পর্তুগালে ১৪ জুন থেকে সব বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান খোলা
jugantor
পর্তুগালে ১৪ জুন থেকে সব বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান খোলা

  ফরিদ আহমেদ পাটোয়ারী, পর্তুগাল থেকে  

০৫ জুন ২০২১, ০১:১৬:০৪  |  অনলাইন সংস্করণ

১৪ জুন থেকে সব ধরনের বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ২ জুন প্রধানমন্ত্রী আন্তোনিও কস্তা মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে সবার উদ্দেশে এ সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরেন।

দেশব্যাপী ২টি ধাপে অবশিষ্ট বিধিনিষেধগুলো শিথিল করা হচ্ছে। প্রথম ধাপে ১৪ জুন থেকে রেস্টুরেন্টে একই টেবিলে ৬ জন এবং বাহিরে ১০ জন বসার ব্যবস্থা বজায় রেখে রাত ১২টা পর্যন্ত গ্রাহক গ্রহণ এবং রাত ১টা পর্যন্ত খোলা রাখার অনুমতি প্রদান করা হয়েছে।

সুপার মার্কেট, মিনি মার্কেট, টুরিস্ট সপসহ সব বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান ১৪ জুন থেকে মহামারির পূর্বে যে নিয়মে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা-বন্ধ করতেন সেই নিয়ম অনুযায়ী পরিচালনা করতে পারবেন।

মিউজিয়াম, সিনেমা হল, থিয়েটার, সার্কাস এবং সব বিনোদনমূলক প্রতিষ্ঠান তাদের ধারণক্ষমতার ৫০ শতাংশ দর্শক গ্রহণ করে পরিচালনা করতে পারবেন। তবে তাদের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দিষ্ট নীতিমালা মেনে চলতে হবে।

পারিবারিক আয়োজনের ক্ষেত্রে বাধ্যবাধকতা রয়েছে। বিয়ে বা অন্য কোনো আয়োজনের ক্ষেত্রে ৫০ শতাংশ ধারণক্ষমতায় জনসমাগম করা যাবে। তবে সংক্রমণ সংখ্যা যদি গড়ে ১৪ দিনে ১ লাখ জনগোষ্ঠীতে ৪৮০ জন ছাড়িয়ে যায় তাহলে ২৫ শতাংশের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে।

দর্শক সমাগম যুক্ত খেলাধুলার আয়োজনের ক্ষেত্রে খেলার মাঠের দর্শক সক্ষমতার সর্বোচ্চ ৩৩ শতাংশ দর্শক নিয়ে খেলা পরিচালনা করা যাবে।

দ্বিতীয় পর্যায়ে ২৮ জুন থেকে দেশের সব নাগরিকসেবা কেন্দ্রগুলো পূর্বনির্ধারিত অ্যাপয়েন্টমেন্ট ছাড়াই সেবা প্রদান করবে। গণপরিবহনগুলো ধারণক্ষমতার সমপরিমাণ যাত্রী নিয়ে স্বাভাবিক নিয়মের মতো চলাচল করতে পারবে।

উল্লেখ্য, পর্তুগালে ২ জুন পর্যন্ত সর্বমোট করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৮ লাখ ৫০ হাজার ২৬২ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ১৭ হাজার ২৬ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৮ লাখ ১০ হাজার ২৭১ জন; বর্তমানে ২২ হাজার ৯৬৫ জন আক্রান্ত অবস্থায় আছেন।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

পর্তুগালে ১৪ জুন থেকে সব বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান খোলা

 ফরিদ আহমেদ পাটোয়ারী, পর্তুগাল থেকে 
০৫ জুন ২০২১, ০১:১৬ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

১৪ জুন থেকে সব ধরনের বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ২ জুন প্রধানমন্ত্রী আন্তোনিও কস্তা মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে সবার উদ্দেশে এ সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরেন।

দেশব্যাপী ২টি ধাপে অবশিষ্ট বিধিনিষেধগুলো শিথিল করা হচ্ছে। প্রথম ধাপে  ১৪ জুন থেকে রেস্টুরেন্টে একই টেবিলে ৬ জন এবং বাহিরে ১০ জন বসার ব্যবস্থা বজায় রেখে রাত ১২টা পর্যন্ত গ্রাহক গ্রহণ এবং রাত ১টা পর্যন্ত খোলা রাখার অনুমতি প্রদান করা হয়েছে।

সুপার মার্কেট, মিনি মার্কেট, টুরিস্ট সপসহ সব বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান ১৪ জুন থেকে  মহামারির পূর্বে যে নিয়মে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা-বন্ধ করতেন সেই নিয়ম অনুযায়ী পরিচালনা করতে পারবেন।

মিউজিয়াম, সিনেমা হল, থিয়েটার, সার্কাস এবং সব বিনোদনমূলক প্রতিষ্ঠান তাদের ধারণক্ষমতার ৫০ শতাংশ দর্শক গ্রহণ করে পরিচালনা করতে পারবেন। তবে তাদের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দিষ্ট নীতিমালা মেনে চলতে হবে।

পারিবারিক আয়োজনের ক্ষেত্রে বাধ্যবাধকতা রয়েছে। বিয়ে বা অন্য কোনো আয়োজনের ক্ষেত্রে ৫০ শতাংশ ধারণক্ষমতায় জনসমাগম করা যাবে। তবে সংক্রমণ সংখ্যা যদি গড়ে ১৪ দিনে ১ লাখ জনগোষ্ঠীতে ৪৮০ জন ছাড়িয়ে যায় তাহলে ২৫ শতাংশের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে।

দর্শক সমাগম যুক্ত খেলাধুলার আয়োজনের ক্ষেত্রে খেলার মাঠের দর্শক সক্ষমতার সর্বোচ্চ ৩৩ শতাংশ দর্শক নিয়ে খেলা পরিচালনা করা যাবে।

দ্বিতীয় পর্যায়ে  ২৮ জুন থেকে দেশের সব নাগরিকসেবা কেন্দ্রগুলো পূর্বনির্ধারিত অ্যাপয়েন্টমেন্ট ছাড়াই সেবা প্রদান করবে। গণপরিবহনগুলো ধারণক্ষমতার সমপরিমাণ যাত্রী নিয়ে স্বাভাবিক নিয়মের মতো চলাচল করতে পারবে।

উল্লেখ্য, পর্তুগালে ২ জুন পর্যন্ত সর্বমোট করোনা আক্রান্ত  হয়েছেন ৮ লাখ ৫০ হাজার ২৬২ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ১৭ হাজার ২৬ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৮ লাখ ১০ হাজার ২৭১ জন; বর্তমানে ২২ হাজার ৯৬৫ জন আক্রান্ত অবস্থায় আছেন।
 

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন