ঈদ আনন্দে মেতে উঠে কুয়েতে প্রবাসী বাংলাদেশিরা
jugantor
ঈদ আনন্দে মেতে উঠে কুয়েতে প্রবাসী বাংলাদেশিরা

  সাদেক রিপন, কুয়েত থেকে  

১৩ মে ২০২১, ২২:২৩:১৫  |  অনলাইন সংস্করণ

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সৌদি আরবের সঙ্গে মিলিয়ে মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মী উৎসব ঈদুল ফিতর ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে পালিত হয়েছে। কুয়েত সরকারের নির্ধারিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রবাসী বাংলাদেশিরাসহ বিভিন্ন দেশের প্রবাসীরা ঈদুল ফিরত উদযাপন করেছে।

স্থানীয় সময় সকাল ৫টা ১২ মিনিটে ১৫০০ মসজিদের পাশাপাশি ঈদগাহেও ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। গত বছর করোনার প্রকট বেশি হওয়াতে ঈদের নামাজ জামায়াতে আদায়ে নিষেধাজ্ঞা ছিল। তাই ঈদের নামাজ স্থানীয়রাসহ সব প্রবাসীদের বাসায় পড়তে হয়েছিল। এই বছর জামায়াতে ঈদের নামাজ আদায়ের অনুমতি দেয় কুয়েত সরকার।

চলতি বছর দেশটি পুনরায় করোনার নতুন স্ট্রেইন শনাক্ত হওয়ায় ৭ মার্চ থেকে সন্ধ্যা হতে ভোর পর্যন্ত কারফিউ ঘোষণা করা হয়। করোনা সংক্রমণ কমে যাওয়ায় গত সোমবার দেশটির মন্ত্রী পরিষদের বৈঠকে ঈদের দিন থেকে কারফিউ তুলে নেওয়া সিদ্ধান্ত হয়।

কুয়েতের ধর্ম মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী নামাজের জন্য ১৫ মিনিট সময় নির্ধারণ করে দেওয়া হয়। জামায়াতে ঈদের নামাজ আদায় করতে পেরে আনন্দিত প্রবাসী বাংলাদেশিরা। ঈদের কোলাকুলি করেন এবং একে অন্যের সঙ্গে মেতে উঠেন গল্প আড্ডা আর আলাপচারিতায়।

সুখ দুঃখের খোঁজ খবর নেন একে অন্যের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে দেখা যায়। ঈদ উপলক্ষে ৫ দিন সরকারি ছুটি থাকায় ঈদ জামাত শেষে পরিচিত বন্ধু বান্ধব মিলে একে অন্যের বাসায় খাওয়া দাওয়া ও সমুদ্র পাড়ে, পার্ক ও বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে ঘুরতে বের হন অনেকেই।

কুয়েত প্রবাসী বাংলাদেশি ফ্যামেলি আরিফ-আমেনার আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন শওকত-সাথী, আতিক-মিরা, লতিফ-সোনিয়া, এছাড়াও কুয়েত প্রবাসী সংবাদকর্মীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মঈনউদ্দিন সুমন, আ হ জুবেদ, মোহাম্মদ জালাল উদ্দিন, শরীফ মিজান, সাদেক রিপন প্রমুখ।

আরিফ আমেনা বলেন, করোনা পরিস্থিতি সার্বিক উন্নতি হওয়াতে কুয়েত সরকার পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে কারফিউ তুলে দেওয়ায় বন্ধু বান্ধব মিলে জামায়াতে ঈদের নামাজ আদায় করলাম। করোনার কারণে অনেক দিন হলো সবার সঙ্গে দেখা সাক্ষাৎ হয় না। অনেক দিন পর প্রবাসী পরিবারগুলো মিলে একসঙ্গে খাওয়া দাওয়া ও আড্ডা ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করলাম।

তিনি বলেন, ঈদে দেশে আত্মীয় স্বজন পাশে না পাওয়ার শূন্যতা পূর্ণ হল। গতবারের কারফিউয়ের কারণে ঘরে ঈদের নামাজ পড়তে হয়েছিল। মহান আল্লাহ যেন আমাদের এই মহামারি হতে দ্রুত মুক্তিদান করেন। সব কিছু যেন আগের ন্যায় স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসে এই প্রার্থনা করি।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

ঈদ আনন্দে মেতে উঠে কুয়েতে প্রবাসী বাংলাদেশিরা

 সাদেক রিপন, কুয়েত থেকে 
১৩ মে ২০২১, ১০:২৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সৌদি আরবের সঙ্গে মিলিয়ে মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মী উৎসব ঈদুল ফিতর ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে পালিত হয়েছে। কুয়েত সরকারের নির্ধারিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রবাসী বাংলাদেশিরাসহ বিভিন্ন দেশের প্রবাসীরা ঈদুল ফিরত  উদযাপন করেছে।

স্থানীয় সময় সকাল ৫টা ১২ মিনিটে ১৫০০ মসজিদের পাশাপাশি ঈদগাহেও ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। গত বছর করোনার প্রকট বেশি হওয়াতে ঈদের নামাজ জামায়াতে আদায়ে নিষেধাজ্ঞা ছিল। তাই ঈদের নামাজ স্থানীয়রাসহ সব প্রবাসীদের বাসায় পড়তে হয়েছিল। এই বছর জামায়াতে ঈদের নামাজ আদায়ের অনুমতি দেয় কুয়েত সরকার।

চলতি বছর দেশটি পুনরায় করোনার নতুন স্ট্রেইন শনাক্ত হওয়ায় ৭ মার্চ থেকে সন্ধ্যা হতে ভোর পর্যন্ত কারফিউ ঘোষণা করা হয়। করোনা সংক্রমণ কমে যাওয়ায় গত সোমবার দেশটির মন্ত্রী পরিষদের বৈঠকে ঈদের দিন থেকে কারফিউ তুলে নেওয়া সিদ্ধান্ত  হয়।

কুয়েতের ধর্ম মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী নামাজের জন্য ১৫ মিনিট সময় নির্ধারণ করে দেওয়া হয়। জামায়াতে ঈদের নামাজ আদায় করতে পেরে আনন্দিত প্রবাসী বাংলাদেশিরা। ঈদের কোলাকুলি করেন এবং একে অন্যের সঙ্গে মেতে উঠেন গল্প আড্ডা আর আলাপচারিতায়।

সুখ দুঃখের খোঁজ খবর নেন একে অন্যের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে দেখা যায়। ঈদ উপলক্ষে ৫ দিন সরকারি ছুটি থাকায় ঈদ জামাত শেষে পরিচিত বন্ধু বান্ধব মিলে একে অন্যের বাসায় খাওয়া দাওয়া ও সমুদ্র পাড়ে, পার্ক ও বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে ঘুরতে বের হন অনেকেই।

কুয়েত প্রবাসী বাংলাদেশি ফ্যামেলি আরিফ-আমেনার আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন শওকত-সাথী, আতিক-মিরা, লতিফ-সোনিয়া, এছাড়াও কুয়েত প্রবাসী সংবাদকর্মীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মঈনউদ্দিন সুমন, আ হ জুবেদ, মোহাম্মদ জালাল উদ্দিন, শরীফ মিজান, সাদেক রিপন প্রমুখ।

আরিফ আমেনা বলেন, করোনা পরিস্থিতি সার্বিক উন্নতি হওয়াতে কুয়েত সরকার পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে কারফিউ তুলে দেওয়ায় বন্ধু বান্ধব মিলে জামায়াতে ঈদের নামাজ আদায় করলাম। করোনার কারণে অনেক দিন হলো সবার সঙ্গে দেখা সাক্ষাৎ হয় না। অনেক দিন পর প্রবাসী পরিবারগুলো মিলে একসঙ্গে খাওয়া দাওয়া ও আড্ডা ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করলাম।

তিনি বলেন, ঈদে দেশে আত্মীয় স্বজন পাশে না পাওয়ার শূন্যতা পূর্ণ হল। গতবারের কারফিউয়ের কারণে ঘরে ঈদের নামাজ পড়তে হয়েছিল। মহান আল্লাহ যেন আমাদের এই মহামারি হতে দ্রুত মুক্তিদান করেন। সব কিছু যেন আগের ন্যায় স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসে এই প্রার্থনা করি।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন