টরন্টোতে ‘সবজি চাষের সমস্যা ও উত্তরণের উপায়’ নিয়ে জুম কর্মশালা
jugantor
টরন্টোতে ‘সবজি চাষের সমস্যা ও উত্তরণের উপায়’ নিয়ে জুম কর্মশালা

  রাজীব আহসান, কানাডা থেকে  

০৩ জুলাই ২০২০, ২০:৩৩:২০  |  অনলাইন সংস্করণ

কানাডার টরন্টোতে কানাডিয়ান সেন্টার ফর ইনফরমেশন অ্যান্ড নলেজ ‘সবজি চাষে বিদ্যমান সমস্যা ও উত্তরণের উপায়’ নিয়ে অনলাইনে জুমের মাধ্যমে এক কর্মশালার আয়োজন করে। ২৮ জুন অনুষ্ঠিত এ কর্মশালায় বৃহত্তর টরন্টোর বেশ কিছুসংখ্যক ব্যক্তি অংশ নেন। এতে বলা হয়, গ্রীষ্মকালে টরন্টোয় দেশীয় সবজি চাষে বিপ্লব ঘটিয়েছেন এখানকার বাগানীরা।

আয়োজক সংগঠনের পক্ষ থেকে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সংগঠনটির প্রেসিডেন্ট ইমাম উদ্দিনের সঞ্চালনায় কর্মশালায় বিশেষজ্ঞ হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষিবিদ কামাল মুস্তফা হিমু, ড. মোহাম্মদ আলি ও গোলাম আজম চৌধুরী।

আলোচনায় অংশ নেন উন্নয়নকর্মী রীনা সেনগুপ্তা, কানাডিয়ান সেন্টারের পরিচালক তৌহিদা চৌধুরী, বাগানী হাফিজুর রহমান, সৈয়দ হাসিবুর রশিদ, জাহিদুল মোল্লা, শামিমা ইসলাম, রওশন পারভীন, তানভীর সুলতান প্রমুখ।

কৃষি বিশেষজ্ঞরা বলেন, পরিবেশের সঙ্গে মিল রেখে বাড়ির আঙ্গিনা, বারান্দায় টবে, সিটি কর্পোরেশনের বরাদ্দকৃত জায়গায় সবজি চাষে শুধু ফসল উৎপাদনই হয় না, এতে প্রচুর আনন্দ ও মানসিক প্রশান্তি পাওয়া যায়।

এ জন্য জানা প্রয়োজন কানাডায় সবজি চাষে সার ও মাটির ব্যবহার, পোকা-মাকড় দমনের উপায়, কীভাবে অল্প জায়গায় বেশি শাক-সবজি উৎপাদন ও কম টাকায় টব তৈরি করা যায়, সবজি চাষের উপযুক্ত সময়সহ বিভিন্ন তথ্য। কানাডায় গ্রীষ্মকালে সবজি উৎপাদনে বাগানীরা যে সব সমস্যার সম্মুখীন হন কর্মশালায় সে সব প্রশ্নের উত্তর দেন কৃষিবিদরা।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

টরন্টোতে ‘সবজি চাষের সমস্যা ও উত্তরণের উপায়’ নিয়ে জুম কর্মশালা

 রাজীব আহসান, কানাডা থেকে 
০৩ জুলাই ২০২০, ০৮:৩৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কানাডার টরন্টোতে কানাডিয়ান সেন্টার ফর ইনফরমেশন অ্যান্ড নলেজ ‘সবজি চাষে বিদ্যমান সমস্যা ও উত্তরণের উপায়’ নিয়ে অনলাইনে জুমের মাধ্যমে এক কর্মশালার আয়োজন করে। ২৮ জুন অনুষ্ঠিত এ কর্মশালায় বৃহত্তর টরন্টোর বেশ কিছুসংখ্যক ব্যক্তি অংশ নেন। এতে বলা হয়, গ্রীষ্মকালে টরন্টোয় দেশীয় সবজি চাষে বিপ্লব ঘটিয়েছেন এখানকার বাগানীরা।

আয়োজক সংগঠনের পক্ষ থেকে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সংগঠনটির প্রেসিডেন্ট ইমাম উদ্দিনের সঞ্চালনায় কর্মশালায় বিশেষজ্ঞ হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষিবিদ কামাল মুস্তফা হিমু, ড. মোহাম্মদ আলি ও গোলাম আজম চৌধুরী।

আলোচনায় অংশ নেন উন্নয়নকর্মী রীনা সেনগুপ্তা, কানাডিয়ান সেন্টারের পরিচালক তৌহিদা চৌধুরী, বাগানী হাফিজুর রহমান, সৈয়দ হাসিবুর রশিদ, জাহিদুল মোল্লা, শামিমা ইসলাম, রওশন পারভীন, তানভীর সুলতান প্রমুখ।

কৃষি বিশেষজ্ঞরা বলেন, পরিবেশের সঙ্গে মিল রেখে বাড়ির আঙ্গিনা, বারান্দায় টবে, সিটি কর্পোরেশনের বরাদ্দকৃত জায়গায় সবজি চাষে শুধু ফসল উৎপাদনই হয় না, এতে প্রচুর আনন্দ ও মানসিক প্রশান্তি পাওয়া যায়।

এ জন্য জানা প্রয়োজন কানাডায় সবজি চাষে সার ও মাটির ব্যবহার, পোকা-মাকড় দমনের উপায়, কীভাবে অল্প জায়গায় বেশি শাক-সবজি উৎপাদন ও কম টাকায় টব তৈরি করা যায়, সবজি চাষের উপযুক্ত সময়সহ বিভিন্ন তথ্য। কানাডায় গ্রীষ্মকালে সবজি উৎপাদনে বাগানীরা যে সব সমস্যার সম্মুখীন হন কর্মশালায় সে সব প্রশ্নের উত্তর দেন কৃষিবিদরা।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]