার হয়ে বড় হতে থাকে। আমার পরিবারের সবচেয়ে মেধাবী ছিল সে। তার বিজ্ঞান শিক্ষার প্রতি তার মেধা ছিল অসাধারণ। তৎকালীন এলাকার সবচেয়ে মেধাবী শিক্ষার্থী বলে পরিচিত এক নাম সেলিম। তার জীবনের ইতি ছোট বেলায় ঘটেনি তবে তার জীবনে অন্ধকার নেমে আসে ১৯৮৪ সালের ২ আগস্টে। বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে অকাল মৃত্যু হয় তার। মায়ের কান্নায় সেদিন পৃথিবী কেঁদেছিল।

আজ অনেকদিন পর সেই পুরনো ব্যথাটি মনের মাঝে চেপে বসেছে। নূর আজ সেই অতীতের স্মৃতি মনে করে দিয়ে গেল। গতকাল নূরের হাসপাতালের ভর্তির পর বাল্টিক সাগরের পাড় দিয়ে হাঁটতে নূরকে নিয়ে স্বপ্ন দেখেছিলাম। নূর সুস্থ হবে, বড় হয়ে একজন ভাল মানুষ হবে। তার জীবনের স্টোরি নতুন প্রজন্ম জানবে। আজ সকাল হতেই আমার সে স্বপ্ন ভেঙ্গে গেল।

সামান্য একটু সময় আমার ভালোবাসা দিয়ে আমি তার এবং তার বাবা-মার পাশে দাঁড়িয়েছিলাম। মায়ার বাঁধন ছিন্ন করে না ফেরার দেশে চলে গেল নূর মোমিন। গতরাত ৪:২০ মিনিটের সময় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করে সে। হে আল্লাহ তার পিতা-মাতাকে এ শোক সইবার শক্তি দান করুন। এত অল্প সময়ের মাঝে তারে আমি এতটা ভালবেসেছি তা এখন উপলব্ধি করছি এই মুহুর্তে নিস্তব্ধ নিরবে।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

ঘটনাপ্রবাহ : রহমান মৃধার কলাম

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

 
×