১৪ এপ্রিলকে ‘পহেলা বৈশাখ দিবস’ ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের ডোরাভিল সিটির
jugantor
১৪ এপ্রিলকে ‘পহেলা বৈশাখ দিবস’ ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের ডোরাভিল সিটির

  কৌশলী ইমা, যুক্তরাষ্ট্র থেকে  

১২ এপ্রিল ২০২১, ২২:০১:২৮  |  অনলাইন সংস্করণ

যুক্তরাষ্ট্রের জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যের ডোরাভিল সিটি মেয়র ১৪ এপ্রিলকে ‘পহেলা বৈশাখ দিবস’ ঘোষণা করেছেন। বাংলাদেশের মানুষের প্রাণের বাংলা নববর্ষের আমেজ মার্কিনীদের মাঝে ছড়িয়ে দিতে তিনি এ উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন।

সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে সনদপত্রে স্বাক্ষর প্রদানের মধ্যদিয়ে ১৪ এপ্রিলকে ‘পহেলা বৈশাখ দিবস’ হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে এ ঘোষণা দেন ডোরাভিল সিটি মেয়র জোসেফ গিয়ারম্যান।

যুক্তরাষ্ট্রসহ পৃথিবীর সর্বস্তরে বসবাসকারী বাংলাদেশিরা পহেলা বৈশাখ উৎসবমুখরভাবে উদযাপন করে থাকেন। জর্জিয়া প্রবাসী বাংলাদেশিরাও এর ব্যতিক্রম নয়। প্রতিবছর জর্জিয়ার বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন পহেলা বৈশাখ উদযাপন করে থাকে। মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে এ বছর জর্জিয়ার কোথাও পহেলা বৈশাখ উদযাপন করা হচ্ছে না।

কোথাও উৎসবের আয়োজন করা না হলেও দিনটি স্মরণ করে ১৪ এপ্রিলকে পহেলা বৈশাখ দিবস ঘোষণা করেছেন জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যের সিটি অব ডোরাভিল মেয়র জোসেফ গিয়ারম্যান।

৮ এপ্রিল বিকালে বাংলাদেশি কমিউনিটির কয়েকজনের উপস্থিতিতে ডোরাভিল সিটি হলে এক অনুষ্ঠানে সনদপত্রে স্বাক্ষর করে আনুষ্ঠানিকভাবে এ ঘোষণা দেন মেয়র জোসেফ গিয়ারম্যান।

ঘোষণাপত্রে তিনি বলেন, পহেলা বৈশাখ বাংলা সনের প্রথম দিন। এ দিনটি বাংলাদেশে নববর্ষ হিসেবে পালিত হয়। এটি বাঙালির একটি সর্বজনীন লোকজ উৎসব। এদিন আনন্দঘন পরিবেশে বরণ করে নেওয়া হয় নতুন বছরকে। জর্জিয়া প্রবাসী সকল বাংলাদেশি ও বিশ্বময় বাংলা ভাষাভাষীদের বাংলা নববর্ষের অগ্রিম শুভেচ্ছা। হ্যাপি বাংলা নিউ ইয়ার।

এ সময়ে বাঙালি কমিউনিটির অন্যান্যের মধ্যে সস্ত্রীক উপস্থিত ছিলেন জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যের ডিস্টিক ৫ এর সিনেটর শেখ রহমান, সিটি অব ডোরাভিলের সাবেক কাউন্সিলম্যান এমডি নাসের, ডিক্যাব কাউন্টি ডিস্টিক ১ এর কমিশনার রবার্ট প্যাট্রিক, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব জর্জিয়ার সভাপতি সম্পাদক যথাক্রমে মোস্তফা মাহমুদ ও এ এইচ রাসেল, সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন, সাবেক সভাপতি ফারুক আহমেদ, সাবেক যুগ্ন সাধারন সম্পাদক সাংবাদিক বশীর উদ্দিন আহমেদ, ব্যবসায়ী মাখন লাল দাস, বিশিষ্ট ব্যাংকার ও ব্যবসায়ী আবুল কাশেম প্রমুখ।

উল্লেখ্য, জর্জিয়ায় বাংলাদেশসহ পশ্চিমবঙ্গ, আসাম, ত্রিপুরার প্রায় ৫০ হাজার বাংলা ভাষাভাষী মানুষ বসবাস করে।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

১৪ এপ্রিলকে ‘পহেলা বৈশাখ দিবস’ ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের ডোরাভিল সিটির

 কৌশলী ইমা, যুক্তরাষ্ট্র থেকে 
১২ এপ্রিল ২০২১, ১০:০১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

যুক্তরাষ্ট্রের জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যের ডোরাভিল সিটি মেয়র ১৪ এপ্রিলকে ‘পহেলা বৈশাখ দিবস’ ঘোষণা করেছেন। বাংলাদেশের মানুষের প্রাণের বাংলা নববর্ষের আমেজ মার্কিনীদের মাঝে ছড়িয়ে দিতে তিনি এ উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন।

সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে সনদপত্রে স্বাক্ষর প্রদানের মধ্যদিয়ে ১৪ এপ্রিলকে ‘পহেলা বৈশাখ দিবস’ হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে এ ঘোষণা দেন ডোরাভিল সিটি মেয়র জোসেফ গিয়ারম্যান।

যুক্তরাষ্ট্রসহ পৃথিবীর সর্বস্তরে বসবাসকারী বাংলাদেশিরা পহেলা বৈশাখ উৎসবমুখরভাবে উদযাপন করে থাকেন। জর্জিয়া প্রবাসী বাংলাদেশিরাও এর ব্যতিক্রম নয়। প্রতিবছর জর্জিয়ার বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন পহেলা বৈশাখ উদযাপন করে থাকে। মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে এ বছর জর্জিয়ার কোথাও পহেলা বৈশাখ উদযাপন করা হচ্ছে না।

কোথাও উৎসবের আয়োজন করা না হলেও দিনটি স্মরণ করে ১৪ এপ্রিলকে পহেলা বৈশাখ দিবস ঘোষণা করেছেন জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যের সিটি অব ডোরাভিল মেয়র জোসেফ গিয়ারম্যান।

৮ এপ্রিল বিকালে বাংলাদেশি কমিউনিটির কয়েকজনের উপস্থিতিতে ডোরাভিল সিটি হলে এক অনুষ্ঠানে সনদপত্রে স্বাক্ষর করে আনুষ্ঠানিকভাবে এ ঘোষণা দেন মেয়র জোসেফ গিয়ারম্যান।

ঘোষণাপত্রে তিনি বলেন, পহেলা বৈশাখ বাংলা সনের প্রথম দিন। এ দিনটি বাংলাদেশে নববর্ষ হিসেবে পালিত হয়। এটি বাঙালির একটি সর্বজনীন লোকজ উৎসব। এদিন আনন্দঘন পরিবেশে বরণ করে নেওয়া হয় নতুন বছরকে। জর্জিয়া প্রবাসী সকল বাংলাদেশি ও বিশ্বময় বাংলা ভাষাভাষীদের বাংলা নববর্ষের অগ্রিম শুভেচ্ছা। হ্যাপি বাংলা নিউ ইয়ার।

এ সময়ে বাঙালি কমিউনিটির অন্যান্যের মধ্যে সস্ত্রীক উপস্থিত ছিলেন জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যের ডিস্টিক ৫ এর সিনেটর শেখ রহমান, সিটি অব ডোরাভিলের সাবেক কাউন্সিলম্যান এমডি নাসের, ডিক্যাব কাউন্টি ডিস্টিক ১ এর কমিশনার রবার্ট প্যাট্রিক, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব জর্জিয়ার সভাপতি সম্পাদক যথাক্রমে মোস্তফা মাহমুদ ও এ এইচ রাসেল, সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন, সাবেক সভাপতি ফারুক আহমেদ, সাবেক যুগ্ন সাধারন সম্পাদক সাংবাদিক বশীর উদ্দিন আহমেদ, ব্যবসায়ী মাখন লাল দাস, বিশিষ্ট ব্যাংকার ও ব্যবসায়ী আবুল কাশেম প্রমুখ।

উল্লেখ্য, জর্জিয়ায় বাংলাদেশসহ পশ্চিমবঙ্গ, আসাম, ত্রিপুরার প্রায় ৫০ হাজার বাংলা ভাষাভাষী মানুষ বসবাস করে।
 

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন