একসঙ্গে ১০ সন্তান প্রসব!
jugantor
একসঙ্গে ১০ সন্তান প্রসব!

  শওকত বিন আশরাফ, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে  

০৮ জুন ২০২১, ২০:৫২:৪১  |  অনলাইন সংস্করণ

দক্ষিণ আফ্রিকার এক নারী একই সাথে ১০ সন্তানের জন্ম দিয়ে গিনেস রেকর্ড করেছেন। সোমবার রাতে দেশটির প্রশাসনিক রাজধানী প্রিটোরিয়ার একটি হাসপাতালে গোসিয়াম থমারা সিথোল নামে ৩৭ বছর বয়সী কৃষ্ণাঙ্গ এই নারী একসঙ্গে ১০ সন্তানের জন্ম দেন।

এর আগে গত মাসে মরক্কোর মাঝিয়ান হালিমা সিসি নামে এক নারী একসাথে ৯ সন্তান জন্ম দিয়ে গিনেস রেকর্ড করেছিলেন। সোমবার দক্ষিণ আফ্রিকার গোসিয়াম ১০ সন্তানের জন্ম দিয়ে সেই রেকর্ড ভেঙেছেন।

গোসিয়ামের স্বামী তেভো সোসোটেসি গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, প্রিটোরিয়ায় একটি হাসপাতালে ডাক্তারদের তত্ত্বাবধানে ছিল তার স্ত্রী। বিকালে হঠাৎ করে ব্যাথা অনুভব হলে থাকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। হাসপাতালের ডাক্তারেরা আগে থেকেই নিশ্চিত ছিল গোসিয়ামের গর্ভে একাধিক বাচ্চা রয়েছে।

তবে দুইজন বিশেষজ্ঞ গাইনি চিকিৎসক তিনজন জেনারেল চিকিৎসকের সহযোগিতায় সিজারের মাধ্যমে একে একে ১০টি বাচ্চা বের করে আনেন। যার মধ্যে সাতজন ছেলে এবং তিনজন মেয়ে। এর ৬ বছর আগে গোসিয়া যমজ সন্তানের জন্ম দিয়েছিলেন।

এই দিকে প্রসবের পর গোসিয়া গণমাধ্যমকে বলেছেন, আমি আমার গর্ভ নিয়ে হতবাক। প্রথম দিকে ডাক্তাররা যমজ সন্তান বলছিল, কিন্তু ১০ জন সন্তান কিভাবে আমার গর্ভে ৩৬ সপ্তাহ ছিল তা অকল্পনীয়। আমি অসুস্থ ছিলাম, এটা আমার জন্য কঠিন সময় ছিল।

আমি কেবল ইশ্বরের কাছে প্রার্থনা করি যেন আমার সমস্ত শিশুদের সুস্থ অবস্থায় বাঁচিয়ে রাখে। আমি এবং আমার সন্তানরা এখন সম্পূর্ণ সুস্থ। আমি সকল চিকিৎসককে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

একসাথে ১০ সন্তানের জন্ম দেওয়া নারী হাউটেং (জোহানেসবার্গ) প্রদেশের প্রিটোরিয়া সংলগ্ন থেম্বিসা এলাকার বাসিন্দা।

প্রিটোরিয়া মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের গাইনি বিভাগের উপ-প্রধান অধ্যাপক ডিনি মাওেলা বলেছেন, গিসোয়ানের ১০ সন্তান জন্ম দেওয়ার ঘটনা বিরল এবং সাধারণত ইশ্বরের সহযোগিতা ছাড়া এমন ঘটনা পৃথিবীতে বিরল। মাওেলা বলেন,১০টি শিশুকে আগামী কয়েক মাস ইনকিউবেটরে রেখে ওজন ঠিক করতে হবে। কারণ বাচ্চাগুলো গর্ভাবস্থায় উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ ছিল।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

একসঙ্গে ১০ সন্তান প্রসব!

 শওকত বিন আশরাফ, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে 
০৮ জুন ২০২১, ০৮:৫২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দক্ষিণ আফ্রিকার এক নারী একই সাথে ১০ সন্তানের জন্ম দিয়ে গিনেস রেকর্ড করেছেন। সোমবার রাতে দেশটির প্রশাসনিক রাজধানী প্রিটোরিয়ার একটি হাসপাতালে গোসিয়াম থমারা সিথোল নামে ৩৭ বছর বয়সী কৃষ্ণাঙ্গ এই নারী একসঙ্গে ১০ সন্তানের জন্ম দেন।

এর আগে গত মাসে মরক্কোর মাঝিয়ান হালিমা সিসি নামে এক নারী একসাথে ৯ সন্তান জন্ম দিয়ে গিনেস রেকর্ড করেছিলেন। সোমবার দক্ষিণ আফ্রিকার গোসিয়াম ১০ সন্তানের জন্ম দিয়ে সেই রেকর্ড ভেঙেছেন।

গোসিয়ামের স্বামী তেভো সোসোটেসি গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, প্রিটোরিয়ায় একটি হাসপাতালে ডাক্তারদের তত্ত্বাবধানে ছিল তার স্ত্রী। বিকালে হঠাৎ করে ব্যাথা অনুভব হলে থাকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। হাসপাতালের ডাক্তারেরা আগে থেকেই নিশ্চিত ছিল গোসিয়ামের গর্ভে একাধিক বাচ্চা রয়েছে।

তবে দুইজন বিশেষজ্ঞ গাইনি চিকিৎসক তিনজন জেনারেল চিকিৎসকের সহযোগিতায় সিজারের মাধ্যমে একে একে ১০টি বাচ্চা বের করে আনেন। যার মধ্যে সাতজন ছেলে এবং তিনজন মেয়ে। এর ৬ বছর আগে গোসিয়া যমজ সন্তানের জন্ম দিয়েছিলেন।

এই দিকে প্রসবের পর গোসিয়া গণমাধ্যমকে বলেছেন, আমি আমার গর্ভ নিয়ে হতবাক। প্রথম দিকে ডাক্তাররা যমজ সন্তান বলছিল, কিন্তু ১০ জন সন্তান কিভাবে আমার গর্ভে ৩৬ সপ্তাহ ছিল তা অকল্পনীয়। আমি অসুস্থ ছিলাম, এটা আমার জন্য কঠিন সময় ছিল।

আমি কেবল ইশ্বরের কাছে প্রার্থনা করি যেন আমার সমস্ত শিশুদের সুস্থ অবস্থায় বাঁচিয়ে রাখে। আমি এবং আমার সন্তানরা এখন সম্পূর্ণ সুস্থ। আমি সকল চিকিৎসককে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

একসাথে ১০ সন্তানের জন্ম দেওয়া নারী হাউটেং (জোহানেসবার্গ) প্রদেশের প্রিটোরিয়া সংলগ্ন থেম্বিসা এলাকার বাসিন্দা।

প্রিটোরিয়া মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের গাইনি বিভাগের উপ-প্রধান অধ্যাপক ডিনি মাওেলা বলেছেন, গিসোয়ানের ১০ সন্তান জন্ম দেওয়ার ঘটনা বিরল এবং সাধারণত ইশ্বরের সহযোগিতা ছাড়া এমন ঘটনা পৃথিবীতে বিরল। মাওেলা বলেন,১০টি শিশুকে আগামী কয়েক মাস ইনকিউবেটরে রেখে ওজন ঠিক করতে হবে। কারণ বাচ্চাগুলো গর্ভাবস্থায় উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ ছিল।

 

 

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন