পর্তুগালে নাগরিকরা পর্যটন খাতে প্রদত্ত ভ্যাট ফেরত পাবেন
jugantor
পর্তুগালে নাগরিকরা পর্যটন খাতে প্রদত্ত ভ্যাট ফেরত পাবেন

  ফরিদ আহমেদ পাটোয়ারী, পর্তুগাল থেকে  

০১ জুন ২০২১, ২২:৩৭:৩৬  |  অনলাইন সংস্করণ

পর্তুগালের নাগরিকরা ১ জুন থেকে আগস্ট পর্যন্ত হোটেল, রেস্টুরেন্ট এবং সাংস্কৃতিক খাতে ব্যয়ের ওপর প্রদত্ত ১০০ শতাংশ ভ্যাট ফেরত পাবেন।

৩১ মে সোমবার রাজধানী লিসবনের (ন্যাশনাল মিউজিয়াম অব এনসিয়েন্ট আর্ট) প্রাচীন শিল্প জাদুঘর প্রাঙ্গণে অর্থমন্ত্রী জোয়াও লিয়াও, সংস্কৃতিমন্ত্রী গ্ৰাসা ফনসেকা, অর্থ সহকারী সচিব আন্তোনিও মেন্ডোনসা মেন্ডেস এবং পর্যটন সচিব রিতা মার্কেসের উপস্থিতিতে ই-ভাউচার প্রোগ্রামটি উদ্বোধন করা হয়।

অর্থ সহকারী সচিব আন্তোনিও মেন্ডোনসা মেন্ডেস অনুষ্ঠানে ই-ভাউচার প্রোগ্রামটির বিস্তারিত তুলে ধরেন। গ্রাহকরা উপরোক্ত তিনটি খাতে জুন, জুলাই এবং আগস্ট এই তিন মাসে প্রদত্ত বিলের সঙ্গে যে ভ্যাট প্রদান করবেন তা তাদের আলাদাভাবে তৈরি ই-ভাউচার অ্যাকাউন্টে জমা হবে। সেপ্টেম্বর মাসে সব ভ্যাট ভেলিডেশন করা হবে এবং অক্টোবর মাস থেকে ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত উক্ত তিনটি সেক্টরে প্রদত্ত বিলের ৫০ শতাংশ পর্যন্ত উক্ত জমাকৃত ভ্যাট দ্বারা পরিশোধ করা যাবে।

উদাহরণস্বরূপ এ প্রোগ্রামের আওতায় অক্টোবর মাসে যদি রেস্টুরেন্টে খেতে গিয়ে ৭০ ইউরো বিল আসে তাহলে পূর্বের জমাকৃত ভ্যাটের অংশ হতে অর্ধেক অর্থাৎ ৩৫ ইউরো পরিশোধ করা যাবে। তবে এ সুবিধা পেতে হলে গ্রাহককে শুরু থেকে তার ব্যক্তিগত কর নম্বর (নিফ) সংযুক্ত করে বিল নিতে হবে।

অর্থমন্ত্রী জোয়াও লিয়াও বলেন, এ প্রকল্পের জন্য ২০০ মিলিয়ন ইউরো বরাদ্দ রয়েছে, মহামারিতে ক্ষতিগ্রস্ত অর্থনীতি পুনরুদ্ধারে প্রোগ্রামের অংশ হিসেবে একটি গুরুত্বপূর্ণ এবং উদ্ভাবনী ব্যবস্থা; যা মহামারিতে ক্ষতিগ্রস্ত এ তিনটি সেক্টরকে সহযোগিতা করবে।

সংস্কৃতিমন্ত্রী গ্ৰাসা ফনসেকা বলেন, ই-ভাউচার প্রোগ্রামটি একটি নতুন উদ্ভাবনী ব্যবস্থা; যা ইতোপূর্বে গৃহীত "গ্যারান্টির কুলতুরা" প্রোগ্রামের সহায়ক হিসেবে কাজ করবে তাছাড়া শিল্প-সাহিত্য এবং বিভিন্ন সিনেমা শো অন্তর্ভুক্ত হওয়ার ফলে উদ্যোক্তাদের ক্ষতি পুষিয়ে নেয়া সম্ভব হবে।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

পর্তুগালে নাগরিকরা পর্যটন খাতে প্রদত্ত ভ্যাট ফেরত পাবেন

 ফরিদ আহমেদ পাটোয়ারী, পর্তুগাল থেকে 
০১ জুন ২০২১, ১০:৩৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পর্তুগালের নাগরিকরা ১ জুন থেকে আগস্ট পর্যন্ত হোটেল, রেস্টুরেন্ট এবং সাংস্কৃতিক খাতে ব্যয়ের ওপর প্রদত্ত ১০০ শতাংশ ভ্যাট ফেরত পাবেন। 

৩১ মে সোমবার রাজধানী লিসবনের (ন্যাশনাল মিউজিয়াম অব এনসিয়েন্ট আর্ট) প্রাচীন শিল্প জাদুঘর প্রাঙ্গণে অর্থমন্ত্রী জোয়াও লিয়াও, সংস্কৃতিমন্ত্রী গ্ৰাসা ফনসেকা, অর্থ সহকারী সচিব আন্তোনিও মেন্ডোনসা মেন্ডেস এবং পর্যটন সচিব রিতা মার্কেসের উপস্থিতিতে ই-ভাউচার প্রোগ্রামটি উদ্বোধন করা হয়।

অর্থ সহকারী সচিব আন্তোনিও মেন্ডোনসা মেন্ডেস অনুষ্ঠানে ই-ভাউচার প্রোগ্রামটির বিস্তারিত তুলে ধরেন। গ্রাহকরা উপরোক্ত তিনটি খাতে জুন,  জুলাই এবং আগস্ট এই তিন মাসে প্রদত্ত বিলের সঙ্গে যে ভ্যাট প্রদান করবেন তা তাদের আলাদাভাবে তৈরি ই-ভাউচার অ্যাকাউন্টে জমা হবে। সেপ্টেম্বর মাসে সব ভ্যাট ভেলিডেশন করা হবে এবং অক্টোবর মাস থেকে ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত উক্ত তিনটি সেক্টরে প্রদত্ত বিলের ৫০ শতাংশ পর্যন্ত  উক্ত জমাকৃত ভ্যাট দ্বারা পরিশোধ করা যাবে। 

উদাহরণস্বরূপ এ প্রোগ্রামের আওতায় অক্টোবর মাসে যদি রেস্টুরেন্টে খেতে গিয়ে ৭০ ইউরো বিল আসে তাহলে পূর্বের জমাকৃত ভ্যাটের অংশ হতে অর্ধেক অর্থাৎ ৩৫ ইউরো পরিশোধ করা যাবে। তবে এ সুবিধা পেতে হলে গ্রাহককে শুরু থেকে তার ব্যক্তিগত কর নম্বর (নিফ) সংযুক্ত করে বিল নিতে হবে।

অর্থমন্ত্রী জোয়াও লিয়াও বলেন, এ প্রকল্পের জন্য ২০০ মিলিয়ন ইউরো বরাদ্দ রয়েছে, মহামারিতে ক্ষতিগ্রস্ত অর্থনীতি পুনরুদ্ধারে প্রোগ্রামের অংশ হিসেবে একটি গুরুত্বপূর্ণ এবং উদ্ভাবনী ব্যবস্থা; যা মহামারিতে ক্ষতিগ্রস্ত এ তিনটি সেক্টরকে সহযোগিতা করবে।

সংস্কৃতিমন্ত্রী গ্ৰাসা ফনসেকা বলেন, ই-ভাউচার প্রোগ্রামটি একটি নতুন উদ্ভাবনী ব্যবস্থা; যা ইতোপূর্বে গৃহীত "গ্যারান্টির কুলতুরা" প্রোগ্রামের সহায়ক হিসেবে কাজ করবে তাছাড়া শিল্প-সাহিত্য এবং বিভিন্ন সিনেমা শো অন্তর্ভুক্ত হওয়ার ফলে উদ্যোক্তাদের ক্ষতি পুষিয়ে নেয়া সম্ভব হবে।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন