সড়ক দুর্ঘটনায় সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশি শ্রমিকের মৃত্যু
jugantor
সড়ক দুর্ঘটনায় সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশি শ্রমিকের মৃত্যু

  রাশিদুল ইসলাম জুয়েল, সিঙ্গাপুর থেকে  

২১ এপ্রিল ২০২১, ২৩:৪০:৫৮  |  অনলাইন সংস্করণ

সিঙ্গাপুরে মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) সকালে পান-দ্বীপ এক্সপ্রেসওয়েতে (পিআইই) যাত্রীবাহী একটি ট্রিপার ট্রাকের সঙ্গে গাড়ির ধাক্কায় একটি লরির পেছনে থাকা যাত্রীদের মধ্যে ১৭ জন অভিবাসী শ্রমিকের মধ্যে ৩৩ বছর বয়সী এক বাংলাদেশি প্রবাসীর মৃত্যু হয়েছে।

দুর্ঘটনায় মৃত বাংলাদেশির নাম তোফাজ্জল হোসেন। তার বাড়ি লক্ষ্মীপুর জেলায়। মারাত্মক আহত হয়ে হাসপাতালে নেয়ার পর মারা গেছেন তিনি।

অন্য একজন কর্মীকেও হাসপাতালে নেয়া হয়েছিল। বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানোর কারণে এবং মৃত্যুর কারণ হিসেবে ৩৬ বছর বয়সী একজন পুরুষ লরি ড্রাইভারকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, সকাল ৬টায় জলান বাহারের বাইরে যাওয়ার আগে চাঙ্গি বিমানবন্দরের দিকে পিআইই বরাবর দুর্ঘটনার বিষয়ে তাদের সতর্ক করা হয়েছিল।

সিঙ্গাপুর সিভিল ডিফেন্স ফোর্স জানিয়েছে, লরির পেছনের বগিতে দু’জনকে আটকা পড়ে থাকতে দেখা গেছে এবং তাদের হাইড্রোলিক সরঞ্জাম ব্যবহার করে উদ্ধার করা হয়েছিল।

আহত অন্যান্য লরি যাত্রীদের সিঙ্গাপুরের ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি হসপিটালে এবং এনজি টেং ফং জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, দুর্ঘটনার পরে দু’জন শ্রমিক অজ্ঞান হয়ে পড়েছিল। শ্রমিকদের বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া গিয়েছে যে, আহতরা সবাই বিদেশি কর্মী; যারা ব্রাইট এশিয়া কনস্ট্রাকশন কোম্পানিতে কাজ করেন।

মৃত বাংলাদেশির লাশ দেশে পাঠানোর বিষয়ে সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশ হাইকমিশনে যোগাযোগ করা হলে লেবার কাউন্সিলর আতাউর রহমান জানান, আমরা সিঙ্গাপুর পুলিশের কাছ থেকে বিস্তারিত নিউজ পেয়েছি এবং আমরা অত্যন্ত দুঃখ প্রকাশ করছি, আমরা আমাদের কোনো প্রবাসী ভাইয়ের এমন নির্মম মৃত্যু আশা করি না।
সিঙ্গাপুর পুলিশের পক্ষ থেকে অফিসিয়ালি আমাদের মেইল পাঠালে আমরা কোম্পানির সঙ্গে যোগাযোগ করে খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে লাশ দেশে পাঠানোর ব্যবস্থা করব। এ বিষয়ে হাইকমিশনের সর্বাত্মক সহযোগিতা করবে বলে তিনি আশ্বস্ত করেন।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

সড়ক দুর্ঘটনায় সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশি শ্রমিকের মৃত্যু

 রাশিদুল ইসলাম জুয়েল, সিঙ্গাপুর থেকে 
২১ এপ্রিল ২০২১, ১১:৪০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সিঙ্গাপুরে মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) সকালে পান-দ্বীপ এক্সপ্রেসওয়েতে (পিআইই) যাত্রীবাহী একটি ট্রিপার ট্রাকের সঙ্গে গাড়ির ধাক্কায় একটি লরির পেছনে থাকা যাত্রীদের মধ্যে ১৭ জন অভিবাসী শ্রমিকের মধ্যে ৩৩ বছর বয়সী এক বাংলাদেশি প্রবাসীর মৃত্যু হয়েছে।

দুর্ঘটনায় মৃত বাংলাদেশির নাম তোফাজ্জল হোসেন। তার বাড়ি লক্ষ্মীপুর জেলায়। মারাত্মক আহত হয়ে হাসপাতালে নেয়ার পর মারা গেছেন তিনি।

অন্য একজন কর্মীকেও হাসপাতালে নেয়া হয়েছিল। বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানোর কারণে এবং মৃত্যুর কারণ হিসেবে ৩৬ বছর বয়সী একজন পুরুষ লরি ড্রাইভারকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, সকাল ৬টায় জলান বাহারের বাইরে যাওয়ার আগে চাঙ্গি বিমানবন্দরের দিকে পিআইই বরাবর দুর্ঘটনার বিষয়ে তাদের সতর্ক করা হয়েছিল।

সিঙ্গাপুর সিভিল ডিফেন্স ফোর্স জানিয়েছে, লরির পেছনের বগিতে দু’জনকে আটকা পড়ে থাকতে দেখা গেছে এবং তাদের হাইড্রোলিক সরঞ্জাম ব্যবহার করে উদ্ধার করা হয়েছিল।

আহত অন্যান্য লরি যাত্রীদের সিঙ্গাপুরের ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি হসপিটালে এবং এনজি টেং ফং জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, দুর্ঘটনার পরে দু’জন শ্রমিক অজ্ঞান হয়ে পড়েছিল। শ্রমিকদের বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া গিয়েছে যে, আহতরা সবাই বিদেশি কর্মী; যারা ব্রাইট এশিয়া কনস্ট্রাকশন কোম্পানিতে কাজ করেন।

মৃত বাংলাদেশির লাশ দেশে পাঠানোর বিষয়ে সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশ হাইকমিশনে যোগাযোগ করা হলে লেবার কাউন্সিলর আতাউর রহমান জানান, আমরা সিঙ্গাপুর পুলিশের কাছ থেকে বিস্তারিত নিউজ পেয়েছি এবং আমরা অত্যন্ত দুঃখ প্রকাশ করছি, আমরা আমাদের কোনো প্রবাসী ভাইয়ের এমন নির্মম মৃত্যু আশা করি না।
সিঙ্গাপুর পুলিশের পক্ষ থেকে অফিসিয়ালি আমাদের মেইল পাঠালে আমরা কোম্পানির সঙ্গে যোগাযোগ করে খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে লাশ দেশে পাঠানোর ব্যবস্থা করব। এ বিষয়ে হাইকমিশনের সর্বাত্মক সহযোগিতা করবে বলে তিনি আশ্বস্ত করেন।
 

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন