কানাডার বিভিন্ন সিটিতে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক হচ্ছে
jugantor
কানাডার বিভিন্ন সিটিতে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক হচ্ছে

  রাজীব আহসান, কানাডা থেকে  

১০ জুলাই ২০২০, ২২:০৫:৩৭  |  অনলাইন সংস্করণ

বৈশ্বিক মহামারী করোনা যেমনি ক্ষতিগ্রস্ত করেছে কানাডার অর্থনীতিকে তেমনি স্বাস্থ্য নিয়েও শংকিত রয়েছে কানাডার জনসাধারণ। মৃতের সংখ্যা কমে এলেও আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে।

একদিকে স্বাস্থ্যবিধি আর অন্যদিকে অর্থনীতির চাকা সচল রাখা নিয়ে উভয় সংকটে রয়েছে সরকার প্রধান ও নীতিনির্ধারকেরা।

কানাডার আলবার্টার ক্যালগেরির মেয়র নাহিদ নেনশি ক্যালগেরিবাসীদের উদ্দেশ্য হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ক্যালগারিয়ানরা যদি মাস্ক পরিধান করার জন্য নিজেরা সতর্ক না হয় তবে দুই সপ্তাহের মধ্যে শহরে সমস্ত জনসাধারণের অভ্যন্তরীণ জায়গাগুলিতে মাস্ক বাধ্যতামূলক করা হতে পারে।

ক্যালগেরির স্থানীয় গণমাধ্যম ‘ক্যালগেরি হেরাল্ড’ জানায়, মেয়র নেনশি বলেন, তিনটি কারণে মাস্ক পরা উচিত, জনসাধারণের মধ্যে দূরত্ব বজায় রাখা এবং সঠিক স্বাস্থ্যবিধি বজায় রাখার পাশাপাশি কোভিড-১৯ ভাইরাসের সংক্রমণকে সীমাবদ্ধ রাখবে।

ইতিমধ্যে টরন্টোয় বাধ্যতামূলক মাস্ক পরা কার্যকর করা হয়েছে। ফলে অভ্যন্তরীণ সরকারি জায়গা- যেমন স্টোর, মল, উপাসনা স্থান এবং বিনোদন স্থানগুলিতে মাস্ক পরতে হবে। এটি স্কুল বা পোস্ট-সেকেন্ডারি সংস্থা, কনডো ও অ্যাপার্টমেন্ট ভবন বা হাসপাতালে প্রয়োগ হবে না।

এছাড়া টরন্টোর পাবলিক ট্রানজিট সিস্টেমে মাস্কগুলিও বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। অটোয়ার সব অভ্যন্তরীণ পাবলিক স্পেসে মাস্ক বাধ্যতামূলক।

কানাডার স্থানীয় গণমাধ্যম সিটিভি জানিয়েছে, ২৭ জুলাইয়ের মধ্যে মন্ট্রিয়ালের অভ্যন্তরীণ পাবলিক স্পেসগুলিতে মাস্ক বাধ্যতামূলক করা হবে। মন্ট্রিয়ালের মেয়র ভেলারি প্ল্যান্ট জানিয়েছেন জুলাই থেকেই পাবলিক স্পেসে মাস্ক বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে। মন্ট্রিয়ালের সমস্ত অভ্যন্তরীণ জায়গাগুলি যেগুলি জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত রয়েছে তা শিগগিরই মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক হতে চলেছে। মেয়র ভেলারি প্লান্ট তার টুইটার এবং ফেসবুক অ্যাকাউন্টে এই পদক্ষেপের ঘোষণা দিয়েছেন।

সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী কানাডার করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৬ হাজার ৭৪২, মৃতের সংখ্যা ৮ হাজার ৭৪৬ এবং সুস্থ হয়েছেন ৭০ হাজার ৫০৩ জন।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

কানাডার বিভিন্ন সিটিতে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক হচ্ছে

 রাজীব আহসান, কানাডা থেকে 
১০ জুলাই ২০২০, ১০:০৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বৈশ্বিক মহামারী করোনা যেমনি ক্ষতিগ্রস্ত করেছে কানাডার অর্থনীতিকে তেমনি স্বাস্থ্য নিয়েও শংকিত রয়েছে কানাডার জনসাধারণ। মৃতের সংখ্যা কমে এলেও আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে।

একদিকে স্বাস্থ্যবিধি আর অন্যদিকে অর্থনীতির চাকা সচল রাখা নিয়ে উভয় সংকটে রয়েছে সরকার প্রধান ও নীতিনির্ধারকেরা।

কানাডার আলবার্টার ক্যালগেরির মেয়র নাহিদ নেনশি ক্যালগেরিবাসীদের উদ্দেশ্য হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ক্যালগারিয়ানরা যদি মাস্ক পরিধান করার জন্য নিজেরা সতর্ক না হয় তবে দুই সপ্তাহের মধ্যে শহরে সমস্ত জনসাধারণের অভ্যন্তরীণ জায়গাগুলিতে মাস্ক বাধ্যতামূলক করা হতে পারে।

ক্যালগেরির স্থানীয় গণমাধ্যম ‘ক্যালগেরি হেরাল্ড’ জানায়, মেয়র নেনশি বলেন, তিনটি কারণে মাস্ক পরা উচিত, জনসাধারণের মধ্যে দূরত্ব বজায় রাখা এবং সঠিক স্বাস্থ্যবিধি বজায় রাখার পাশাপাশি কোভিড-১৯ ভাইরাসের সংক্রমণকে সীমাবদ্ধ রাখবে।

ইতিমধ্যে টরন্টোয় বাধ্যতামূলক মাস্ক পরা কার্যকর করা হয়েছে। ফলে অভ্যন্তরীণ সরকারি জায়গা- যেমন স্টোর, মল, উপাসনা স্থান এবং বিনোদন স্থানগুলিতে মাস্ক পরতে হবে। এটি স্কুল বা পোস্ট-সেকেন্ডারি সংস্থা, কনডো ও অ্যাপার্টমেন্ট ভবন বা হাসপাতালে প্রয়োগ হবে না।

এছাড়া টরন্টোর পাবলিক ট্রানজিট সিস্টেমে মাস্কগুলিও বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। অটোয়ার সব অভ্যন্তরীণ পাবলিক স্পেসে মাস্ক বাধ্যতামূলক।

কানাডার স্থানীয় গণমাধ্যম সিটিভি জানিয়েছে, ২৭ জুলাইয়ের মধ্যে মন্ট্রিয়ালের অভ্যন্তরীণ পাবলিক স্পেসগুলিতে মাস্ক বাধ্যতামূলক করা হবে। মন্ট্রিয়ালের মেয়র ভেলারি প্ল্যান্ট জানিয়েছেন জুলাই থেকেই পাবলিক স্পেসে মাস্ক বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে। মন্ট্রিয়ালের সমস্ত অভ্যন্তরীণ জায়গাগুলি যেগুলি জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত রয়েছে তা শিগগিরই মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক হতে চলেছে। মেয়র ভেলারি প্লান্ট তার টুইটার এবং ফেসবুক অ্যাকাউন্টে এই পদক্ষেপের ঘোষণা দিয়েছেন।

সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী কানাডার করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৬ হাজার ৭৪২, মৃতের সংখ্যা ৮ হাজার ৭৪৬ এবং সুস্থ হয়েছেন ৭০ হাজার ৫০৩ জন।
 

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]