পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতি ফিনল্যান্ডের খোলা চিঠি

  ড. মো. মঞ্জুরে মওলা, ফিনল্যান্ড থেকে ২০ জুন ২০২০, ০৩:৪৭:৪৪ | অনলাইন সংস্করণ

ফিনল্যান্ডের হেলসিংকিতে অবস্থিত ইউনিভার্সিটি অব আর্ট অ্যান্ড ডিজাইন। ছবি: ফ্যাশনিস্তা

ফিনল্যান্ডে বিভিন্ন স্তরের শিক্ষা লাভের জন্য বাংলাদেশি ছাত্র-ছাত্রীদের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। ছাত্র-ছাত্রীদের সবাই ব্যক্তিগত প্রচেষ্টা ও মেধার ওপর নির্ভর করেই ফিনল্যান্ডে পড়তে আসেন। বাংলাদেশে ফিনল্যান্ডের দূতাবাস কিংবা কনস্যুলেট অফিস না থাকার কারণে ছাত্র-ছাত্রীদের পোহাতে হয় চরম দুর্ভোগ।

কেননা, অর্থনৈতিক ঝুঁকি, শারীরিক ও মানসিক ঝুঁকিকে সামনে রেখে ছাত্র-ছাত্রীরা ফিনল্যান্ডে পড়াশুনা করার জন্য ভারতে যেতে হয় দুইবার। প্রথম ধাপে ছাত্র-ছাত্রীদের সশরীরে পড়াশুনার দরখাস্ত জমা দিতে হয় ভারতের ফিনিশ দূতাবাস কর্তৃক নিযুক্ত ভিএফএস গ্লোবাল সার্ভিস সেন্টারে।

যদিও ঢাকাতে অবস্থিত ভিএফএস-এর শাখা পৃথিবীর অন্যান্য দেশে (যেমন যুক্তরাজ্য, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, অস্ট্রিয়া, ডেনমার্ক) পড়াশুনা করতে ইচ্ছুক বাংলাদেশি ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য সেবা প্রদান করে বা করে থাকে।

দ্বিতীয় ধাপে সুদূর দিল্লিতে অবস্থিত ফিনল্যান্ডের দূতাবাস থেকে গ্রহণযোগ্য দরখাস্তকারী বাংলাদেশি ছাত্র-ছাত্রীদের নিতে হয় রেসিডেন্ট পারমিট কার্ড। এছাড়াও ফিনল্যান্ডে পড়তে আসা ছাত্র-ছাত্রীদের ভাষ্যনুযায়ী ভারতের ভিসা পেতেও তারা সম্মুখীন হন বিভিন্ন ঝামেলায়।

উপরে বর্ণিত ফিনল্যান্ডে পড়তে ইচ্ছুক বাংলাদেশি ছাত্র-ছাত্রীদের সমস্যাকে তুলে ধরার মাধ্যমে তা লাঘব করার জন্য বাংলাদেশ ডক্টরেট প্লাটফর্ম ইন ফিনল্যান্ড (রেজিঃ আর-বিডিপিএফ, আর ওয়াই ৩১১৭০৩২-৮) গত ১৬ জুন ড. মো. মঞ্জুরে মওলা, ড. সাইদুল কাজী, ড. এএইচএম সামসুজ্জোহা এবং ড. সাইফুল আলম স্বাক্ষরিত একটি চিঠি (ই-মেইল) প্রেরণ করেছে ফিনল্যান্ডের পররাষ্ট্র মন্ত্রীর কাছে।

চিঠিতে পরিষ্কারভাবে উল্লেখ করা হয়েছে যে, বাংলাদেশে অবস্থিত নরডিক যে কোন দেশের দূতাবাস বা ঢাকাতে অবস্থিত ভিএফএস গ্লোবাল শাখা বাংলাদেশি ছাত্র-ছাত্রীদের ফিনল্যান্ডে পড়াশুনা করার রেসিডেন্ট পারমিট সংক্রান্ত সেবা প্রদান করলে আগামীতে ফিনল্যান্ডে পড়তে ইচ্ছুক বাংলাদেশি ছাত্র-ছাত্রীদের কোনো প্রকার ঝামেলা বা ঝুঁকিতে পড়তে হবে না।

বাংলাদেশ ডক্টরেট প্লাটফর্ম ইন ফিনল্যান্ড বিশ্বাস করে বাংলাদেশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুন্দর দৃষ্টিভঙ্গি ফিনল্যান্ডে পড়তে ইচ্ছুক বাংলাদেশি ছাত্র-ছাত্রীদের সমস্যাকে কিছুটা হলেও লাঘব করতে সহায়ক ভূমিকা পালন করতে পারে।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত