একসঙ্গে একাধিক পুরুষকে বিয়ে করতে পারবেন নারীরা!
jugantor
একসঙ্গে একাধিক পুরুষকে বিয়ে করতে পারবেন নারীরা!

  শওকত বিন আশরাফ, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে  

১৬ জুন ২০২১, ২০:১৬:৫৪  |  অনলাইন সংস্করণ

দক্ষিণ আফ্রিকার নারীরা একসঙ্গে একাধিক পুরুষকে বিবাহ করার অনুমতি পেতে যাচ্ছেন। সেই সঙ্গে পুরুষেরাও এক বা দুইয়ের অধিক স্ত্রী একসঙ্গে রাখতে পারবেন। সম্প্রতি দেশটির সরকার বিবাহ আইন সংশোধন করে নতুন এ আইন প্রণয়ন করতে যাচ্ছে। দেশের গণমাধ্যমে এমন সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পর অভিজ্ঞ ও সচেতন মহলে হাস্যরসের সৃষ্টি হয়েছে।

দক্ষিণ আফ্রিকার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় দেশে ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন কমিয়ে আনার জন্য সম্প্রতি দেশে বিবাহ আইন সংশোধন করে নতুন এ আইন প্রণয়ন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন। দেশের বিবাহ আইনগুলো পরিবর্তন হলে নিকট ভবিষ্যতে দক্ষিণ আফ্রিকার মহিলারা একসঙ্গে একাধিক স্বামীর সঙ্গে বিবাহের অনুমতি পাবেন, ঠিক তেমনই পুরুষেরাও একসঙ্গে দুইয়ের অধিক স্ত্রী নিয়ে থাকতে পারবেন।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নারী-পুরুষের বহুবিবাহের বৈধকরণ বিবাহ সম্পর্কিত ৬৭ পৃষ্ঠার গ্রিন পেপার ইতোমধ্যে তৈরি করে তা প্রকাশ করেছেন। আগামী জাতীয় সংসদ অধিবেশনে সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোটে তা পাস হলে আইনটি বাস্তবায়নের জন্য সংশ্লিষ্ট বিভাগে গেজেট আকারে প্রকাশ করা হবে বলে জানা গেছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নথিতে জোর দিয়ে বলেছে যে, সরকার একটি নতুন বিবাহ আইন তৈরি করার চেষ্টা করেছে; যাতে দেশের প্রত্যেক নাগরিক আইনি বিধিমালার মধ্যে স্বীকৃত করে একাধিক বিয়ে করতে পারবেন। নতুন আইনে বলা হয়েছে- অতীতে অধিকাংশ বিয়েগুলো ধর্মীয় বিধান মেনে হওয়ার কারণে আইনের কোনো বাধ্যবাধকতা মানা হতো না। এতে বিয়ে এবং ডিভোর্স নিয়ে সমস্যা হতো। নতুন আইনে একজন নারী-পুরুষ একাধিক স্বামী কিংবা স্ত্রী নিয়ে একসঙ্গে বসবাস করতে পারবেন; তাতে কোনো আইনি ঝামেলা হবে না। নতুন এ আইন পাস হলে নারী-পুরুষ বিয়ের ব্যাপারে আইনি স্বাধীনতা পাবেন বলে মনে করে দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. অ্যারন মোটসোলেদী, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা, দেশের সনাতন নেতা, ধর্মীয় নেতা, শিক্ষাবিদ, নারী নেতা এবং মানবাধিকার কর্মীদের সমন্বয়ে সরকার নতুন বিবাহ আইনের গ্রিন পেপার তৈরি করেছে।

গ্রিন পেপারে বিবাহিত আইনগুলোতে সমতা আনতে পারে বলে জানিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, নতুন বিবাহ আইন চালু হলে সমাজে অন্তর্ভুক্তিমূলক রীতি এবং ধর্মীয় বিবাহ ব্যবস্থার বাইরে নারী-পুরুষ তাদের ইচ্ছা অনুযায়ী বিয়ে করতে পারবেন।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

একসঙ্গে একাধিক পুরুষকে বিয়ে করতে পারবেন নারীরা!

 শওকত বিন আশরাফ, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে 
১৬ জুন ২০২১, ০৮:১৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দক্ষিণ আফ্রিকার নারীরা একসঙ্গে একাধিক পুরুষকে বিবাহ করার অনুমতি পেতে যাচ্ছেন। সেই সঙ্গে পুরুষেরাও এক বা দুইয়ের অধিক স্ত্রী একসঙ্গে রাখতে পারবেন। সম্প্রতি দেশটির সরকার বিবাহ আইন সংশোধন করে নতুন এ আইন প্রণয়ন করতে যাচ্ছে। দেশের গণমাধ্যমে এমন সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পর অভিজ্ঞ ও সচেতন মহলে হাস্যরসের সৃষ্টি হয়েছে। 

দক্ষিণ আফ্রিকার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় দেশে ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন কমিয়ে আনার জন্য সম্প্রতি দেশে বিবাহ আইন সংশোধন করে নতুন এ আইন প্রণয়ন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন। দেশের বিবাহ আইনগুলো পরিবর্তন হলে নিকট ভবিষ্যতে দক্ষিণ আফ্রিকার মহিলারা একসঙ্গে একাধিক স্বামীর সঙ্গে বিবাহের অনুমতি পাবেন, ঠিক তেমনই পুরুষেরাও একসঙ্গে দুইয়ের অধিক স্ত্রী নিয়ে থাকতে পারবেন।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নারী-পুরুষের বহুবিবাহের বৈধকরণ বিবাহ সম্পর্কিত ৬৭ পৃষ্ঠার গ্রিন পেপার ইতোমধ্যে তৈরি করে তা প্রকাশ করেছেন। আগামী জাতীয় সংসদ অধিবেশনে সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোটে তা পাস হলে আইনটি বাস্তবায়নের জন্য সংশ্লিষ্ট বিভাগে গেজেট আকারে প্রকাশ করা হবে বলে জানা গেছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নথিতে জোর দিয়ে বলেছে যে, সরকার একটি নতুন বিবাহ আইন তৈরি করার চেষ্টা করেছে; যাতে দেশের প্রত্যেক নাগরিক আইনি বিধিমালার মধ্যে স্বীকৃত করে একাধিক বিয়ে করতে পারবেন। নতুন আইনে বলা হয়েছে- অতীতে অধিকাংশ বিয়েগুলো ধর্মীয় বিধান মেনে হওয়ার কারণে আইনের কোনো বাধ্যবাধকতা মানা হতো না। এতে বিয়ে এবং ডিভোর্স নিয়ে সমস্যা হতো। নতুন আইনে একজন নারী-পুরুষ একাধিক স্বামী কিংবা স্ত্রী নিয়ে একসঙ্গে বসবাস করতে পারবেন; তাতে কোনো আইনি ঝামেলা হবে না। নতুন এ আইন পাস হলে নারী-পুরুষ বিয়ের ব্যাপারে আইনি স্বাধীনতা পাবেন বলে মনে করে দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। 

দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. অ্যারন মোটসোলেদী, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা, দেশের সনাতন নেতা, ধর্মীয় নেতা, শিক্ষাবিদ, নারী নেতা এবং মানবাধিকার কর্মীদের সমন্বয়ে সরকার নতুন বিবাহ আইনের গ্রিন পেপার তৈরি করেছে।

গ্রিন পেপারে বিবাহিত আইনগুলোতে সমতা আনতে পারে বলে জানিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, নতুন বিবাহ আইন চালু হলে সমাজে অন্তর্ভুক্তিমূলক রীতি এবং ধর্মীয় বিবাহ ব্যবস্থার বাইরে নারী-পুরুষ তাদের ইচ্ছা অনুযায়ী বিয়ে করতে পারবেন।
 

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন