তুষারে ঢেকে গেছে দক্ষিণ আফ্রিকা
jugantor
তুষারে ঢেকে গেছে দক্ষিণ আফ্রিকা

  শওকত বিন আশরাফ, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে  

০২ জুন ২০২১, ০১:৪৫:৫৫  |  অনলাইন সংস্করণ

দক্ষিণ আফ্রিকা শীতে রীতিমতো কাঁপছে। গত মে মাস থেকে শীত মৌসুম আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হলেও গত এক সপ্তাহ থেকে দেশটির বেশ কয়েকটি প্রদেশে তাপমাত্রা নামতে শুরু করে।

দক্ষিণ আফ্রিকার মোট জনসংখ্যার ৭২ শতাংশই চলতি সপ্তাহে ফারেনহাইট স্কেলে ১২ থেকে ১৬ ডিগ্রি তাপমাত্রায় বাস করতে বাধ্য হচ্ছেন। তাপমাত্রা অতটা কম না হলেও বাতাসের কারণে এমনটি অনুভূত হচ্ছে। সেই সাথে বৃষ্টি ও বাতাসের কারণে জোহানেসবার্গের অবস্থাও ভয়াবহ। জোহানেসবার্গ এলাকায় তীব্র শৈত্যপ্রবাহের কারণে ঘর থেকে বের হওয়া মুশকিল হয়ে পড়েছে।

এছাড়া দেশটির ইস্টার্ন কেপ, ওয়েস্টার্ন কেপ নর্থ ওয়েস্ট ও নদার্ন কেপ প্রদেশের বেশ কিছু এলাকা সাদা হয়ে আছে তুষারপাতে। চোখ ঝলসে দেওয়ার মতো সাদা। আর শৈত্যপ্রবাহের কারণে শূন্যের অনেক নিচের তাপমাত্রা বোধ হচ্ছে।

মূল ধাক্কাটি যাচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকার পূর্ব ও পশ্চিম অঞ্চলের প্রদেশগুলোতে। শীতের শুরুতেই দক্ষিণ আফ্রিকায় শৈত্যপ্রবাহের এমন তাণ্ডবের কারণে জনজীবন একেবারে থমকে দাঁড়িয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকা আবহাওয়া অধিদপ্তরের রিপোর্ট অনুযায়ী শৈত্যপ্রবাহ আগামী সপ্তাহজুড়ে চলবে। এ সময় মারাত্মক তুষারপাত ও বৃষ্টিসহ বজ্রবৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

তীব্র শৈত্যপ্রবাহের কারণে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে যাচ্ছে।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

তুষারে ঢেকে গেছে দক্ষিণ আফ্রিকা

 শওকত বিন আশরাফ, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে 
০২ জুন ২০২১, ০১:৪৫ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দক্ষিণ আফ্রিকা শীতে রীতিমতো কাঁপছে। গত মে মাস থেকে শীত মৌসুম আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হলেও গত এক সপ্তাহ থেকে দেশটির বেশ কয়েকটি প্রদেশে তাপমাত্রা নামতে শুরু করে।

দক্ষিণ আফ্রিকার মোট জনসংখ্যার ৭২ শতাংশই চলতি সপ্তাহে ফারেনহাইট স্কেলে ১২ থেকে ১৬ ডিগ্রি তাপমাত্রায় বাস করতে বাধ্য হচ্ছেন। তাপমাত্রা অতটা কম না হলেও বাতাসের কারণে এমনটি অনুভূত হচ্ছে। সেই সাথে বৃষ্টি ও বাতাসের কারণে জোহানেসবার্গের অবস্থাও ভয়াবহ। জোহানেসবার্গ এলাকায়  তীব্র শৈত্যপ্রবাহের কারণে ঘর থেকে বের হওয়া মুশকিল হয়ে পড়েছে।

এছাড়া দেশটির ইস্টার্ন কেপ, ওয়েস্টার্ন কেপ নর্থ ওয়েস্ট ও নদার্ন কেপ প্রদেশের বেশ কিছু এলাকা সাদা হয়ে আছে তুষারপাতে। চোখ ঝলসে দেওয়ার মতো সাদা। আর শৈত্যপ্রবাহের কারণে শূন্যের অনেক নিচের তাপমাত্রা বোধ হচ্ছে।

মূল ধাক্কাটি যাচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকার পূর্ব ও পশ্চিম অঞ্চলের প্রদেশগুলোতে। শীতের শুরুতেই দক্ষিণ আফ্রিকায় শৈত্যপ্রবাহের এমন তাণ্ডবের কারণে জনজীবন একেবারে থমকে দাঁড়িয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকা আবহাওয়া অধিদপ্তরের রিপোর্ট অনুযায়ী শৈত্যপ্রবাহ আগামী সপ্তাহজুড়ে চলবে। এ সময় মারাত্মক তুষারপাত ও বৃষ্টিসহ বজ্রবৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

তীব্র শৈত্যপ্রবাহের কারণে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে যাচ্ছে।
 

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন