বাংলাদেশি ইয়াসিনকে সম্মান জানাল কাতারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়
jugantor
বাংলাদেশি ইয়াসিনকে সম্মান জানাল কাতারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়

  কাজী শামীম, কাতার থেকে  

২১ অক্টোবর ২০২০, ২২:৩৬:১১  |  অনলাইন সংস্করণ

দোহায় ব্যস্ততম সড়কে একজন বয়স্ক প্রতিবন্ধীকে রাস্তা পারাপারে সহযোগিতা করায় ফুড ডেলিভারির একজন মোটরবাইক রাইডারের ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। অবশেষে কাতার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এই মানবিক কাজের জন্য সম্মান জানিয়েছে তাকে। এতে তিনি বাংলাদেশিদের সম্মান বৃদ্ধি করেছেন।

কাতারের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বাংলাদেশের লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামের মোহাম্মদ ইয়াসিন ২০১৮ সালে জীবিকার তাগিদে কাতার আসেন। তারপর দীর্ঘদিন নিজের সঙ্গে সংগ্রাম করে একটি মোটরসাইকেলের লাইসেন্স নেন এবং ফুড ডেলিভারি এজেন্ট “তালাবাতে” কর্মজীবন শুরু করেন। অন্য সবার মতো নিজের মতো করে কষ্ট করে উপার্জন করার চেষ্টা করে যাচ্ছেন বাইক রাইডার ইয়াসিন।

গত সপ্তাহে কাতার মিউজিয়ামের পাশে ব্যস্ত হাইওয়ে রোডে এক প্রতিবন্ধী বৃদ্ধকে রাস্তা পার করে দিচ্ছেন তালাবাত কর্মী ইয়াসিন- এমন দৃশ্য দেখে কেউ একজন পিকচার নেন এবং সোস্যাল মিডিয়াতে আপলোড দেন। পরবর্তীতে কাতার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নজরে আসে ভাইরাল হওয়া মানবিক ছবিগুলো।

তালাবাতের তৈরিকৃত একটি ছোট ভিডিওতে ইয়াসিন রাস্তায় এবং তারপরে কী ঘটেছিল তা বর্ণনা করেছেন এবং ভিডিওটি কাতার ট্রিবিউনে প্রেরণ করেন। এতে ইয়াসিন বলেন, লোকটি কোথায় থেকে এসেছে তা আমি নিশ্চিত নই। আমি ম্যাকডোনাল্ডস থেকে একটি অর্ডার রিসিভ করছিলাম, তখন পাশের রাস্তা বেশ ঝুঁকিপূর্ণ ও দ্রুত চলমান রাস্তায় একজন প্রতিবন্ধী বৃদ্ধ রাস্তা পার হতে চেষ্টা করছিলেন; কিন্তু তিনি পেছন থেকে কিছুই দেখতে পান না। তখন আমি তাকে সাহায্য করতে দ্বিধা করিনি, আমি আমার মোটরবাইকটি রাস্তার পাশে পার্ক করেছিলাম এবং তাকে জিজ্ঞাসা করলাম তিনি কোথায় যেতে চান। তিনি রাস্তার শেষের দিকে ইঙ্গিত করলেন এবং আমি তাকে রাস্তাটি অতিক্রম করতে সহায়তা করেছি। ভদ্রলোক কৃতজ্ঞতার সঙ্গে আমাকে ধন্যবাদ জানালেন।

ইয়াসিন বলেন, ব্যক্তিটিকে সহায়তার ছবিগুলো অজান্তেই কেউ ক্লিক করেছিল এবং গত সপ্তাহে সোস্যাল মিডিয়ায় সেগুলো আপলোড করেছিল, সেখানে ছবিগুলো ভাইরাল হয়েছিল।

ইয়াসিন আরও জানান, এ ঘটনার পর তিনি কাতারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ফোন পেয়েছিলেন।আমি যা করেছি তার জন্য তারা আমাকে ধন্যবাদ জানায় এবং উপহার হিসাবে তারা আমাকে একটি হেলমেট, একজোড়া জুতা ও একটি জ্যাকেট দিয়েছে।

একজন প্রবাসী বাংলাদেশি কর্মীর মানবিক কাজের প্রশংসা করে কাতারের বাংলাদেশ দূতাবাসের শ্রম কাউন্সিলর ড. মুহাম্মদ মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, আমার পূর্বের কর্মস্থল জাপানে দেখেছি মানুষ একে-অপরকে সাহায্যের মনোভাব নিয়ে সবসময় নিজেকে প্রস্তুত রাখে, যা কাতারে এসেও পেলাম। আমাদের রাষ্ট্রদূত মহোদয় জসিম উদ্দিনের নেতৃত্বে কাতারে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি আরও উজ্জ্বল করতে দূতাবাস নিয়মিত তৎপর। আমাদের বাংলাদেশি নাগরিক মোহাম্মদ ইয়াসিনের একজন প্রতিবন্ধীকে রাস্তা পারাপারে সাহায্য করার বিষয়টি আমার নজরে এসেছে; যা কাতারে বাংলাদেশের ইমেজ বিল্ডআপে সহায়তা করবে। কাতারের জনগণ ও কাতার সরকারের কাছে আমাদের বাংলাদেশি নাগরিকদের নিয়ে সুন্দর ধারণা সৃষ্টি হবে। সর্বোপরি ইয়াসিনের এ মানবিক কাজ বাংলাদেশের জন্য গৌরবের বিষয়।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

বাংলাদেশি ইয়াসিনকে সম্মান জানাল কাতারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়

 কাজী শামীম, কাতার থেকে 
২১ অক্টোবর ২০২০, ১০:৩৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দোহায় ব্যস্ততম সড়কে একজন বয়স্ক প্রতিবন্ধীকে রাস্তা পারাপারে সহযোগিতা করায় ফুড ডেলিভারির একজন মোটরবাইক রাইডারের ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। অবশেষে কাতার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এই মানবিক কাজের জন্য সম্মান জানিয়েছে তাকে। এতে তিনি বাংলাদেশিদের সম্মান বৃদ্ধি করেছেন।

কাতারের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বাংলাদেশের লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামের মোহাম্মদ ইয়াসিন ২০১৮ সালে জীবিকার তাগিদে কাতার আসেন। তারপর দীর্ঘদিন নিজের সঙ্গে সংগ্রাম করে একটি মোটরসাইকেলের লাইসেন্স নেন এবং ফুড ডেলিভারি এজেন্ট “তালাবাতে” কর্মজীবন শুরু করেন। অন্য সবার মতো নিজের মতো করে কষ্ট করে উপার্জন করার চেষ্টা করে যাচ্ছেন বাইক রাইডার ইয়াসিন।

গত সপ্তাহে কাতার মিউজিয়ামের পাশে ব্যস্ত হাইওয়ে রোডে এক প্রতিবন্ধী বৃদ্ধকে রাস্তা পার করে দিচ্ছেন তালাবাত কর্মী ইয়াসিন- এমন দৃশ্য দেখে কেউ একজন পিকচার নেন এবং সোস্যাল মিডিয়াতে আপলোড দেন। পরবর্তীতে কাতার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নজরে আসে ভাইরাল হওয়া মানবিক ছবিগুলো।

তালাবাতের তৈরিকৃত একটি ছোট ভিডিওতে ইয়াসিন রাস্তায় এবং তারপরে কী ঘটেছিল তা বর্ণনা করেছেন এবং ভিডিওটি কাতার ট্রিবিউনে প্রেরণ করেন। এতে ইয়াসিন বলেন, লোকটি কোথায় থেকে এসেছে তা আমি নিশ্চিত নই। আমি ম্যাকডোনাল্ডস থেকে একটি অর্ডার রিসিভ করছিলাম, তখন পাশের রাস্তা বেশ ঝুঁকিপূর্ণ ও দ্রুত চলমান রাস্তায় একজন প্রতিবন্ধী বৃদ্ধ রাস্তা পার হতে চেষ্টা করছিলেন; কিন্তু তিনি পেছন থেকে কিছুই দেখতে পান না। তখন আমি তাকে সাহায্য করতে দ্বিধা করিনি, আমি আমার মোটরবাইকটি রাস্তার পাশে পার্ক করেছিলাম এবং তাকে জিজ্ঞাসা করলাম তিনি কোথায় যেতে চান। তিনি রাস্তার শেষের দিকে ইঙ্গিত করলেন এবং আমি তাকে রাস্তাটি অতিক্রম করতে সহায়তা করেছি। ভদ্রলোক কৃতজ্ঞতার সঙ্গে আমাকে ধন্যবাদ জানালেন।

ইয়াসিন বলেন, ব্যক্তিটিকে সহায়তার ছবিগুলো অজান্তেই কেউ ক্লিক করেছিল এবং গত সপ্তাহে সোস্যাল মিডিয়ায় সেগুলো আপলোড করেছিল, সেখানে ছবিগুলো ভাইরাল হয়েছিল।

ইয়াসিন আরও জানান, এ ঘটনার পর তিনি কাতারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ফোন পেয়েছিলেন।আমি যা করেছি তার জন্য তারা আমাকে ধন্যবাদ জানায় এবং উপহার হিসাবে তারা আমাকে একটি হেলমেট, একজোড়া জুতা ও একটি জ্যাকেট দিয়েছে।

একজন প্রবাসী বাংলাদেশি কর্মীর মানবিক কাজের প্রশংসা করে কাতারের বাংলাদেশ দূতাবাসের শ্রম কাউন্সিলর ড. মুহাম্মদ মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, আমার পূর্বের কর্মস্থল জাপানে দেখেছি মানুষ একে-অপরকে সাহায্যের মনোভাব নিয়ে সবসময় নিজেকে প্রস্তুত রাখে, যা কাতারে এসেও পেলাম। আমাদের রাষ্ট্রদূত মহোদয় জসিম উদ্দিনের নেতৃত্বে কাতারে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি আরও উজ্জ্বল করতে দূতাবাস নিয়মিত তৎপর। আমাদের বাংলাদেশি নাগরিক মোহাম্মদ ইয়াসিনের একজন প্রতিবন্ধীকে রাস্তা পারাপারে সাহায্য করার বিষয়টি আমার নজরে এসেছে; যা কাতারে বাংলাদেশের ইমেজ বিল্ডআপে সহায়তা করবে। কাতারের জনগণ ও কাতার সরকারের কাছে আমাদের বাংলাদেশি নাগরিকদের নিয়ে সুন্দর ধারণা সৃষ্টি হবে। সর্বোপরি ইয়াসিনের এ মানবিক কাজ বাংলাদেশের জন্য গৌরবের বিষয়।
 

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]