ট্রানজিট হয়ে কুয়েতে ফিরছেন আটকেপড়া প্রবাসীরা
jugantor
ট্রানজিট হয়ে কুয়েতে ফিরছেন আটকেপড়া প্রবাসীরা

  সাদেক রিপন, কুয়েত থেকে  

০৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:২৬:৪৬  |  অনলাইন সংস্করণ

কুয়েতে করোনা ঝুঁকিপূর্ণ দেশের সঙ্গে সরাসরি আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ থাকায় সৌদি, তুর্কি, বাহারাইন হয়ে কুয়েত প্রবেশ করছেন র্দীঘদিন ছুটিতে আটকেপড়া প্রবাসীরা।
স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় টিকেটের মূল্য বেশি হওয়ায় যাদের আকামার মেয়াদ শেষ পর্যায়ে রয়েছে- এমন প্রবাসীরাই ফিরছেন বেশি।

এদিকে করোনা পরিস্থিতি উন্নতি হওয়ায় ধাপে ধাপে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালু করছে বিভিন্ন দেশের সঙ্গে। কোটা পদ্ধতিতে বিভিন্ন দেশ থেকে প্রতিদিন ১০ হাজার যাত্রী প্রবেশের অনুমোতি দেয়া হয়েছে। এছাড়াও জোর গতিতে চলছে গণটিকাদান কর্যক্রম। স্বাভাবিক হতে চলেছে কুয়েতরে জীবন যাত্রা।

১ বছর আটকে থাকার পর তুর্কিতে ৮ ঘণ্টা ট্রানজিট হয়ে আসা কুয়েত প্রবাসী মোহাম্মদ সেলিম জানান, দেশে আটকপড়া প্রবাসীদের অবস্থা অনেক করুণ। পিসিআর সনদ, ইমোনি আপসে সবুজ সংকেত থাকলে যাত্রা পথে কোনো ঝামেলা নেই। ট্রানজিট হয়ে ভিন্ন ফ্লাইটে আরও অনেক বাংলাদেশিরা আসছে।

ট্রানজিট হয়ে আসা অন্য আরেক জন প্রবাসী সাঈদুল মোল্লা জানান, ৭ মাস দেশে আটকে ছিলাম। সেপ্টেম্বরের ১০ তারিখে আমার আকামার মেয়াদ শেষ। আমার সঙ্গে একই ফ্লাইটে এসেছে যাদের কয়েকজনের আকামা মেয়াদের আজকে শেষ দিন। যেহেতু টিকেটের মূল্য অন্য সময়ের তুলনায় বেশি, একাধিক ট্রাভেল এজেন্সি যাচাই করে চলে আসাটা ভালো হবে।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

ট্রানজিট হয়ে কুয়েতে ফিরছেন আটকেপড়া প্রবাসীরা

 সাদেক রিপন, কুয়েত থেকে 
০৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:২৬ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কুয়েতে করোনা ঝুঁকিপূর্ণ দেশের সঙ্গে সরাসরি আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ থাকায় সৌদি, তুর্কি, বাহারাইন হয়ে কুয়েত প্রবেশ করছেন র্দীঘদিন ছুটিতে আটকেপড়া প্রবাসীরা।
স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় টিকেটের মূল্য বেশি হওয়ায় যাদের আকামার মেয়াদ শেষ পর্যায়ে রয়েছে- এমন প্রবাসীরাই ফিরছেন বেশি।

এদিকে করোনা পরিস্থিতি উন্নতি হওয়ায় ধাপে ধাপে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালু করছে বিভিন্ন দেশের সঙ্গে। কোটা পদ্ধতিতে বিভিন্ন দেশ থেকে প্রতিদিন ১০ হাজার যাত্রী প্রবেশের অনুমোতি দেয়া হয়েছে। এছাড়াও জোর গতিতে চলছে গণটিকাদান কর্যক্রম। স্বাভাবিক হতে চলেছে কুয়েতরে জীবন যাত্রা।

১ বছর আটকে থাকার পর তুর্কিতে ৮ ঘণ্টা ট্রানজিট হয়ে আসা কুয়েত প্রবাসী মোহাম্মদ সেলিম জানান, দেশে আটকপড়া প্রবাসীদের অবস্থা অনেক করুণ। পিসিআর সনদ, ইমোনি আপসে সবুজ সংকেত থাকলে যাত্রা পথে কোনো ঝামেলা নেই। ট্রানজিট হয়ে ভিন্ন ফ্লাইটে আরও অনেক বাংলাদেশিরা আসছে।

ট্রানজিট হয়ে আসা অন্য আরেক জন প্রবাসী সাঈদুল মোল্লা জানান, ৭ মাস দেশে আটকে ছিলাম। সেপ্টেম্বরের ১০ তারিখে আমার আকামার মেয়াদ শেষ। আমার সঙ্গে একই ফ্লাইটে এসেছে যাদের কয়েকজনের আকামা মেয়াদের আজকে শেষ দিন। যেহেতু টিকেটের মূল্য অন্য সময়ের তুলনায় বেশি, একাধিক ট্রাভেল এজেন্সি যাচাই করে চলে আসাটা ভালো হবে।
 

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর