বাংলাদেশের উন্নয়ন অভিযাত্রা বিশ্ববাসীর কাছে মিরাকল

  জমির হোসেন, ইতালি থেকে ২৩ মার্চ ২০১৮, ১৭:২৬ | অনলাইন সংস্করণ

ইতালি

প্রথম বারের মতো বাংলাদেশ একটি স্বল্পোন্নত দেশ হতে উত্তরণের যোগ্যতা অর্জন করায় ইতালিতে বাংলাদেশ দূতাবাস রোম মিশনের উদ্যোগে একটি সেমিনারের আয়োজন করা হয়। এ উপলক্ষে স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টায় ইতালির বিখ্যাত লা সাপিয়েন্সা বিশ্ববিদ্যালয়ে ফিলোসফিয়া আউলা পালেওগ্রাফিয়ার একটি হলরুমে এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইতালিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আবদুস সোবাহান সিকদার। তিনি বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়ন অভিযাত্রা বিশ্ববাসীর কাছে আশ্চর্য (মিরাকেল)। ১৯৭১ সালের যুদ্ধবিধ্বস্ত একটি দেশের ওপর দাঁড়িয়ে বাংলাদেশের উন্নয়নের মহানায়ক বঙ্গবন্ধু একটি সোনার বাংলাদেশ গড়ার যে স্বপ্ন দেখেছিলেন। সেই স্বপ্ন আজ বাস্তবে রূপান্তরিত হচ্ছে বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে, যা বাংলাদেশের জন্য একটি গর্বের বিষয়।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সুযোগ্য নেতৃত্বে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষা করে ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশে পরিণত হওয়ার জন্য দেশ ও দেশের বাইরে সবাইকে তিনি একযোগে কাজ করার আহ্বান জানান।

সেমিনারে স্বল্পোন্নত দেশ হতে বাংলাদেশের উত্তরণের তাৎপর্য এবং করণীয়বিষয়ক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন দূতাবাসের ইকোনমিক কাউন্সিলর মানস মিত্র। তিনি বলেন, উন্নয়ন নীতিমালাবিষয়ক (কমিটি ফর ডেভোলাপমেন্ট পলিসি-সিডিপি) স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা হতে বেরিয়ে আসার জন্য তিনটি সূচক ব্যবহার করে থাকে। প্রথম দেশ হিসেবে বাংলাদেশ সেই তিনটি সূচকেরই মানদণ্ড অতিক্রমের সক্ষমতা অর্জন করেছে। ফলে গত ১৫ মার্চ নিউইয়র্কে জাতিসংঘের অর্থনৈতিক এবং সামাজিক কাউন্সিল (ইকোনমিক অ্যান্ড সোস্যাল কাউন্সিল, ইসিওএসওসি) এর উন্নয়ন নীতিমালাবিষয়ক (কমিটি ফর ডেভেলপমেন্ট পলিসি-সিডিপি) বাংলাদেশকে স্বল্পোন্নত দেশ হতে উত্তরণের যোগ্যতা লাভসংক্রান্ত একটি ঘোষণা প্রদান করেন। যা দেশের জন্য সমসাময়িক উন্নয়ন অভিযাত্রার একটি মাইলফলক দৃষ্টান্ত।

এ সময় সেমিনারে বাংলাদেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে যত উন্নয়ন রয়েছে তা তুলে ধরা হয়। পাশাপাশি সবুজের দেশ বাংলাদেশে ভ্রমণের জন্য অতিথিদের আহ্বান করা হয়।

সেমিনারে লা সাপিয়েন্সা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর আনতোনেল্লো বিয়াগিনি, প্রফেসর মারিয়ানা ফেরারা, তিতো মারসিসহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষকরা, দূতাবাসের হেড অব চ্যান্সেলর ও কাউন্সিলর রফিকুল আলম, প্রথম সচিব আরফানুল হক, ইরিন ইসলাম জুলি, সালে আহমেদ, প্রশাসনিক কর্মকর্তা শেখ শামীম আহমেদ ছাড়াও পিএইচডি অধ্যয়নরত গবেষক, বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রী, রোমের গণ্যমান্য ব্যক্তি, বাংলাদেশ কমিউনিটির প্রতিনিধি, ইতালি ও বাংলাদেশর সাংবাদিকরা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter